Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

শিক্ষার্থীরা চাইলে পদত্যাগ করবো: জাবি ভিসি

সাভার, ১ এপ্রিল: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. শরীফ এনামুল কবির বলেছেন, “শিক্ষক সমাজ আমার পদত্যাগ চায়। কিন্তু কেন? কয়েকজন শিক্ষক স্বার্থের খোঁজে পদত্যাগ চাইলেই আমি পদত্যাগ করতে পারি না। আপনারা যদি বলেন আমি আজই অভিযোগ বাক্স করে দেই। ১২ হাজার ছেলে-মেয়েরা যদি চায় তবে আমি বিনা বাক্যে পদত্যাগ করে চলে যাবো।”

 

রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

 

তিনি আরো বলেন, “শিক্ষক সমাজের আন্দোলন কোনো যৌক্তিক আন্দোলন নয় বরং জুবায়ের হত্যা ও শিক্ষক নিয়োগের ধোয়া তুলে বিশ্ববিদ্যালকে অস্থিতিশীল করার প্রচেষ্টা। আমার প্রশাসন যে অভূতপূর্ব উন্নতি করছে তা সহ্য করতে না পেরে ঈর্ষান্বিত হয়ে আন্দোলনে নেমেছে। কয়েক জন একত্র হয়ে আন্দোলন করলেই শিক্ষক সমাজ হয়ে যায় না।”

 

তিনি বলেন, “গত তিন বছরে আমি বিশ্ববিদ্যালয়কে সেশনজট মুক্ত করেছি, নতুন দশটি বিভাগ ও দুটি ইনস্টিটিউট খোলা হয়েছে। এখন প্রতি বছর বাড়তি এক হাজার ছেলেমেয়ে উচ্চ শিক্ষার সুযোগ পাচ্ছে।

 

তিনি বলেন, “বিজ্ঞান গবেষণার জন্য একটি গবেষণাগার করেছি, আবাসিক সংকট নিরসনে নতুন দুটি হল, পরিবহন সমস্যার সমাধানে পরিবহন সংখ্যা বৃদ্ধিসহ মোট ১১৪ কোটি টাকার উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। এটিই কি আমার অপরাধ ? এসব যদি আমার অপরাধ হয়ে থাকে তাহলে পদত্যাগ কেন জাতি আমাকে যে শাসিত্ম দেবে তাই আমি মাথা পেতে নেব।”

 

শিক্ষক সমাজের প্রকাশিত প্রশাসনের দুনীর্তি বিষয়ক বইকে তিনি মিথ্যাচার বলে উল্লেখ করেন। তবে এ প্রসঙ্গে শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও গণিত বিভাগের অধ্যাপক ড. শরীফ উদ্দিন বলেন, “প্রশাসনিক স্বৈরাচারের কালো বইটি খোঁজ নিয়ে, ভুক্তভোগীদের সঙ্গে কথা বলে, বিভিন্ন দৈনিক পত্রিকার রির্পোট এবং সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলে করা হয়েছে। এছাড়া বইয়ে সরাসরি কয়েকটি দৈনিক পত্রিকার কাটিংও ছেপে দেয়া হয়েছে এসব কি মিথ্যা?”

 

তবে প্রশাসনের ডাকা সংবাদ সম্মেলনকে ভিসি গ্রুপের সংবাদ সম্মেলন বলে অভিযোগ করেছে শিক্ষক সমাজ।

 

এ প্রসঙ্গে শিক্ষক সমাজের আন্দোলনের অন্যতম নেতা, সরকার ও রাজনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড.শামছুল আলম বলেন, “প্রশাসন যদি সংবাদ সম্মেলনই করবে তাহলে সেটা আমাদের জানানো হল না কেন? যে সংবাদ সম্মেলন হয়েছে সেটা বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে নয়, ভিসি গ্রুপের সংবাদ সম্মেলন হয়েছে। আর আমাদের সংবাদ সম্মেলনে যাবার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। যাতে তিনি ইচ্ছামত মিথ্যাচার করতে পারেন।”

 

এদিকে আজ সকালে শিক্ষক সমাজ তাদের আন্দোলনের পূর্বঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সমনে উপাচার্য প্রত্যাখ্যান মঞ্চ তৈরি এবং প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে।

 

উপাচার্য প্রত্যাখান মঞ্চ তৈরি ও প্রতিবাদ সমাবেশে অংশ নিতে সকাল দশটা বাজতেই একযোগে শিক্ষক সমাজের ব্যানারে আন্দোলনরত শিক্ষকেরা উপাচার্য ভবনের সামনে এসে হাজির হয়। ভবনের সামনে একটি মঞ্চ তৈরি করে তা উপাচার্য মঞ্চ হিসাবে ঘোষণা এবং মঞ্চের উদ্বোধন করেন আন্দোলনের আহববায়ক অধ্যাপক ড. নাসিম আখতার হোসাইন।

 

প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা বলেন, আমরা এখনও আহবান জানাচ্ছি উপাচার্য পদত্যাগ করুন। তা না হলে অন্দোলনের মুখে আপনাকে পদত্যাগ করতে বাধ্য করা হবে, যা আপনার জন্য হবে খুবই অসম্মানজনক।

 

এদিকে শিক্ষক সমাজের আন্দোলন ও আজকের সংবাদ সম্মেলন সম্পর্কে মতামত জানতে চাইলে শিক্ষক সমাজের অন্দোলনের আহবায়ক অধ্যাপক ড. নাসিম আখতার হোসাইন বলেন, “সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে শিক্ষক শিক্ষার্থীদের বিভ্রান্ত করে লাভ হবে না। আমাদের ন্যায্য দাবির মুখে উপাচার্যকে পদত্যাগ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে আমাদের যা করা প্রয়োজন তাই করছি।”

 

উল্লেখ্য শিক্ষক সমাজ বিভিন্ন দাবিতে গত বছরের ২৯ মার্চ থেকে আন্দোলন শুরু করে। গত ১৮ মার্চ থেকে এক দাবি হিসাবে উপাচার্য ড. শরীফ এনামুল কবিরের পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলন করে আসছেন।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট