Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

৫ কোটি টাকার গেটওয়ে লাইসেন্স, আলোচনায় সুরঞ্জিত পুত্র

স্টাফ রিপোর্টার: রেলমন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের ছেলে সুমন সেনগুপ্তকে বৃহস্পতিবার ৫ কোটি টাকার টেলিযোগাযোগের আন্তর্জাতিক গেটওয়ে লাইসেন্স দেয়া হয়েছে। রেলওয়েগেট কেলেঙ্কারির ঘটনা ঘটার পর এই লাইসেন্স পুরস্কার পেলেন তিনি। ছ’মাস আগে সুমন একটি ইন্টারনেট সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান অগ্নি সিস্টেমস লিমিটেডে কাজ করতেন। এ লাইসেন্স পেতে তাকে ৫ কোটি টাকা পরিশোধ করতে হয়েছে। এই টাকা তিনি গত ২রা মার্চ ও ২রা এপ্রিল টেলিকম রেগুলেটরকে পরিশোধ করেছেন। অগ্নি সিস্টেমে যোগদানের আগে সুমন মার্চ ’১০ থেকে মে’ ১১ পর্যন্ত নেক্সটজেন নামের একটি আইটি ফার্মে কাজ করেছেন। এসব তথ্য তার সোস্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট লিংকইনের প্রোফাইলে পাওয়া গেছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে প্রতিষ্ঠানটির একজন কর্মকর্তা বলেছেন, সুমন মাসে অগ্নি সিস্টেম লিমিটেড থেকে ৫০ হাজার টাকা করে বেতন পেতেন। ২০০৮ সালের নির্বাচনের আগে নির্বাচন কমিশনে দাখিল করা সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের আর্থিক প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, তার বার্ষিক আয় মাত্র ৭ লাখ টাকা। এর উৎস ছিল বাড়ি ভাড়া, মাছচাষ ও কৃষিজমি। গত বছরের ডিসেম্বর মাসে রেলমন্ত্রীর দায়িত্ব পান সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত। এর আগে তিনি আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্ট্যান্ডিং কমিটির সভাপতি ছিলেন। সাত বার নির্বাচিত সংসদ সদস্য সুরঞ্জিত সোমবার মধ্যরাতে তার একান্ত ব্যক্তিগত সচিব ওমর ফারুক তালুকদারের মাইক্রোবাস থেকে ৭০ লাখ টাকা উদ্ধারের ঘটনায় তীব্র সমালোচনার মুখে রয়েছেন। গাড়িচালক আলী আজম টাকা ও গাড়ির তিন আরোহী সুরঞ্জিতের সহকারী ব্যক্তিগত সচিব ওমর ফারুক, রেলওয়ের পূর্বাঞ্চলীয় জেনারেল ম্যানেজার ইউসুফ আলী মৃধা ও রেলওয়ের নিরাপত্তা কর্মকর্তা ইনামুল হকসহ গাড়িটি পিলখানার বিজিবি সদর দপ্তরে ঢুকিয়ে দিলে বিজিবি সবাইকে আটক করে। এর আগে চালক চিৎকার করে বলেন, গাড়িতে অবৈধ টাকা আছে। তিনি বিজিবি সদস্যদের টাকা জব্দ ও তাদের আটক করার আহ্বান জানান। গোয়েন্দা কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, অভিযুক্তরা টাকা নিয়ে সুরঞ্জিতের বাসভবনের দিকে যাচ্ছিলেন। তবে সুরঞ্জিত বলেছেন এমন দাবি সঠিক নয়। মন্ত্রী আবারও আলোচনায় এসেছেন বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) তার ছেলের প্রতিষ্ঠান সেনগুপ্ত টেলিকমিউনিকেশন লিমিটেডকে ইন্টারকানেকশন এক্সচেঞ্জ লাইসেন্স দেয়ার পর। বিটিআরসি’র চেয়্যারম্যান জিয়া আহমেদ বলেছেন, সুমন লাইসেন্সটি সংগ্রহ করেছেন। এতে লাইসেন্স দেয়ার সব প্রক্রিয়া অনুসরণ করেই তাকে লাইসেন্স দেয়া হয়েছে। মোট ২২টি লাইসেন্সের মধ্যে ২১টি বৃহস্পতিবার হস্তান্তর করা হয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন। একজন টেলিকম বিশেষজ্ঞ বলেছেন, একটি টেলিকমিউনিকেশন কোম্পানি প্রতিষ্ঠা করতে হলে কমপক্ষে ৩০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করার প্রয়োজন হয়। লাইসেন্সের ফি পরিশোধ করার টাকা কোথায় পেয়েছেন সুমন এ বিষয়ে তার মতামত নেয়ার জন্য অনেক চেষ্টা করার পরও তাকে পাওয়া যায়নি।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট


2 Responses to ৫ কোটি টাকার গেটওয়ে লাইসেন্স, আলোচনায় সুরঞ্জিত পুত্র

  1. Masud Ahmed

    April 14, 2012 at 8:07 pm

    Hahaha. Some morons has made some stupid comments here. If Soumen is questioned all IIG, IGW and ICX should be questioned and so Far 5 cr is for ICX and There are no Idiots in the world who will pay for their own Pocket. In This case I will rather say professor Yunus is even bigger corrupt because he is using The money of Aid for his personal benefit . One more thing License has been issue in his name. So they should ask soumen and It can be Venture capital. This is white money and going to the GOVT body. This guy NaZmul is telling him thief But while Prof Younus stole the money these Idiots had a chorus that the fame of country is diminished. hahahaha. Because Yunus is a nobel laureate and he has right to do or undo any thing. Bastards.

  2. sumon ahmed

    April 16, 2012 at 12:17 am

    samner alo jadik jai pichar alo shadik jai……baba chor chela ki onno kicu hobea?