Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

‘সমুদ্র জয়’ ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচারে মঙ্গল শোভাযাত্রা

ঢাকা, ১৪ এপ্রিল: শনিবার সকাল থেকেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরো ক্যাম্পাস রঙ্গিন সাজে সেজে। সব বয়সের মানুষ ক্যাম্পাসে এসে ভিড় করে। সকাল ৯টার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা থেকে বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা বের হয়।

 

মঙ্গল শোভাযাত্রা চারুকলা থেকে শুরু হয়ে রূপসী বাংলা হোটেলের দিয়ে ঘুরে টিএসটি হয়ে আবার চারুকলায় শেষ হয়। প্রতিবছরের মতো এবারের মঙ্গল শোভাযাত্রার সমন্বয়ের কাজ করেছে চারুকলার ১১তম ব্যাচের এমএসএর দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীরা। এছাড়া বাংলাদেশের সব শিল্পী ও সাংস্কৃতিক কর্মী এর জন্য কাজ করেছেন।

 

শোভাযাত্রায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর অধ্যাপক ড. আমজাদ আলী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক অহিদুজ্জামান চান ও চারুকলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. এমদাদুল হক মো. মতলব আলী উপস্থি ছিলেন।

 

বর্ণিল পোশাকে ও বাহারি রঙের  মুখোশ-ফানুসে সজ্জিত হয়ে  হাজার হাজার মানুষ শোভাযাত্রায় অংশ নিয়েছে। এছাড়া বিদেশী নাগরিকদেরও শোভাযাত্রায় অংশ নিতে দেখা যায়।

 

মঙ্গল শোভাযাত্রার সমুদ্র জয়ের বিষয়টি প্রাধান্য পেয়েছে। এছাড়াও যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবি তোলা হয়। যুদ্ধাপরাধীদের প্রতীক হিসেবে কালো রঙের ভয়ঙ্কর কিছু ফিগার (মুর্তি) তৈরি করা হয়েছে, যা দেখে সাধারণ মানুষ ভয় পাবে এবং যুদ্ধারাপরাধীদের ঘৃণা সৃষ্টি করবে। ভয়ঙ্কর এই মানুষগুলোকে ঘৃণা দেখানোর জন্যই এই ফিগারগুলো তৈরি করা হচ্ছে। এছাড়া বাঘ, পেঁচা, খরগোশের মুখোশ এবং পেপার ম্যাসেজ হিসেবে রঙিন কাগজে মানুষের জন্য কিছু মেসেজ (বার্তা) থাকবে।

 

চারুকলা অনুষদের ডিন এমদাদুল হক মো. মতলুব আলী বার্তা২৪ ডটনেটকে বলেন, “আমাদের একটি ঐতিহ্যবাহী অনুষ্ঠান হলো বাংলা নববর্ষ। আর নববর্ষের অন্যতম আকর্ষণ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলার মঙ্গল শোভাযাত্রা। আমাদের শিক্ষার্থীরা দিন-রাত পরিশ্রম করে শোভাযাত্রাটি সফল করেছে। এবারের শোভাযাত্রায় সমুদ্রজয় ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচার জন্য বিভিন্ন প্রতিকৃতি বহন করা হয়।”

 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর অধ্যাপক ড. মো. আমজাদ আলী বার্তা২৪ ডটনেটকে বলেন, “এবারের শোভাযাত্রা গতবারের চেয়ে ভালো হয়েছে। শোভাযাত্রায় কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলার খবর পাওয়া যায়নি।”

 

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট