Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

টাকা হলেই পদ!!

নাটোর : নাটোরের সিংড়ায় টাকা হলেই বিএনপির দলীয় পদ পাওয়া যায়। যার টাকা নেই, তার দলীয় পদ নাই। ২৯ মার্চ উপজেলা যুবদলের কমিটি ঘোষনা করা হয়। পরের দিন ঘোষিত কমিটি থেকে পদত্যাগ করেন সাংগঠনিক সম্পাদক বোরহান উদ্দিন বাবু। নাটোর জেলা নেতাদের অযাচিত হস্তক্ষেপে সিংড়া উপজেলা বিএনপি, যুবদল-ছাত্রদল ও স্বেচ্ছাসেবক দল এবং কৃষক দলে অস্থিরতা বিরাজ করছে। উপজেলা বিএনপি ও যুবদল নেতাদের অভিযোগ, জেলা যুবদল সভাপতি সাইফুল ইসলাম আফতাব ও সাধারন সম্পাদক বাবুল চৌধুরী এবং সাংগঠনিক সম্পাদক এ হাই তালুকদার ডালিম দলকে ব্যক্তিগত সম্পত্তি মনে করে কয়েক লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

সংশ্ল্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘ ১০ বছর যুবদল সভাপতি আতিকুর রহমান লিটন ও সাধারন সম্পাদক আনোয়ার হোসেনের দায়িত্ব অবহেলার কারণে নেমে আসে স্থবিরতা। এরপর উপজেলা বিএনপির অন্তর্দন্দ্বের কারণে দলে উপদলে বিভক্ত হয়ে পড়ে যুবদল। ছাত্রদলের সাবেক এক নেতা নাম প্রকাশ না শর্তে বলেন, সুযোগ বুঝে জেলা যুবদল সভাপতি সাইফুল ইসলাম আফতাব, সাধারন সম্পাদক বাবুল চৌধুরী এবং সাংগঠনিক সম্পাদক এ হাই তালুকদার ডালিম কয়েক লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়। উপজেলা যুবদলের কমিটিতে স্থান পাওয়া অশিক্ষিত, অদক্ষ্য অসাংগঠনিক নেতাদের খুশি করতে নদীর মাছ, গাছের আম ও নগদ টাকা বাসায় দিয়ে আসতো। ফলে ত্যাগী পরীক্ষিত নেতাদের মূল্যায়ন না করে এবং জুনিয়র-সিনিয়র  বিবেচনা না করে ২৯ মার্চ ৪৯ সদস্য বিশিষ্ট সিংড়া উপজেলা যুবদলের কমিটি ঘোষনা করা হয়।

ওয়ার্ড কাউন্সিলর তায়জুল ইসলাম সভাপতি ও হাবিবুর রহমান হাবিব সাধারণ সম্পাদক এবং বোরহান উদ্দিন বাবুকে সাংগঠনিক সম্পাদক করা হয়। পরের দিন ঘোষিত কমিটি থেকে পদত্যাগ করেন সাংগঠনিক সম্পাদক বোরহান উদ্দিন বাবু। এর আগে ২১ অক্টোবর ৩১ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি অনুমোদন দেয় জেলা যুবদল। ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি রফিকুল ইসলাম বুলেট বলেন, পরীক্ষিত নেতাদের অবমূল্যায়ন করে টাকার বিনিময়ে পদ বিক্রি করা হচ্ছে। উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ইব্রাহিম খলিল ফটিক বলেন-যুবদলের কমিটি নিয়ে জেলা নেতাদের বাণিজ্য কর্মীদের মুখে ফুটে উঠেছে। দলীয় একাধিক সূত্র জানায় সিংড়া উপজেলা যুবদলের,ঘোষিত কমিটিতে রায়হান কবির সহ-সভাপতি, সহ-সাধারন সম্পাদক ও পল্ল্লী উন্নয়ন সম্পাদক এবং মাসুদ রানা গণশিক্ষা সম্পাদক ও ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক, আকতার হোসেন সহ সভাপতি ও সহ কোষাধ্যক্ষ পদে রয়েছেন। তাছাড়া আকরাম হোসেন কোষাধ্যক্ষ ও প্রচার সম্পাদকের পদে রয়েছেন। টাকার বিনিময়ে ৪জন ১১টি পদ দখল করেছেন।। অথচ অনেক ত্যাগি নেতার স্থান পায়নি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ইউনিয়নের অনেক নেতা কর্মী বলেন কমিটিতে সিনিয়র নেতা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি ত্যাগী ও পরীক্ষিত নেতা বোরহান উদ্দিন বাবুকে সাংগঠনিক পদ দেয়া হয়। ২০১০ সালে ৫মে রাজশাহীতে বিরোধী দলের নেতা বেগম খালেদা জিয়ার জনসভায় যোগদানের উদ্দেশ্যে বগুড়া-শেরপুরের বিএনপি গাড়ি বহরের উপর স্থানীয় আওয়ামীলীগের হামলায় বিএনপি নেতা জাকির হোসেন নিহত হন। ওই ঘটনায় ৩টি মামলায় আসামী করা হন বোরহান উদ্দিন বাবু। এব্যাপারে  যোগাযোগ করা হলে বোরহান উদ্দিন বাবু কোন মন্তব্য করতে রাজি হয়নি। বিগত সময়ে তিনি জেল-জুলুমসহ আ’লীগের নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। অথচ ওই ঘটনার সাক্ষী আনোয়ার জাহিদ আওয়ামীলীগের চাপে সাক্ষী প্রত্যাহার করে নেন। কিন্তু তাকে উপজেলা যুবদলের সহ সাধারন সম্পাদকের পদ দেয়া হয়েছে। যুবদলের এই কমিটি নিয়ে ক্ষোভ বিক্ষোভে রূপ নিতে পারে বলে মনে করছেন সংশ্ল্লিষ্টরা নেতারা।

জেলা যুবদল সভাপতি সাইফুল ইসলাম আফতাব টাকা নিয়ে পদ দেয়ার কথা অস্বীকার করে জানান, বিএনপি একটি বৃহৎদল সবাইকে খুশি করা সম্ভব নয়। যোগ্যতার ভিত্তিতে দলীয় পদ দেয়া হয়েছে। একই ব্যাক্তি তিনটি পদের বিষয়ে তিনি বিস্ময় প্রকাশ করে বলেন এটা কম্পিটারে ভুল হতে পারে। আমাদের প্রিয় নেতা সাবেক মন্ত্রী দুলু ভাই স্বচ্ছ রাজনীতিতে বিশ্বাসী।

জেলা যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক এ হাই তালুকদার ডালিম পদ নিয়ে বানিজ্যর কথা অস্বীকার করে বলেন আমরা অর্থনৈতিক ভাবে দূর্বল নয়। তবে তড়ি-ঘরি করে কমিটি ঘোষনা করায় যাচাই বাছাই করা সম্ভব হয়নি বলে জানান।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট