Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

মেঘনা ট্রাজেডি: লাশের সংখ্যা বেড়ে ১৪২, মামলা


মুন্সীগঞ্জ, ১৬ মার্চ: মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় মেঘনা নদীতে লঞ্চডুবির তিন দিন পরও মেঘনা নদীতে ভেসে উঠছে লাশ। শুক্রবার সকালে আরো তিনটি লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এ নিয়ে উদ্ধারকৃত লাশের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৪২ জনে।

এদিকে লঞ্চডুবির ঘটনায় সাতজনকে আসামি করে একটি মামলা হয়েছে। গজারিয়া থানায় মামলাটি করেছেন ওই থানার উপপরিদর্শক (এসআই) হায়দার আলী। এমভি শরীয়তপুর-১ লঞ্চের মালিক, মাস্টার, সারেং, সুকানি এবং ‘অজ্ঞাতনামা’ মালবাহী জাহাজের মাস্টার, সারেং ও সুকানিকে আসামি করা হয়েছে এ মামলায়।

শরীয়তপুরের নড়িয়া থেকে আড়াই শতাধিক যাত্রী নিয়ে ঢাকা যাওয়ার পথে সোমবার রাত আড়াইটার দিকে মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ার কাছে দুর্ঘটনায় পড়ে এমভি শরিয়তপুর-১ নামের দ্বিতল লঞ্চটি। উদ্ধার পাওয়া যাত্রীরা বলেছেন, একটি কার্গো জাহাজের সঙ্গে ধাক্কা লাগলে তাৎক্ষণিকভাবে লঞ্চটি ডুবে যায়।

সেদিন রাতেই আরেকটি লঞ্চের সহায়তায় ২৫-৩০ জনকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়।

দুর্ঘটনার পর মঙ্গলবার সকাল থেকে উদ্ধার অভিযান শুরু করে নৌ বাহিনী, কোস্ট গার্ড, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স এবং অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহণ কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) কর্মীরা প্রথম দিন মোট ৩৬টি লাশ উদ্ধার করেন।

উদ্ধারকারী জাহাজ ও হামজা ও রুস্তম ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর পর মেঘনার মূল চ্যানেলের চরকিশোরী এলাকায় প্রায় ৭০ ফুট পানির নিচ থেকে লঞ্চটি টেনে তোলার কাজ শুরু হয় বুধবার ভোররাতে। সারাদিন চেষ্টার পর দুপুরের দিকে লঞ্চটি টেনে তীরের কাছে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়।

বুধবার দিনভর অভিযান চালিয়ে লঞ্চ ও আশেপাশের নদী থেকে আরো ৭৬টি মৃতদেহ উদ্ধার করেন ডুবুরি ও বিআইডব্লিউটিএ কর্মীরা। রাতে উদ্ধার অভিযান বন্ধ রাখা হলেও বৃহস্পতিবার সকাল থেকে দুর্ঘটনাকবলিত লঞ্চটির পাশে ২৭টি লাশ নদীতে ভেসে ওঠে।

বার্তা২৪/জবা

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট


One Response to মেঘনা ট্রাজেডি: লাশের সংখ্যা বেড়ে ১৪২, মামলা

  1. suman kanti lodh

    March 17, 2012 at 9:37 am

    khub boro tragade.