Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

৭ ও ১৪ই মার্চের কর্মসূচি- কয়েক লাখ লোক সমাগম করতে চায় আওয়ামী লীগ

লুৎফর রহমান: সামনের দলীয় কর্মসূচিতে সর্বোচ্চ লোক সমাগমের চেষ্টা করবে আওয়ামী লীগ। এজন্য দলীয়ভাবে ব্যাপক প্রস্ততিও নেয়া হয়েছে। এর মধ্যে ৭ই মার্চ আওয়ামী লীগের গণশোভাযাত্রা এবং ১৪ই মার্চের মহাসমাবেশকে ঘিরে সর্বোচ্চ শক্তি নিয়োগ করেছেন ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ ও আশপাশের জেলার নেতারা। একই সঙ্গে ঢাকা ও পার্শ্ববর্তী জেলাগুলোর দলীয় সংসদ সদস্যদের দলের পক্ষ থেকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। দলীয় কর্মসূচিতে রাজপথে শক্তি প্রদর্শনের সঙ্গে বিরোধী দলের কর্মসূচিকে ঘিরে যাতে কোন ধরনের অঘটন না ঘটে সেদিকেও নজর রাখতে দলের নেতা-কর্মীদের বলা হয়েছে। এদিকে রাজনৈতিক কর্মসূচিতে ব্যাপক লোক সমাগমের মাধ্যমে দল এবং সরকারের জনপ্রিয়তা কমেনি এমন বার্তাও দিতে চায় ক্ষমতাসীন দল। বিষয়টি মাথায় রেখেই সামনের প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে। এদিকে সরকারের শেষ সময়ে এসে রাজপথের কর্মসূচির প্রতিও গুরুত্ব দিচ্ছে দলটি। এতদিন জেলা সফর ও জেলা পর্যায়ে দলীয় সমাবেশে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা বক্তব্য রাখলেও এবারই তিনি প্রথমবারের মতো ঢাকায় উন্মুক্ত সভা-সমাবেশে উপস্থিত থাকবেন। ৭ই মার্চ দলের গণশোভাযাত্রার উদ্বোধন করবেন তিনি। উদ্বোধনের সময় উপস্থিত নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে ভাষণও দেবেন প্রধানমন্ত্রী। এছাড়া বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে ১৪ই মার্চের সমাবেশেও প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখবেন শেখ হাসিনা। এর আগে ২১শে আগস্ট গ্রেনেড হামলার বার্ষিকীর দিনে প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে গিয়েছিলেন।
দলীয় সূত্র জানায়, ৭ই মার্চ ও ১৪ই মার্চের কর্মসূচি সফল করতে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ ও ১৪ দল যার যার অবস্থান থেকে প্রস্তুতি নিচ্ছে। পাশাপাশি যৌথ প্রস্তুতির অংশ হিসেবে একসঙ্গেও বৈঠক করা হচ্ছে। ৭ই মার্চের শোভাযাত্রায় সর্বোচ্চ সংখ্যক লোক সমাগম করতে আজ ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হবে। বিকাল চারটায় বঙ্গবন্ধু এভিনিউর কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া আগামী ৯, ১১ এবং ১৪ই মার্চের কর্মসূচিকে সামনে রেখে ঢাকা মহানগর ১৪ দল যৌথসভা করবে। জাসদ বা ওয়ার্কার্স পার্টির কার্যালয়ে এ সভা হবে। এছাড়া ১৪ই মার্চের আগে কেন্দ্রীয় ১৪ দলেরও সমন্বয় সভা করা হতে পারে।
৭ই মার্চের কর্মসূচিতে লোক সমাগম ও শোভাযাত্রাকে বর্ণাঢ্য করতে আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয়ভাবেও নির্দেশনা দিয়েছে। এ লক্ষে দু’দফায় বর্ধিত সভা করা হয়েছে। সর্বশেষ শুক্রবার গণভবনে অনুষ্ঠিত যৌথসভায় দলীয় সভানেত্রীও নেতাকর্মীদের দলের কর্মসূচি সফল করতে নির্দেশনা দেন। একই সঙ্গে বিরোধী দলের কর্মসূচি নিয়ে সতর্ক থাকারও আহ্বান জানান তিনি। কর্মসূচির প্রস্তুতির বিষয়ে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বলেন, ৭ই মার্চের কর্মসূচিতে কয়েক লাখ লোকের সমাগম হবে। এ লক্ষ্যে নগর আওয়ামী লীগ প্রস্তুতি নিচ্ছে। প্রতিটি পাড়া-মহল্লা থেকে র‌্যালিতে লোকজন যোগ দেবে। প্রস্ততির অংশ হিসেবে ওয়ার্ড ইউনিয়ন ও থানা পর্যায়ে সভা-সমাবেশ করা হচ্ছে বলে জানান তিনি। ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক আনিসুর রহমান মল্লিক জানান, আগামী ১১ এবং ১৪ই মার্চের কর্মসূচি সফল করতে দল এবং জোটগতভাবে প্রস্ততি নেয়া হচ্ছে। এ ক্ষেত্রে সামনে ১৪ দলের সমন্বয় সভাও করা হবে। ঢাকা মহানগর এবং কেন্দ্রের সঙ্গে সমন্বয় রেখে গাজীপুর, মুন্সীগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, নরসিংদী ও মানিকগঞ্জ জেলার নেতারাও ব্যাপক প্রস্ততি নিচ্ছেন দলের কর্মসূচিতে সর্বোচ্চ লোক সমাগমের। ৭ই মার্চ ও ১৪ই মার্চের কর্মসূচিতে ঢাকার বাইরের জেলা নেতাকর্মীরা অংশ নেবেন। এ দু’টি কর্মসূচিকে সামনে রেখে গতকাল গাজীপুর জেলা আওয়ামী লীগ বর্ধিত সভা করেছে। গতকালের এ সভা ১১ই মার্চ পর্যন্ত মুলতবি করা হয়েছে। জেলার নেতারা জানিয়েছেন, ৭ই মার্চ শোভাযাত্রায় অংশ নিতে ২৩০টি গাড়িতে করে নেতা-কর্মীরা ঢাকায় আসবেন। এছাড়া ১৪ই মার্চের সমাবেশ সফল করতে আগামী ১১ই মার্চ বর্ধিত সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। এ বিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আজমত উল্লা খান জানান, দলের কর্মসূচি সফল করতে ব্যাপক প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। কেন্দ্রের সঙ্গে সমন্বয় এসব কর্মসূচিতে সর্বোচ্চ লোক সমাগমের চেষ্টা করা হবে। এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. মফিজুল ইসলাম জানান, দলের কর্মসূচিতে জেলার প্রত্যেকটি উপজেলা থেকে নেতা-কর্মীরা অংশ নেবেন। এজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য জেলার নেতাদের বলা হয়েছে। জেলা থেকে এ বিষয়ে সমন্বয় করা হচ্ছে। নরসিংদী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এডভোকেট আসাদুজ্জামান জানান, দলীয় দু’টি কর্মসূচিকে সফল করতে জেলা কমিটির সভা করা হয়েছে। ৭ই মার্চে র‌্যালিতে জেলা থেকে নেতা-কর্মীরা অংশ নেবেন। তবে ১৪ই মার্চের সমাবেশকে বেশি গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট