Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

নতুন ব্যাংক অনুমোদনের সিদ্ধান্ত দুপুরে

ঢাকা, ৪ এপ্রিল: নতুন ব্যাংক অনুমোদন দিতে পারে বুধবার। অনুমোদন নিয়ে বুধবার বেলা দেড়টায় বাংলাদেশ ব্যাংকের পর্যালোচনা পর্ষদ বৈঠক বসবে।এ বৈঠকে নতুন ব্যংকের অনুমোদন দিতে সিদ্ধান্ত হতে পারে বলে ব্যাংক সূত্রে জানা গেছে। নতুন ব্যাংক  অনুমোদন নিয়ে রাজনৈতিক চাপের মুখে অনেকটাই অসহায় বাংলাদেশ ব্যাংক। তাই দ্রুত অনুমোদন নিয়ে দিতেই পর্যালোচনা পর্ষদের বৈঠক বসছে।

 

এদিকে বাংলাদেশ ব্যাংকে জমা পড়া ৩৭টি আবেদন যাচাই-বাছাই করে প্রাথমিকভাবে ১৬টির লাইসেন্স দেয়ার সিদ্ধান্তে পৌঁছেছে সরকার। এর  প্রতিটির সঙ্গে কোনো না কোনোভাবে জড়িত রয়েছে রাজনৈতিক প্রভাব।

 

এর মধ্যে প্রথম দিকে অনুমোদন পেতে যাচ্ছে সরকারি প্রতিষ্ঠান-সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী মহীউদ্দীন খান আলমগীরের ফারমারস ব্যাংক। তিনি এ ব্যাংকটির প্রস্তাবিত চেয়ারম্যান। তালিকায় রয়েছে আওয়ামী লীগ থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য ফজলে নূর তাপসের মধুমতি ব্যাংক। যদিও এ ব্যাংকের চেয়ারম্যান হিসেবে নাম আছে জনৈক হুমায়ুন কবীরের।

 

সদ্য মারা যাওয়া সাবেক ছাত্রনেতা জাহাঙ্গীর সাত্তার টিংকুর চার্টার্ড ব্যাংক। এরপর থাকছে সরকারদলীয় সংসদ সদস্য এইচএন আশিকুর রহমান ও নসরুল হামিদের প্রস্তাবিত মেঘনা ব্যাংক। এ ব্যাংকের চেয়ারম্যান হিসেবে নাম রয়েছে আশিকুর রহমানের।

 

নতুন ব্যাংক অনুমোদনের দৌড়ে পিছিয়ে নেই ক্ষমতাসীন মহাজোটের অন্যতম শরিক জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদও। তার প্রস্তাবিত ইউনিয়ন ব্যাংকের চেয়ারম্যান হিসেবে নাম রয়েছে জনৈক শহীদুল আলমের। আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মির্জা আজমের প্রস্তাবিত দ্য পিপলস ব্যাংক। এ ব্যাংকের অন্যতম উদ্যোক্তা হিসেবে নাম রয়েছে যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতা মোহাম্মদ আলী খোকন ও স্থানীয় সরকার প্রতিমন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানকের স্ত্রী সৈয়দ আরজুমান বানুর।

 

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ক্যাপ্টেন এবি তাজুল ইসলামের প্রস্তাবিত ব্যাংকের নাম ফেডারেল ব্যাংক। এ ব্যাংকের চেয়ারম্যান হিসেবে রয়েছেন সরকারদলীয় সংসদ সদস্য শাহরিয়ার আলম। কর্মসংস্থান ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম মনিরুজ্জামান খন্দকারের প্রস্তাবিত ব্যাংকের নাম মিডল্যান্ড ব্যাংক। তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অত্যন্ত আস্থাভাজন হিসেবে পরিচিত।

 

এছাড়াও লাইসেন্স পেতে যাচ্ছে পিপলস ইসলামী ব্যাংক। এ ব্যাংকের প্রস্তাবিত চেয়ারম্যান হিসেবে রয়েছেন আবুল কাসেম নামের একজন প্রবাসী। এর সঙ্গে রয়েছেন সাবেক সেনাপ্রধান মইন উ আহমেদের ভাই ইফতেখার আহমেদ টিপুর ইফাদ অটোস, বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি আনোয়ার উল আলম চৌধুরী পারভেজ।

 

আওয়ামী লীগ বুদ্ধিজীবী অধ্যাপক আবদুল মান্নান চৌধুরী উদ্যোক্তা হিসেবে সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার অ্যান্ড কমার্স ব্যাংকের অনুমোদন চেয়েছেন। এ ব্যাংকের চেয়ারম্যান হিসেবে নাম আছে এসএম আমজাদ হোসেনের।

 

দেশের প্রথম অর্থসচিব মতিউল ইসলাম ইনফ্রাস ট্রাকচার ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের অনুমোদন চেয়ে আবেদন করেছেন। ঠেঙ্গামারা মহিলা সবুজ সংঘের (টিএমএসএস) প্রতিষ্ঠাতা হোসনে আরা বেগমের প্রস্তাবিত ক্ষুদ্র পুঁজি ব্যাংকও অনুমোদনের তালিকায় রয়েছে। এ ব্যাংকের সঙ্গে রয়েছে শিল্পপতি ওবায়দুল করীমের ওরিয়ন ফার্মা, যার প্রতিনিধি ফেরদৌস জামান, বেলহাসা একম জেভির প্রতিনিধি সমরেশ বণিক।

 

সূত্র মতে, সেলফ এমপ­য়মেন্ট ব্যাংক নামে আবেদন করেছিলেন প্রয়াত জাতীয় অধ্যাপক কবীর চৌধুরী। এ ব্যাংকটিও লাইসেন্স পেতে যাচ্ছে। এ ব্যাংকের সঙ্গে আছেন সাবেক অর্থমন্ত্রী ওহেদুল হক, অধ্যাপক দীন মোহাম্মদ ভূঁইয়া, তার পরিবারের সদস্যসহ কয়েকজন শিক্ষাবিদ।

 

এ ছাড়া আছে কোরিয়া-বাংলা ব্যাংক লিমিটেড। এর চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক। পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স, মাল্টিপ্লান লিমিটেডসহ বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান রয়েছে এ ব্যাংকের উদ্যোক্তা হিসেবে। নিটল টাটা ও প্রাণ গ্রুপের প্রস্তাবিত কটক বাংলা ব্যাংকের উদ্যোক্তা হিসেবে রয়েছে ভারতের বিখ্যাত কটক মহীন্দ্র ব্যাংক, এতে তাদের শেয়ার থাকবে ৬০ শতাংশ। বাকি শেয়ার থাকবে আবদুল মাতলুব আহমাদের গ্রুপ, প্রাণ অ্যাগ্রো বিজনেস ও প্রাণের প্রধান নির্বাহী আমজাদ খান চৌধুরীসহ বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের।

 

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট