Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

‘সম্মিলিত গণতান্ত্রিক জোট’র ঘোষণাপত্রে স্বাক্ষর আজ

ঢাকা, ১১ মার্চ: সোমবার ঢাকায় বিএনপি নেতৃত্বাধীন চারদলীয় ও সমমনা দলগুলোর আয়োজনে মহাসমাবেশ থেকে সরকারবিরোধী নতুন কর্মসূচি ছাড়াও একটি ঐতিহাসিক ঘোষণা দেবেন জোট নেত্রী খালেদা জিয়া। দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি দলের সমন্বয়ে নতুন একটি জোটের ঘোষণা দেবেন তিনি। এই জোটের নাম হবে ‘সম্মিলিত গণতান্ত্রিক জোট’। এতে দল থাকবে ১৬টি।

সোমবার যে জোটের ঘোষণা দেয়া হবে সেই জোটের পাঁচ পাতার ঘোষণাপত্রে ১৬টি দলের সভাপতিরা স্বাক্ষর করবেন রোববার রাতে। রাত আটটায় গুলশান কার্যালয়ে খালেদা জিয়ার সভাপতিত্বে সভায় এই স্বাক্ষর করা হবে।

গত বুধবার রাতে গুলশানের কার্যালয়ে চারদলীয় জোট ও সমমনা ১০টি দলের নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে এই জোটের ঘোষণাপত্রের খসড়া চূড়ান্ত করা হয়। বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব পাঁচ পাতার ঘোষণাপত্রটি জোটের নেতাদের পাঠ করে শোনান।

ওই দিন বৈঠক শেষে বিজেপি’র চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আন্দালিব রহমান পার্থ সাংবাদিকদের বলেন, “জোট সম্প্রসারণের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে। ১২ মার্চের মহাসমাবেশ থেকে জোট নেত্রী খালেদা জিয়া নতুন জোটের ঘোষণা দেবেন।”

একাধিক সূত্র জানায়, রোববার রাতে গুলশান কার্যালয়ে বিএনপিসহ ১৬ দলের সভাপতিদের বৈঠক হবে। তারা সবাই নতুন জোটের ঘোষণাপত্রে সবাই স্বাক্ষর করবেন।

সূত্র জানায়, রোববার দুপুর নাগাদ সরকারের সিদ্ধান্ত দেখবেন জোট নেতারা। সরকার যদি মহাসমাবেশ করার লিখিত অনুমতি দেয় তাহলে শান্তিপূর্ণভাবে তারা সমাবেশ করবেন। যদি অনুমতি দেয়া না হয় তাহলে কর্মসূচি কী হবে সে সিদ্ধান্ত রাতের বৈঠকে নেয়া হবে।

আর শান্তিপূর্ণ মহাসমাবেশ করতে দিলে সেক্ষেত্রে নতুন কর্মসূচি কী হবে তাও চূড়ান্ত করা হবে রোববার রাতে। অবশ্য এসব বিষয়ে সিদ্ধান্ত আগেই নিয়ে রাখা হয়েছে বলে এক নেতা জানান।

বিএনপি ও জোটের শরীকদের কয়েক নেতার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, তত্ত্বাবধায়ক সরকার পুনঃপ্রতিষ্ঠার জন্য সরকারকে একটি আল্টিমেটাম দেয়া হবে সমাবেশ থেকে। সংসদে সংবিধান সংশোধনের মাধ্যমে তত্ত্বাবধায়ক সরকার পুনঃপ্রতিষ্ঠার জন্য দুই অথবা তিন মাস সময় দেয়া হবে। এর মধ্যে সরকার যদি কিছু না করে তাহলে সরকার পতনের একদফা ডাক দেয়া হবে বলে হুশিয়ারি দেবেন খালেদা জিয়া।

এদিকে রোববার রাতে ঘোষণাপত্রে যেসব দলের নেতারা স্বাক্ষর করবেন সেগুলো হলো, বিএনপি, জামায়াতে ইসলামী, ইসলামী ঐক্যজোট, বিজেপি, খেলাফত মজলিস, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম, এলডিপি, কল্যাণ পার্টি, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি-জাগপা, ন্যাশনাল পিপলস পার্টি-এনপিপি, ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এনডিপি, বাংলাদেশ লেবার পার্টি, বাংলাদেশ ন্যাপ, ন্যাপ ভাসানী, ইসলামিক পার্টি ও মুসলিম লীগ (কামরুজ্জামান)।

বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সদস্য প্রবীণ রাজনীতিবিদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক ও সাবেক মন্ত্রী ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বার্তা২৪ ডটনেটকে বলেন, “আমার দীর্ঘ রাজনীনৈতিক জীবনে ১৬ দলের কোনো জোট হয়েছিল বলে জানা নেই। আমি মনে করি দেশের ইতিহাসে এটাই সবচেয়ে বড় রাজনৈতিক জোট।”

তিনি বলেন, “এরশাদবিরোধী আন্দোলনের সময় একবার ১৫ দলীয় একটা জোট হয়েছিল। তবে সে জোট বেশি দিন স্থায়ী হয়নি। পরে ১৫ দলের জোট ভেঙে একটি সাত দল আর একটি আট দল হয়ে গিয়েছিল।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট