Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

মাহীর ‘অরাজনৈতিক’ কর্মসূচি পণ্ড করল পুলিশ (ভিডিও)

পুলিশের বাধায় পণ্ড হয়ে গেছে সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইট ফেসবুক-ভিত্তিক সংগঠন ‘ব্লু ব্যান্ড কল’-এর কর্মসূচি। আজ শুক্রবার সকালে ধানমন্ডির রবীন্দ্রসরোবর থেকে ওই সংগঠনের পাঁচজনকে আটক করে পুলিশ। পুলিশের পিটুনিতে আহত হয় কয়েকজন। এর প্রতিবাদে বিকেলে সংগঠনের ১০০ জনের মতো তরুণ-তরুণী ধানমন্ডি থানায় স্বেচ্ছায় কারাবরণ করতে যান।

সাবেক রাষ্ট্রপতি বদরুদ্দোজা চৌধুরীর ছেলে মাহী বি চৌধুরী ও তাঁর স্ত্রী আফরোজা হক লোপা ব্লু ব্যান্ড কলের সংগঠক। আজ সকাল থেকে কাল শনিবার সকাল পর্যন্ত রবীন্দ্রসরোবরে ‘সমঝোতার বাংলাদেশ চাই’ ব্যানারে ২৪ ঘণ্টার কর্মসূচি পালনের কথা ছিল সংগঠনটির। কর্মসূচির মধ্যে ছিল—অবস্থান, নিজেদের মধ্যে আলোচনা, নিজেদের জোগাড় করা চাল-ডাল দিয়ে রান্না করে খাওয়া ও রাতে স্বাধীনতার ওপর চলচ্চিত্র দেখা।
কর্মসূচিতে অংশ নেওয়া এক তরুণ বলেন, পূর্বঘোষণা অনুযায়ী আজ সকাল আটটার দিকে তাঁরা ১৫-২০ জন রবীন্দ্রসরোবরে গিয়ে জড়ো হন। কিছুক্ষণের মধ্যেই দুই-তিনজন পুলিশ কর্মকর্তা এসে বলেন, এখানে কর্মসূচি পালন করা যাবে না। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে অনেকে তাঁদের কর্মসূচিতে যোগ দেয়। তরুণেরা রবীন্দ্রসরোবরের চত্বরের বাইরে রাস্তায় ছড়িয়ে-ছিটিয়ে জমা হতে শুরু করে। এর মধ্যে পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে তাদের কয়েক দফা কথাবার্তা হয়। পুলিশ কর্মকর্তারা বলেন, একসঙ্গে তিনজনের বেশি দাঁড়িয়ে থাকা যাবে না। পৌনে ১১টার দিকে ধানমন্ডি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামান ঘটনাস্থলে গেলে তরুণদের সঙ্গে বাগবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে পুলিশের দুটি গাড়িতে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে হঠাত্ করেই তরুণদের মারতে শুরু করে। এ সময় অন্তত ১০-১২ জন আহত হয়। অংশগ্রহণকারীরা আরও অভিযোগ করেন, মোটরসাইকেল থাকা দুজনকে বেধড়ক পেটানো হয়। এ সময় পুলিশ কয়েকজনকে ভ্যানে উঠিয়ে নিয়ে যায়।
দুপুরের পর মাহী বি চৌধুরী, আফরোজা হক, আইনজ্ঞ শাহদীন মালিকসহ সংগঠনের প্রায় ১০০ তরুণ-তরুণী ধানমন্ডি থানায় গিয়ে জড়ো হন। তাঁরা আটক ব্যক্তিদের মুক্তি দাবি করতে থাকেন। একপর্যায়ে থানার অতিথি কক্ষে বসে ওসির সঙ্গে কথা বলেন মাহী বিসহ অন্যরা।
এ সময় মাহী বি চৌধুরী বলেন, এটা কোনো রাজনৈতিক কর্মসূচি নয়। পুলিশকে কেউ ভুল বুঝিয়েছে। বিনা কারণে তরুণদের আটক করা হয়েছে। ওসি বলেন, আটকদের রক্ত-সম্পর্কের আত্মীয়রা এলেই তাদের ছেড়ে দেওয়া হবে। কথাকাটাকাটির একপর্যায়ে ওসি মন্তব্য করেন, ‘রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বরা কারও জানাজায় অংশ নিলেও সেটা রাজনৈতিক কর্মসূচি।’
ওসি মনিরুজ্জামান সাংবাদিকদের বলেন, রবীন্দ্রসরোবরে কর্মসূচি পালনের জন্য তারা পুলিশের অনুমতি নেয়নি। এমনকি রবীন্দ্রসরোবরে অনুষ্ঠানের জন্য যে প্রতিষ্ঠানটির অনুমোদন তারা নিয়েছিল তাও বাতিল করেছে ওই প্রতিষ্ঠানটি। এ কারণে পুলিশ সেখানে গিয়ে কর্মসূচি বন্ধ করার কথা বললে পুলিশের সঙ্গে তাদের ‘হিচিং’ (ধাক্কাধাক্কি) হয়। এরপর পুলিশ পাঁচজনকে আটক করেছে।
মাহী সাংবাদিকদের বলেন, রবীন্দ্রসরোবরের লিজ গ্রহণকারী প্রতিষ্ঠান ‘ডাইনামিক’ থেকে ২৪ ঘণ্টার (চার শিফট) জন্য কর্মসূচি পালনের অনুমোদন নেওয়া হয়েছে। এ জন্য প্রতিষ্ঠানটি ৪৫ হাজার টাকাও নিয়েছে। পুলিশের অনুমোদন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের সংবিধান অনুযায়ী সভা-সমাবেশ করতে পারেন। পুলিশ জনগণের সেবক। সে অনুযায়ী নাগরিকরা পুলিশের কাছে অনুমতি চাইতে পারে না। তবে আমরা নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য পুলিশকে লিখিতভাবে জানিয়েছি। পুলিশ কোনো আপত্তি করেনি।’
কর্মসূচি সম্পর্কে মাহী বলেন, এখনকার তরুণ-তরুণীরা রাজনৈতিক হানাহানি দেখতে চায় না। তারা সমঝোতার রাজনীতি দেখতে চায়। শান্তির রাজনীতি চায়। এ জন্যই সবার একত্রিত হওয়া।
নিজের রাজনৈতিক পরিচয় এখানে কোনো ভূমিকা রাখছে কি না—জানতে চাইলে মাহী বলেন, ‘এখানে আমি বিকল্পধারার মাহী না। নিজের ব্যক্তি পরিচয়ে এসেছি।’

নিউজ সোর্স প্রথম আলো

 

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট


2 Responses to মাহীর ‘অরাজনৈতিক’ কর্মসূচি পণ্ড করল পুলিশ (ভিডিও)

  1. sikiş izle

    March 13, 2012 at 10:59 am

    I was searching for this excellent sharing admin considerably thanks and have nice running a blog bye

  2. smackdown oyunları

    March 14, 2012 at 4:36 pm

    i bookmarked you in my browser admin thank you a lot i will be in search of your next posts