Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

রাজশাহীতে নারী কনস্টেবলের শ্লীলতাহানি এসআই সাসপেন্ড

বৃহস্পতিবার, ১৫ মার্চ ২০১২ স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী থেকে: রাজশাহী জেলা গোয়েন্দা পুলিশ অফিসে এক নারী কনস্টেবলের শ্লীলতাহানির দায়ে উপ-পরিদর্শক শফিকুর রহমানকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে । নারী কনস্টেবলের অভিযোগের প্রেক্ষিতে ঘটনা তদন্ত করছেন রাজশাহী রেঞ্জ পুলিশের অতিরিক্ত ডিআইজি নিবাস চন্দ্র মাঝি।
সূত্র জানায়, দীর্ঘদিন ধরে উপ-পরিদর্শক শফিকুর রহমান ওই নারী কনস্টেবলকে নানাভাবে উত্ত্যক্ত করে আসছিল। যখন তখন তার গায়ে পড়ে কথা বলার চেষ্টা করতো সে। গত সোমবার দুপুরে গোয়েন্দা অফিসে মামলার সিডি (কেস ডকেট) লেখার কথা বলে নারী কনস্টেবলকে অপেক্ষা করতে বলে শফি। এসময় ডিবি’র অন্য সদস্যরা খাবারের জন্য অফিস ত্যাগ করে চলে যান। ফাঁকা অফিস পেয়ে শফিকুর রহমান ওই নারী কনস্টেবলের গায়ে হাত দেয়। এক পর্যায়ে অফিসের ভেতরেই তাকে জড়িয়ে ধরে। তবে ওই সময় ডিবি পুলিশের একজন পুরুষ কনস্টেবল অফিসে এসে পড়ায় শফিকও তাকে ছেড়ে দেয়। এ ঘটনা কারও কাছে প্রকাশ না করার জন্য হুমকি দেয়। যৌন হয়রানির শিকার ওই নারী কনস্টেবল অভিযোগ দিতে প্রথমে যান রিজার্ভ পরিদর্শকের কাছে। তিনি পুলিশ সুপারকে অভিযোগ দেয়ার পরামর্শ দেন। তবে শফিকুর রহমানের বিরুদ্ধে পুলিশ সুপারের কাছে অভিযোগ করে সুবিচার পাওয়ার বিষয়ে সন্দিহান ছিলেন ওই নারী কনস্টেবল। শেষ পর্যন্ত তিনি  সোমবার বিকালে যান রাজশাহীর রেঞ্জ ডিআইজির কাছে। ঘটনা খুলে বলে তিনি বিচার প্রার্থনা করেন। বিষয়টি শোনার পর ডিআইজি তাৎক্ষণিকভাবে অতিরিক্ত ডিআইজি নিবাস চন্দ্র মাঝির কাছে তাকে পাঠিয়ে দ্রুত তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেন। সূত্র জানায়, এস আই শফি ছাড়াও আরও কয়েকজন পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে নারী পুলিশ সদস্যদের হয়রানির অভিযোগ তুলে ধরেন ওই নারী কনস্টেবল। অতিরিক্ত ডিআইজি তার জবানবন্দি রেকর্ড করেন। পরে রাজশাহীর পুলিশ সুপারকে উপ-পরিদর্শক শফিকুর রহমানকে সাময়িক বরখাস্তের নির্দেশ দেন। পুলিশ সুপার সোমবার সন্ধ্যায় সে আদেশ জারি করেন। তবে এ ঘটনা জানাজানির পর শফিকুর রহমান অসুস্থ বলে রাজশাহী পুলিশ হাসপাতালে ভর্তি হন, রাতেই উন্নত চিকিৎসার কথা বলে ঢাকায় চলে যান। এদিকে অভিযোগকারী নারী কনস্টেবলকে জেলা গোয়েন্দা শাখা থেকে পুলিশ লাইনে বদলি করা হয়েছে। এছাড়া, নারী পুলিশ সদস্যদের যৌন হয়রানিসহ নানা অনৈতিক কর্মকাণ্ডের অভিযোগে রাজশাহী পুলিশ সুপারের দেহরক্ষী শামীম হোসেন, আর্দালি ইকবাল হোসেন, মেস ম্যানেজার নাসির উদ্দিন ও কম্পিউটার অপারেটর কাম টাইপিস্ট নুুরুল ইসলামকে ঢাকা মহানগর পুলিশে বদলির আদেশ দেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট