Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

খালেদাকে স্মৃতিসৌধে যেতে বাধা দিয়েছে পুলিশ: বিএনপি

ঢাকা, ২৬ মার্চ: বিএনপি চেয়ারপারসন বিরোধী দলীয় নেতা বেগম খালেদা জিয়া সোমবার সকালে গুলশানের বাসভবন থেকে সাভার স্মৃতিসৌধের উদ্দেশে রওয়ানা করার পর পুলিশ বেশ কয়েক জায়গায় বাধা দিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

 

তিনি বলেন, “সকাল ৫টার কিছু পরে গুলশানের বাসা থেকে বের হওয়ার পথ পুলিশ অবরুদ্ধ করে রাখে।”

 

দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের মাজারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর পর সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এই অভিযোগ করেন।

 

মির্জা আলমগীর বলেন, “স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের মতো এই দিনকেও বর্তমান সরকার দলীয়করণের বাইরে রাখতে পারেনি। জাতীয় স্মৃতিসৌধে যেতে বিরোধী দলীয় নেতাকে পথে পথে বাধা দিয়েছে। সকালে তার গুলশানের বাসার চারদিকে পুলিশ ঘেরাও করে রাখে। রাস্তায় ট্রাক আড়াআড়ি করে রেখে দিয়ে নেত্রীর গাড়িবহর যেতে বাধা দেয়।”

 

শুধু তাই নয়, বিরোধীদলীয় নেতার প্রটোকলের গাড়িও কিছু সময় আটকে রাখা হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন ফখরুল।

 

তিনি বলেন, “জাতীয় স্মৃতিসৌধে যাওয়ার পথে পথে বিরোধী দলীয় নেতার গাড়িবহরকে নানাভাবে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা হয়েছে। এসব প্রতিবন্ধকতা পেরিয়ে সকাল ৬টা ৪৫ মিনিটে বিরোধী দলীয় নেতা জাতীয় স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।”

 

সরকারের এ ধরনের কর্মকাণ্ডের নিন্দা জানিয়ে মির্জা আলমগীর বলেন, “অগণতান্ত্রিক ফ্যাসিস্ট সরকার এভাবে বিরোধী দলকে দাবিয়ে রাখছে। আমরা বিরোধী দলীয় নেতাকে জাতীয় স্মৃতিসৌধে যেতে বাধা দেয়ার কঠোর নিন্দা জানাই।”

 

এক প্রশ্নের জবাবে ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বলেন, “বিএনপি সব সময় বলে আসছে, আমরা যুদ্ধাপরাধী ও মানবতা বিরোধী অপরাধের সুষ্ঠু বিচার চাই। তবে সে বিচার হতে হবে নিরপেক্ষ, স্বচ্ছ এবং রাজনৈতিক উদ্দেশ্য ছাড়া।”

 

সরকারের সমালোচনা করে মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, “দেশের মানুষের জীবন আজ দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে। জনগণের কোনো সমস্যার তারা সমাধান দিতে পারেনি। দেশের অর্থনীতি ও সামাজিক অস্থিরতা এমন পর্যায় পৌঁছেছে যে, জনগণের জান-মালের কোনো নিরাপত্তা নেই।’’

 

তিনি বলেন, “মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ছিল- গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা, অর্থনৈতিক মুক্তি ও মানুষের মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠা। বর্তমান সরকার গণতন্ত্রকে অবরুদ্ধ করে রেখেছে। দেশের অর্থনীতিকে দুর্নীতি ও লুটপাটের মাধ্যমে ধ্বংস করে দেশকে পরনির্ভরশীল করে ফেলেছে।”

 

জাতীয় স্মৃতিসৌধে খালেদার শ্রদ্ধা

পথে পথে বাধা পার হয়ে সকাল ৬টা ৪৫ মিনিটে বিরোধী দলীয় নেতা বেগম খালেদা জিয়া সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে একাত্তরে আত্মদানকারী শহীদদের স্মৃতিসৌধে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন। তিনি কিছুক্ষণ নীরবে দাঁড়িয়ে তাদের শ্রদ্ধা জানান।

 

এ সময় দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির  সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, ভাইস প্রেসিডেন্ট সাদেক হোসেন খোকা, সেলিমা রহমান, যুগ্ম মহাসচিব আমান উল্লাহ আমান, রুহুল কবির রিজভী, মহানগর সদস্য সচিব আবদুস সালামসহ সিনিয়র নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

 

জিয়ার মাজারে শ্রদ্ধা

মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিসব উপলক্ষে সোমবার সকাল সাড়ে ৭টায় বেগম খালেদা জিয়া দলের নেতা-কর্মীদের নিয়ে শেরে বাংলা নগরে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের মাজারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন। তিনি প্রয়াত নেতার আত্মার মাগফেরাত কামনা করে ফাতেহা পাঠ এবং বিশেষ মোনাজাতে অংশ নেন।

 

এ সময় দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, এম কে আনোয়ার, মির্জা আব্বাস, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকা, সেলিমা রহমান, আলতাফ হোসেন চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শাহজাহান ওমর বীর উত্তম, শামসুজ্জামান দুদু, ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেনসহ কেন্দ্রীয় ও অঙ্গসংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

 

পরে মহানগর বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল, স্বেচ্ছাসেবক দল, মহিলা দল, ওলামা দল, মৎস্যজীবী দল, জাতীয়তাবাদী সামাজিক সাংস্কৃতিক সংস্থা, ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ড্যাব), ইঞ্জিনিয়ার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (এ্যাব)সহ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা জিয়ার মাজারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

 

পরে মাজার প্রাঙ্গণে জাতীয়তাবাদী ওলামা দলের কোরআনখানি ও দোয়া মাহফিলে অংশ নেন খালেদা জিয়া। ওলামা দলের সভাপতি হাফেজ আবদুল মালেক ও সাধারণ সম্পাদক মাওলানা শাহ মো. নেসারুল হক দোয়া মোনাজাত পরিচালনা করেন।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট