Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

চীন গভীর সমুদ্রবন্দর নির্মাণে সহায়তা দিতে আগ্রহী

ঢাকা, ৫ মার্চ: চীন সমুদ্র পরিবহনে সক্ষমতা বাড়াতে চট্টগ্রাম জেলার সোনাদিয়ায় গভীর সমুদ্রবন্দর নির্মাণে বাংলাদেশকে আর্থিক ও কারিগরি সহায়তা দিতে আগ্রহী।

বাংলাদেশে চীনের নবনিযুক্ত রাষ্ট্রদূত লি জুন সোমবার বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমানের কাছে তার পরিচয়পত্র পেশকালে বলেন, “আমাদের বিশেষজ্ঞ দল ইতোমধ্যে এই বন্দর নির্মাণের লক্ষে জরিপ চালিয়েছে। আমরা এখন আমাদের সহযোগিতার ব্যাপারে বাংলাদেশ সরকারের আনুষ্ঠানিক প্রস্তাবের অপেক্ষায় রয়েছি।”

নতুন রাষ্ট্রদূত রাষ্ট্রপতিকে আরো অবহিত করেন যে, চীন বাংলাদেশ সরকারকে এদেশে থ্রি-জি (তৃতীয় প্রজন্ম) স্থাপন ও দুই দশমিক পাঁচ-জি টেলিফোন প্রযুক্তির বিষয়ে সহায়তা করবে।

বঙ্গভবনে চীনা রাষ্ট্রদূতকে স্বাগত জানিয়ে জিল্লুর রহমান বলেন, “বাংলাদেশ ও চীনের মধ্যে হাজার বছরের বন্ধন রয়েছে এবং উভয় দেশের সংস্কৃতি, ঐতিহ্য ও মূল্যবোধ অভিন্ন।”

রাষ্ট্রপতি ঢাকা থেকে মায়ানমার হয়ে চীনের কুংমিন পর্যন্ত সরাসরি সড়ক স্থাপনের ওপর গুরুত্ব আরোপ করে বলেন, “দু’দেশের মধ্যে ব্যবসা ও বাণিজ্য সম্পর্ক বাড়াতে চীন পর্যন্ত সরাসরি সড়ক সংযোগ খুবই গুরুত্বপূর্ণ।”

জিল্লুর রহমান এদেশের উন্নয়নে অব্যাহতভাবে সহায়তা করার জন্য চীনা সরকারকে ধন্যবাদ জানান এবং আশা প্রকাশ করেন যে চীন বাংলাদেশকে সহযোগিতার ক্ষেত্র সম্প্রসারণ করবে।

চীনা রাষ্ট্রদূত প্রেসিডেন্টকে অবহিত করেন যে, কুংমিন থেকে মায়ানমার পর্যন্ত সড়ক নির্মাণের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। বাংলাদেশ-মায়ানমার সড়ক নির্মাণ যত দ্রুত শেষ হবে বাংলাদেশ ও চীনের মধ্যে সরাসরি সড়ক সংযোগ তত দ্রুত স্থাপিত হবে।

রাষ্ট্রদূত আরো বলেন, “ফেঞ্জুগঞ্জে চীনের সহযোগিতায় নির্মিত শাহজালাল সার কারখানা আগামী এক মাসের মধ্যে চালু হবে।”

লি জুন বলেন, “চীন এ পর্যন্ত বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে ছয়টি চীন-বাংলাদেশ মৈত্রী সেতু নির্মাণ করেছে এবং মাদারীপুর জেলায় কাজীরহাটে ৭ম মৈত্রী সেতুর নির্মাণ কাজ চলছে। তাছাড়া ৮ম চীন-বাংলাদেশ মৈত্রী সেতু নির্মাণের প্রক্রিয়াও ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে।”

রাষ্ট্রদূত বলেন, “তার সরকার বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে সাহায্য-সহযোগিতা বাড়াতে আগ্রহী।”

রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট সচিবগণ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে চীনের নবনিযুক্ত রাষ্ট্রদূত বঙ্গভবনে পৌঁছালে পিজিআর-এর একটি চৌকস দল তাকে অভিবাদন জানায়। সূত্র: বাসস।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট


2 Responses to চীন গভীর সমুদ্রবন্দর নির্মাণে সহায়তা দিতে আগ্রহী

  1. sikiş izle

    March 13, 2012 at 8:22 am

    hey admin thanks for excellent and simple understandable put up i adored your web site site definitely much bookmarked also

  2. smackdown oyunları

    March 14, 2012 at 3:05 pm

    Hello admin very good submit considerably thanks loved this blog seriously significantly