Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

বিএনপির যোগদানের প্রথম দিনেই উত্তপ্ত সংসদ


ঢাকা, ১৮ মার্চ: এক বছরে টানা ৭৭ কার্যদিবস অনুপস্থিতির পর খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে হাজির হয়েই সংসদকে উত্তপ্ত করে তুলল প্রধান বিরোধী দল বিএনপি। রোববারের নির্ধারিত বৈঠক শুরুর পর বিরোধী দলের এক সদস্যের বক্তব্যকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের মধ্যে পাল্টাপাল্টি বক্তব্য শুরু হয়।

রোববার জাতীয় সংসদের বৈঠকে এ পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়। স্পিকার আব্দুল হামিদের সভাপতিত্বে সংসদের বৈঠক চলে। এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও সংসদে উপস্থিত ছিলেন।

বিএনপির রেহানা আক্তার রানুর বক্তব্যকে কেন্দ্র করে সরকার ও বিরোধী দলের দুই সদস্যদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনাও ঘটে। পরে দু দলের সদস্যদের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয়। এ সময় সংসদে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিরোধীদলীয় নেত্রী খালেদা জিয়াও উপস্থিত ছিলেন।

রোববার বিকেলে স্পিকার অ্যাডভোকেট আবদুল হামিদের সভাপতিত্বে অধিবেশন শুরুর পর রাষ্ট্রপতির বক্তব্যের ওপর ধন্যবাদ প্রস্তাব আলোচনায় স্পিকার প্রথমে ফ্লোর দেন সরকারি দলের হুইপ আ স ম ফিরোজকে।

তার বক্তব্যের পর ফ্লোর পান বিএনপির সংসদ সদস্য শহিদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি ও রেহানা আক্তার রানু। রানু তার বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রীকে ইঙ্গিত করে ‘কালনাগিনী’ ও ‘ডাইনি’ শব্দ ব্যবহার করেন।

রানু বলেন, ‘‘৯১ সালে গোলাম আজমের পা ছুঁয়ে সালাম করেছিলেন আপনাদের নেত্রী।’’

এই বক্তব্যকে কেন্দ্র করে বিএনপি দলীয় শাম্মী আক্তার ও আওয়ামী লীগের ফজিলাতুন্নেসা বাপ্পীর মধ্যে তুমুল বাগবিতণ্ড শুরু হয়। বিএনপির সৈয়দা আফিয়া আশরাফি পাপিয়াও বিতণ্ডায় যোগ দেন। এক পর্যায়ে বিষয়টি দুপক্ষেও মধ্যে হাতাহাতির পর্যায়ে পৌঁছে। এ সময় সংসদে ব্যাপক চীৎকার চেঁচামেচি শুরু হয়। চার-পাঁচ মিনিট চলে এই অবস্থা। এ সময় ‘চুপ’, ‘থাপ্পড় মারব’ এ ধরনের শব্দ শোনা যায়।

পরে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য আসলামুল হক আসলাম ও বিএনপির শহিদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি এগিয়ে গিয়ে দ ‘পক্ষকেই সংযত করলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। তবে এ সময় সরকারকে কটাক্ষ করে রানু তার বক্তব্য চালিয়ে যান।

তিনি বলেন, ‘‘আজ বাংলাদেশে তালেবানের শাসন চলছে। বর্তমান সরকার আদালতকে দিয়ে সব কিছু বৈধ করতে চায়। সাবেক প্রধান বিচারপতি এবিএম খায়রুল হক টাকা নিয়েছেন। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের রায়ের ব্যাপারে ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, টাকা নিয়ে তিনি সরকারের পক্ষে রায় দিয়েছেন।’’

তিনি বলেন, ‘‘বিদেশ থেকে ভাড়া করে সাদা চামড়ার বুড়ি-শয়তানি-বান্দুরি এনেছেন আদালতে সাক্ষী দেয়ার জন্য। নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন হলে আওয়ামী লীগের লোকজন ও আইন প্রতিমন্ত্রী কাপড় চোপড় নিয়েও পালাতে পারবে না।’’

পরে স্পিকার রানুকে উদ্দেশ্য করে বলেন, অশালীন ও অপ্রাসঙ্গিক বক্তব্যগুলো এক্সপাঞ্জ হবে।

নামাজের বিরতির পর পয়েন্ট অব অর্ডারে দাঁড়িয়ে জাসদের মাঈন উদ্দিন খান বাদল বলেন, ‘‘আদালতের বিচারপতিদের সম্পর্কে যেভাবে কথা বলছেন এটার ব্যাখ্যা কি দেবেন। যেভাবে আইনপ্রতিমন্ত্রীকে লুঙ্গি উঠিয়ে পেটানোর কথা বললেন, তার জবাব দেবেন কিভাবে? শালীনতা বজায় রেখে সবাইকে সংসদে বক্তব্য রাখার জন্য তিনি স্পিকারের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।’’

এরপরই মাঈনউদ্দিন খান বাদলকে নবাগত এমপি হিসেবে উল্লেখ করে বিরোধীদলীয় চিপ হুইপ জয়নুল আবদিন ফারুক বলেন, ‘‘সরকারের শেষ সময়ে এসে সরকারের পক্ষে বক্তব্য দিয়ে মন্ত্রী হওয়া যাবে না। তিনি আরো বলেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে কেন সৌদি সরকার ভিসা দিল না। এ জন্য লজ্জা হয়। আর কয়েক দিন পর জনগণ প্যাকেজ করে ভারতে পাঠিয়ে দেবে।’’

এরপর ফ্লোর নিয়ে চিফ হুইপ উপাধ্যক্ষ আবদুস শহিদ বলেন, ‘‘লজ্জা হয় ৯০ দিনের আগে সংসদ সদস্য পদ রক্ষা ও বেতন-ভাতার জন্য সংসদে এসেছেন।’’

এর আগে বিএনপির শহিদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি স্পিকারকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘‘দাওয়াত দিলে আগেই সংসদে আসতাম। তখন স্পিকার অ্যাডভোকেট আবদুল হামিদ বলেন, ‘দাওয়াত দিতে দিতে টায়ার্ড হয়ে গেছি।’ এরপর পাইকারি দাওয়াত না দিয়ে স্পিকারকে নিরপেক্ষ দাওয়াত দেয়ার কথা বলে টাইম ১৫ মিনিটের পরিবর্তে আরো বাড়িয়ে দেয়ার অনুরোধ জানিয়ে বক্তব্য শুরু করেন এ্যানি।

তিনি বলেন, ‘‘বিরোধী দল সরকারের পার্ট। কিন্তু সেই রকম আচরণ পাইনি। সাগর-রুনির বিষয়ে চেয়ারে বসে যদি বলি বেডরুম পাহারা দেয়ার দায়িত্ব সরকারের না। কিন্তু মানুষের জানমালের নিরাপত্তা দেয়ার দায়িত্ব সরকারের। কিন্তু তারা দায়িত্ব এড়িয়ে যাচ্ছেন। ১২ মার্চ গণতান্ত্রিক কর্মসূচি দিয়েছিলাম। এটা গণতান্ত্রিক অধিকার।’’

তিনি বলেন, ‘‘সেদিন কি কারণে লঞ্চ-ট্রেন বন্ধ করে দেয়া হলো, হোটেলে চিঠি দিয়ে সবাইকে ওঠা বন্ধ করে দেয়া হলো। বাসগুলোর মালিকদের ডেকে বাস বন্ধ করে দেয়া হলো। বিরোধীদলীয় নেত্রী তো ১৭৩ দিন হরতাল দেন নাই। উনারা সকল প্রশাসন যন্ত্র ব্যবহার করেছেন। কিন্তু ‘ঢাকা চলো’ কর্মসূচি থামিয়ে দিতে পারেন নাই। আমাদের নেত্রী চাইলে ১৩-১৪ মার্চ হরতাল দিতে পারতেন। কিন্তু দেন নাই। উনারা মহাসমাবেশকে ভয় পান, জনগণকে ভয় পান। কারণ গত তিন বছরে উনারা জনগণকে কিছুই দিতে পারেননি।’’

এ্যানি আরো বলেন, ‘‘উনাদের শরিকরাই বলেছেন, সেনাবাহিনীর সহায়তা ছাড়া ক্ষমতায় আসতে পারতাম না। উনাদের লোকই বলেছেন, মন্ত্রিসভায় ডিজিএফআই’র সদস্য রয়েছেন। আমরা মইন-ফখরুদ্দিনকে চ্যালেঞ্জ করে পার্লামেন্ট এসেছি। আইএসআই’র সাবেক প্রধান দুররানী আদালতে যে হলফনামা দিয়েছেন, সেখানে বাংলাদেশ বা বিএনপির নাম উল্লে­খ নেই। আজ পর্যন্ত পাকিস্তানের কোনো পত্রিকায় এ ধরনের কোনো তথ্য প্রকাশ হয় নাই।’’

তিনি বলেন, ‘‘আমাদের নেতা মওদুদ সাহেব বই লিখেছিলেন। সেখানে উল্লে­খ আছে লংড্রাইভের কাহিনী ও কত টাকা কে নিয়েছেন। পাঁচ কোটি রুপি কি অনেক টাকা যে এটা পাকিস্তান থেকে বিএনপির নিতে হবে। আওয়ামী লীগ ৯৬ সালে বিদেশ থেকে টাকা এনেছিল। এ নিয়ে একটি তদন্ত কমটি গঠন করতে হবে।’’

আওয়ামী লীগের আসম ফিরোজ বলেন, ‘‘২০০৮ সালের নির্বাচনের মতো এত ভালো নির্বাচন আর কখনো হয়নি। অনেক নির্বাচন নিয়ে কথা উঠেছে। কিন্তু ২০০৮ সালের নির্বাচন নিয়ে কথা হয়নি। ২০০১ সালের নির্বাচনের পর যেভাবে দেশে অত্যাচার-নির্যাতন-লুণ্ঠন হয়েছে, এর প্রতিবাদ জানিয়েই দেশের মানুষ আওয়ামী লীগকে ভোট দিয়েছে।’’

তিনি বলেন, ‘‘বিএনপি একটি রাজনৈতিক দল। অথচ জামায়াত ও মৌলবাদীরা বিএনপিকে ধরেছে। আর বিএনপি অতীতের সব কিছু ভুলে গেছে। যুদ্ধাপরাধীদের সঙ্গে তারা ঐক্য করেছে।’’

তিনি বলেন, ‘‘আজ একটি কুচক্রী মহল বারবার তত্ত্বাবধায়ক সরকারের কথা বলছে। এ ব্যাপারে সরকার-বিরোধ দল সবাইকেই ঐক্যবদ্ধ হওয়া উচিত।’’

অন্যদিকে বিকেলে জাতীয় সংসদ ভবনের বিরোধীদলীয় নেতার কার্যালয়ে বিএনপির সংসদীয় দলের সভায় সংসদ অধিবেশনে যোগদানের সিদ্ধান্ত হয়।

সভায় বিএনপি ছাড়াও জামাতের সংসদ সদস্য শামসুল ইসলাম ও হামিদুর রহমান আযাদ, বিজেপির আন্দালিব রহমান পার্থ, এলডিপির কর্নেল অব. অলি আহমেদ উপস্থিত ছিলেন। বৈঠক শেষে খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে বিরোধী জোট সংসদে যোগ দেন। তবে নামাজের বিরতির পর বিএনপি সংসদে ফিরলেও খালেদা জিয়া আর যোগ দেননি।

উল্লে­খ্য, সংসদে বিএনপির অনুপস্থিতি ৭৭ দিন হলেও খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতি ছিল ৮৩ কার্যদিবস।

বার্তা২৪/ওয়াইই/এসএফ

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট