Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

হাউস বিল্ডিং ফাইন্যান্স করপোরেশনের ঋণ সীমা বাড়ছে

ঢাকা, ৬ ফেব্রুয়ারি: দেশে গৃহনির্মাণ ব্যয় বেড়ে যাওয়ায় ঢাকা ও চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন এলাকায় বাংলাদেশ হাউজ বিল্ডিং ফাইন্যান্স করপোরেশনের (বিএইচবিএফসি) ঋণের সীমা বাড়ছে। ঋণের সীমা সর্বোচ্চ ৫০ লাখ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৬০ লাখ টাকা করা হচ্ছে।

সম্প্রতি বিএইচবিএফসির পরিচালনা পর্ষদের বৈঠকে ঋণের সিলিং ৫০ লাখ থেকে বাড়িয়ে ৬০ লাখ টাকায় উন্নীত করার সিদ্ধান্ত হয়। পরে এ সিদ্ধান্তটি অনুমোদনের জন্য প্রস্তাব আকারে অর্থ মন্ত্রণালয়ের ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগে পাঠানো হয়েছে।

শিগগিরই এ প্রস্তাবটি অনুমোদন হবে জানিয়ে বিএইচবিএফসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মো. নুরুল আলম তালুকদার বলেন, “বর্তমানে ইমারত নির্মাণ সামগ্রীর দাম বেড়ে যাওয়ায় ভবন নির্মাণ ব্যয় বেড়ে গেছে। এ অবস্থায় বর্তমান ঋণ দিয়ে কাঙ্ক্ষিত পর্যায়ের ভবন নির্মাণ ঋণ গ্রহীতাদের জন্য কষ্টসাধ্য হচ্ছে। এ প্রেক্ষাপটে ঋণের সীমা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সিদ্ধান্তটি কার্যকর করতে তা এখন অর্থ মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে।”

তিনি জানান, ঋণের সিলিং বাড়ানোর বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক ইতিমধ্যে ইতিবাচক সাড়া দিয়েছে।

নুরুল আলম বলেন, “সাধারণ ঋণের সীমা এবং ফ্ল্যাট ঋণের বিদ্যমান সিলিং বাড়ানো হলে করপোরেশনের তহবিলের চাহিদা আরো বাড়াতে হবে। এজন্য আমরা কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কাছে ২০০ কোটি টাকা চেয়েছি।”

ঢাকা ও চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন এলাকাসহ সারাদেশে বাড়ি ভাড়ার চাহিদা ও ভাড়া উভয়ই বেড়েছে। এ প্রেক্ষাপটে সংস্থার সাধারণ ঋণের সিলিং বাড়ানোর পরে ঋণ পরিশোধের ক্ষেত্রে দুই মেট্রোপলিটন এলাকাসহ সারাদেশে সম্ভাব্য ঋণ গ্রাহকদের যেন কোনো সমস্যা না হয় তা ভাবা হচ্ছে।

তিনি বলেন, “ঋণের সীমা বাড়ানোর পরেও নির্ধারিত মাসিক কিস্তির পরিমাণ সহনীয় পর্যায়ে রাখা হবে।”

গৃহনির্মাণ সামগ্রীর দাম বেড়ে যাওয়ার কারণে বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর সংস্থাটি ২০১০ সালের ১৬ জুন গৃহনির্মাণ ঋণের সিলিং ৪০ লাখ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৫০ লাখ টাকায় উন্নীত করে।

১৯৭৩ সালের রাষ্ট্রপতির আদেশ অনুযায়ী করপোরেশনের ঋণের সিলিং নির্ধারণের ক্ষমতা সরকারের ওপর ন্যস্ত করা হয়। সেই অনুযায়ী করপোরেশনের পরিচালনা পর্ষদের সিদ্ধান্ত কার্যকর করতে অর্থ মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন লাগে।

বিএইচবিএফসি এ পর্যন্ত প্রায় চার হাজার দুইশ’ কোটি ২৪ লাখ টাকার ঋণ বিতরণ করেছে, যা দিয়ে দেশে এক লাখ ৭০ হাজার গৃহনির্মাণ করা হয়েছে।

চলতি অর্থ বছরের প্রথম ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর) সংস্থাটি মোট ১৬৯ কোটি ছয় লাখ টাকার ঋণ বিতরণ করেছে। গত অর্থবছরে একই সময়ে এর পরিমাণ ছিল ১১৯ কোটি ৬৮ লাখ। এক্ষেত্রে প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৪১ দশমিক ২৬ শতাংশ।

চলতি অর্থবছর সংস্থাটির ঋণ বিতরণের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ২৬০ কোটি টাকা।

বার্তা২৪/জবা

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট