Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

পরিচয়পত্র ছাড়া অবস্থান নিষিদ্ধ, রাজধানীতে সন্দেহ হলেই গ্রেপ্তার

নূরুজ্জামান: সন্দেহ হলেই গ্রেপ্তার। পাঠানো হবে কারাগারে। পরিচয়পত্র ছাড়া থাকা যাবে না রাজধানীতে। বিরোধী দলের ডাকা আগামীকালের ‘ঢাকা চলো কর্মসূচি’ উপলক্ষে পুলিশের বিশেষ বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়েছে। গতকাল রাজধানীর রাজারবাগ পুলিশ টেলিকম অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত বৈঠকে ডিএমপি কমিশনার বেনজীর আহমেদ নগরীর সকল ওসিকে এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের নির্দেশ দিয়েছেন। বৈঠকে উপস্থিত পুলিশ ও গোয়েন্দা কর্মকর্তারা জানান, রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশের পথে পথে নজিরবিহীন নিরাপত্তা বলয় গড়ে তোলা হয়েছে। পাশাপাশি ঢাকার প্রবেশপথগুলোতে বসানো হয়েছে রেকর্ড সংখ্যক চেকপোস্ট। এ প্রসঙ্গে মহানগর পুলিশ কমিশনারের মুখপাত্র ও ডিবি পুলিশের ডিসি (দক্ষিণ) মো. মনিরুল ইসলাম বলেন, ১২ ও ১৪ই মার্চের সম্ভাব্য রাজনৈতিক কর্মসূচি এবং এশিয়া কাপ ক্রিকেট উপলক্ষে নিরাপত্তামূলক বেশ কিছু পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। বৈঠকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়েছে প্রায় ২ কোটি নগরবাসীর নিরাপত্তায়। এবারের নিরাপত্তা ব্যবস্থায় থাকবে বিশেষ চমক। নিরাপত্তার জন্য যা যা দরকার সবই করা হবে। উত্তরা থানার ওসি খন্দকার রেজাউল হাসান বলেন, পুলিশ কমিশনারের বৈঠকে রাস্তায়, ফুটপাতে ও যানবাহনে চলাচলকারী লোকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। কোন আগন্তুক আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বিভিন্ন প্রশ্নের সঠিক জবাব দিতে না পারলে তাকে আটক করা হবে। প্রয়োজনে কারাগারে পাঠানো হবে। কদমতলী থানার ওসি মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, পুলিশের নিজস্ব কিছু কৌশল অবলম্বন করে সন্দেহজনক ব্যক্তিদের বাছাই করে আইনের আওতায় আনা হচ্ছে। গোয়েন্দা সূত্র জানায়, রাজধানীর পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন জেলার প্রধান সড়কগুলোতে ছদ্মবেশী গোয়েন্দাদের মোতায়েন করা হয়েছে। তারা সন্দেহজনক যানবাহনের নম্বর আগেই জানিয়ে দিচ্ছে। সেই মোতাবেক রাজধানীর প্রবেশপথগুলোর যানবাহনে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। ডিএমপি অ্যাক্টে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে। এছাড়া, সারাদেশের জনমনে গ্রেপ্তার আতঙ্ক ছড়িয়ে দেয়া হচ্ছে। এতে সাধারণ লোকজন কর্মসূচিতে যোগদানে নিরুৎসাহিত হবে। যাত্রাবাড়ী থানার ওসি একেএম আবুল কাশেম বলেন, ১২ই মার্চ উপলক্ষে গত দু’দিন ধরে বাইরে থেকে ঢাকাগামী সকল যানবাহন ও যাত্রীদের জিজ্ঞাসাবাদ করছি। ইতিমধ্যে সন্দেহজনক অনেক ব্যক্তিকে আটক করেছি। কর্মসূচির সুযোগ নিয়ে সন্ত্রাসীরা আগ্নেয়াস্ত্র ও বিস্ফোরক দ্রব্য বহন করতে পারে এমন সম্ভাবনা থেকেই পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত এ অভিযান পরিচালনা করা হবে। তিনি আরও বলেন, রাজধানীতে প্রবেশকারী কোন অপরিচিত ব্যক্তির সঠিক পরিচয় নিশ্চিত হওয়ার জন্য সব কৌশলই অনুসরণ করা হবে। ডিবি পুলিশের ডিসি (দক্ষিণ) মনিরুল ইসলাম আরও বলেন, এশিয়া কাপ ক্রিকেট উপলক্ষে ভারত ও পাকিস্তানের মতো জনপ্রিয় দু’টি দল দেশে আসছে। তাদের নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় পক্ষে-বিপক্ষে আনন্দ, উচ্ছ্বাস ও উন্মাদনার সৃষ্টি হতে পারে। এ সুযোগে নানা দুর্ঘটনাও ঘটতে পারে। এদিক চিন্তা করে নিরাপত্তা ব্যবস্থা সাজানো হয়েছে। তিনি আরও বলেন, ১২ই মার্চের আনুষ্ঠানিক অনুমতি দেয়া হয়নি। তা সত্ত্বেও এ কর্মসূচিতে অংশগ্রহণকারী ও নগরবাসীর নিরাপত্তায় বেশ কিছু পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। কারণ এর আগে কয়েকটি রাজনৈতিক কর্মসূচিতে নাশকতামূলক হামলার ঘটনা ঘটেছে। গণগ্রেপ্তার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এটি আমার কাছে অপরিচিত শব্দ। তবে রাজধানীর ৪১টি থানার নিয়মিত মামলার আসামিদের গ্রেপ্তার করা হচ্ছে। প্রতিদিন গড়ে এ সংখ্যা দাঁড়ায় ২০০ থেকে ২৫০। এরা মূলত চাঁদাবাজ, অস্ত্রবাজ ও মাদক মামলার আসামি। মনিরুল ইসলাম আরও বলেন, রাজধানীর হোটেল, মোটেল ও মেসে বিভিন্ন অপরাধীরা আত্মগোপন করে থাকে। এ জন্য বৃটিশ আমল থেকেই ‘সরাই অ্যাক্টে’ মেস, হোটেল ও মোটেল পরিদর্শনের নিয়ম রয়েছে। বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে ওই নিয়মকেই কার্যকর করতে জোর দেয়া হয়েছে। এ কারণে বিভিন্ন হোটেল ও মেস কর্তৃপক্ষকে পরিচয়পত্র ছাড়া কাউকে আশ্রয় দিতে বারণ করা হয়েছে। গোয়েন্দারা জানান, নিরাপত্তা ব্যবস্থার বিশেষ চমক হিসেবে ১৭টি এপিসি (আর্মড পারসোনেল ক্যারিয়ার) মোতায়েন থাকবে। এর আগে এত বেশি এধরনের বিশেষ যান কোন রাজনৈতিক কর্মসূচি উপলক্ষে রাস্তায় নামানো হয়নি। এছাড়া উঁচু ভবনগুলোতে পাহারা চৌকি বসানো হবে। প্রস্তুত রাখা হচ্ছে জলকামান, প্রিজন ভ্যান ও এম্বুলেন্স। প্রয়োজনে বোম্ব ডিজপোজাল ইউনিট ও ডগ স্কোয়াড ব্যবহার করা হবে। যানজট নিয়ন্ত্রণের জন্য নেয়া হচ্ছে বিশেষ ব্যবস্থা। গোয়েন্দা নজরদারিতে আছে দেশের তৃণমূল পর্যায় থেকে রাজধানী ঢাকা পর্যন্ত বিরোধী দলের জনস্রোত। বিএনপি ও জামায়াতসহ তাদের অঙ্গ সংগঠনের বিভিন্ন ইউনিটভিত্তিক মিছিলের ফাঁকে ফাঁকে নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করবে গোয়েন্দারা। বাসে বাসে থাকবে পুলিশের ছদ্মবেশী ইউনিট। এছাড়া দলীয় সমর্থক, বাসের হেলপার ও হকার বেশে দায়িত্ব পালন শুরু করেছে গোয়েন্দারা।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট


7 Responses to পরিচয়পত্র ছাড়া অবস্থান নিষিদ্ধ, রাজধানীতে সন্দেহ হলেই গ্রেপ্তার

  1. sikiş izle

    March 13, 2012 at 6:28 am

    Fantastic post admin thank you. I located what i was trying to find right here. I’ll review whole of posts in this evening

  2. ucuz notebook

    March 14, 2012 at 4:27 am

    Wonderful publish admin thank you. I observed what i was searching for right here. I’ll review total of posts with this working day

  3. escort ilanlari

    March 14, 2012 at 5:09 am

    Nice 1 web site proprietor results website publish fantastic sharings in such a weblog generally have pleasurable

  4. sikvar

    March 14, 2012 at 6:08 am

    hey admin thanks for wonderful and effortless understandable publish i cherished your blog site web page actually very much bookmarked also

  5. su arıtma cihazı

    March 14, 2012 at 11:26 am

    i bookmarked you in my browser admin thank you a lot i might be looking for your next posts

  6. smackdown oyunları

    March 14, 2012 at 2:54 pm

    hey admin thanks for excellent and straightforward understandable publish i beloved your website internet site truly very much bookmarked also

  7. samsung 1080p hdtv

    March 14, 2012 at 11:38 pm

    You have put great unique views in this content. I agree with many of your primary points. This information is clearly written for readers that enjoy very challenging content. This is perfect for us thinkers. http://www.samsung1080phdtv.net/