Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

ইউটিউবে জেতা যাবে ‘টাইটানিক’র হার

লন্ডন, ৩ এপ্রিল: জেমস ক্যামেরনের বিশ্বজয়ী ছবি ‘টাইটানিক’র সেই হারের কথা এখনো সবার মনে আছে নিশ্চয়ই। যা রোজের হবু স্বামী পরিয়ে দিয়েছিলেন তার গলায়। যা পরে রোজ প্রেমিক জ্যাকের স্কেচে জীবন্ত হয়ে উঠেছিলেন এবং শেষে ওই হার চুরির অপবাদই আসে জ্যাকের ওপর, যা ছবিতে নিয়ে আসে একটি ট্র্যাজিক মোড়। সেই নীল হীরার ‘হার্ট অফ দ্য ওশিন’ এখন জিততে পারে ইউটিউব ইউজাররা।

 

‘থ্রিডি টাইটানিক’ মুক্তির খুশিতে এবং ‘টাইটানিক’ ট্র্যাজেডির একশো বছরপূর্তিতে নতুন করে বানানো হয়েছে ছয়টি ‘হার্ট অফ ওশিন’। যার মধ্যে পাঁচটি হার তোলা হবে নিলামে এবং একটি হারের জন্য ডাকা হবে বিশেষ প্রতিযোগিতা, ইউটিউবে। প্রতিযোগিতায় যে জিতবে তার হাতে তুলে দেয়া হবে সেই ঐতিহাসিক হারটি, নিলামে যার সর্বনিম্ন মূল্য হাঁকা হবে ১৫ হাজার ডলার।

 

‘থ্রিডি টাইটানিক’র প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ফক্স ওই হার্টশেপড নীল হীরার পাশে ১০৬টি ক্ষুদ্রাকৃতির হীরা বসানো হারটির আদলে ছয়টি হার তৈরির দায়িত্ব দিয়েছে ম্যাক্সিকোর জুয়েলারি ডিজাইনার ড্যানিয়াল অ্যাসপিনোসাকে।

 

‘হলিউড রিপোর্টার’-কে ওই প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের এক মুখপাত্র জানিয়েছে এই তথ্য। মুখপাত্র জানিয়েছে, হারটি জেতার জন্য প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে পারবে বিশ্বের যেকোনো ‘টাইটানিক’প্রেমী। তবে, প্রতিযোগিতা কী নিয়ে হবে, এর ধরন কেমন হবে-তা এখনো জানায়নি ওই মুখপাত্র।

 

১৯৯৭ সালে মেগা ব্লকবাস্টার এবং সর্বকালের সেরা ছবির একটি ‘টাইটানিক’-এ এই ‘হার্ট অফ ওশিন’ একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে। ধারণা করা হয়, এই ‘হার্ট অফ ওশিন’ শুধু রিল লাইফের একটি অংশই না। ১৯১২ সালের ‘টাইটানিক’ ট্রাজেডিতেও এই ‘হার্ট অফ ওশিন’র অস্তিত্ব পাওয়া যায়। কেট ফ্লোরেন্স ফিলিপ নামের এক টাইটানিক যাত্রীকেও তার স্বামী এমনি একটি নীল হীরার হার পরিয়ে দিয়েছিলেন। কিন্তু রোজের মতো কেটও বাস্তবজীবনে ওই টাইটানিক ট্রাজেডিতেই তার ম্বামীকে হারান। পরে এই নীল হীরার হারটিই কেটের সান্ত্বনার সঙ্গী হয়েছিল সারাজীবনের।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট