Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

ইউসুফ বৈধ : ফেঁসে যাচ্ছে আবাহনী

 মোহাম্মদ ইউসুফের ছাড়পত্র বৈধ বলেই প্রমাণিত হয়েছে। জরুরি বৈঠকে কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করে সিদ্ধান্ত নেয়া হয় যে, ভিক্টোরিয়ায় মোহাম্মদ ইউসুফের রেজিস্ট্রেশন সঠিক ছিল। ফলে ভিক্টোরিয়ার বিপক্ষে আবাহনীর পয়েন্ট হারানোর সিদ্ধান্ত বহালই থাকছে। সভায় লীগ আবার চালুর জন্য বিসিবি সভাপতি আহম মোস্তফা কামালের হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়।  বোর্ড সভাপতি মোস্তফা কামাল অনুমতি দিলে আগামী কালই চালু হবে প্রিমিয়ার লীগের খেলা। গতকাল মানবজমিনকে এমনই জানিয়েছেন, সিসিডিএম’র সদস্য সচিব ইকবাল ইউসুফ চৌধুরী নিকু। বুধবার সুপার লীগে আবাহনী ও  মোহামেডানের ম্যাচে পাকিস্তানের মোহাম্মদ ইউসুফকে নিয়ে সৃষ্টি হয় বিতর্ক। মোহামেডান ক্লাবের কর্মকর্তারা দাবি করেন, মোহাম্মদ ইউসুফ তাদের খেলোয়াড়। তাদের কাছ থেকে ছাড়পত্র না নিয়েই তিনি ভিক্টোরিয়ার হয়ে খেলছেন। এমন তথ্যের ভিত্তিতে আবাহনীও মোহাম্মদ ইউসুফের বৈধ কাগজ দেখাতে না পারলে তারা খেলবে না বলে জানিয়ে দেয়। শেষ পর্যন্ত আবাহনী ব্যাট করলেও আর ফিল্ডিং করতে নামেনি। যে কারণে ম্যাচ রেফারি আইসিসি’র ২১.২ ধারা অনুযায়ী ভিক্টোরিয়াকে জয়ী ঘোষণা করে মাঠ ত্যাগ করেন। পরে আবাহনী-মোহামেডানের দাবিতে সিসিডিএম’র সদস্য সচিব ইকবাল ইউসুফ চৌধুরী নিকু ৩১শে মার্চ সিসিডিএম’র জরুরি মিটিং না হওয়া পর্যন্ত লীগ বন্ধের ঘোষণা দেন। তবে গতকালই সিসিডিএম’র স্ট্যান্ডিং কমিটি জরুরি বৈঠকে বসে। তারা মোহাম্মদ ইউসুফের কাগজপত্র দেখে সিদ্ধান্ত নেন যে, তার রেজিস্ট্রেশন বৈধ। আর মোহামেডানের দাবি সঠিক নয়। অন্যদিকে এই ঘটনা কেন্দ্র করে আবাহনী ম্যাচে অংশ না নেয়ায় তাদের পয়েন্ট কাটা যায়। তাদের ব্যাপারে কোন সিদ্ধান্ত নেয়া হবে কিনা জানতে চাইলে তবে এই বিষয়ে নিকু জানিয়েছেন- ‘এটি আবাহনীর ব্যাপার। তারা এই বিষয়ে আমাদের কোন লিখিত আবেদন করেনি তাই তাদের নিয়ে কোন কিছু বলতে পারবো না।’ নিকু আরও জানিয়েছেন, সিসিডিএম’র সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আমরা লীগ আবার চালু করতে বিসিবি’র সভাপতির কাছে আবেদন জানিয়েছি। তিনি অনুমতি দিলেই ৩১শে মার্চ থেকে লীগ মাঠে গড়াবে।’
এদিকে লীগ বন্ধ হওয়া নিয়ে ক্লাবগুলো নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে। বারবার লীগ বন্ধ হওয়া নিয়ে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের চেয়ারম্যান মঞ্জুর কাদের বলেন, ‘বিষয়টি দুঃখজনক। তবে আমি ব্যক্তিগত কাজে ব্যস্ত থাকায় বিষয়টি পুরোপুরি জানি না। তাই ঘটনাটি নিয়ে তেমন মন্তব্যও করতে পারছি না। তবে আমরা খুব দ্রুত ক্লাবগুলোকে নিয়ে বসবো। আমাদের মধ্যে এই ভাবে লীগ পিছানো নিয়ে আলোচনার প্রয়োজন আছে। বিষয়টি ক্রিকেট ও ক্রিকেটারদের জন্য ক্ষতিকর। তাই একবাক্যে বলতে পরি, এমন ঘটনা দুঃখজনক। এভাবেই নিজের ক্ষোভ প্রকাশ করেন জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক ও ওল্ড ডিওএইচএসের কোচ খালেদ মাহমুদ সুজন। তিনি আরও বলেন এই ঘটনা বারবার ঘটুক তা আমারা কোন দিনই চাই না। যেহেতু এই বিষয়টিতে আমাদের কোন কিছু করনীয় নাই তাই পুরো বিষয়টি দেখতে হবে সিসিডিএমকেই। যদি সিসিডিএম শক্তিশালী না হয় তা হলে এই ঘটনা বারবার ঘটবে। তাই সবার আগে তাদেরকে শক্তিশালী ভূমিকা পালন করতে হবে। গাজী ট্যাকের ম্যানেজার কামরুজ্জামান হীরা বলেন, ক্লাবগুলো আর্থিক ক্ষতি, দেশের ক্রিকেটের ইমেজ সঙ্কট ও ক্রিকেটারদের মানসিকভাবে পিছিয়ে পড়া। তিনি আরও বলেন, আমারা এসব ঘটনা কোন দিনই চাই না। কারণ একটি লীগ শুরু হবে আর তা শেষ হবে সঠিক সময়ে এটাই আমাদের চাওয়া। কারণ, এই ভাবে লীগ পিছিয়ে গেলে আমাদের আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়তে হয়। এছাড়াও বিদেশী ক্রিকেটারও পড়ে বিড়ম্বনায়। তাদের হোটেলে থাকতে হয়। তাদের বিমানে ফেরার দিন ঠিক করা থাকে এতে করে তারা নানামুখী সমস্যার সম্মুখীন হয়। যে কারণে আমাদের ইমেজ সঙ্কট সৃষ্টি হবে। তবে এসব ঘটনা এড়াতে হলে আমারা মনে করি সিসিডিএমকে আরও শক্তিশালী ভূমিকা রাখতে হবে।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট


One Response to ইউসুফ বৈধ : ফেঁসে যাচ্ছে আবাহনী

  1. মরতুজ

    March 31, 2012 at 5:34 pm

    আমি ইউসুফের ভক্ত