Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

ট্রাইব্যুনালে বিএনপি ও জামায়াতের শীর্ষ নেতাদের রুদ্ধদার বৈঠক!

ঢাকা, ৪ মার্চ: বিএনপি ও জামায়াতের শীর্ষ দুই নেতার রুদ্ধদার বৈঠক চলে ট্রাইব্যুনালের হাজতখানায়। বৈঠকটি স্থায়ী হয় রোববার সকাল সাড়ে নটা থেকে বিকেল সাড়ে চারটা পর্যন্ত। আর এ বৈঠকখানা হয়েছে তাদের একান্ত বাধ্য হয়ে বসে থাকার কারণে। তবে দিনব্যাপী তাদের মধ্যে কী কী বিষয়ে আলোচনা হয়েছে জানা যায়নি ।

মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে আটক বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী ও জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল আব্দুল কাদের মোল্লা এক রমে ছিলেন।

সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী সিগারেট ফুঁকেছেন এবং হাজতখানার ভিতরে পায়চারিও করেছেন। আর আব্দুল কাদের মোল্লা নামাজের সময় নামাজ পড়েছেন। দিনের বাকি সময় তারা এক অন্যের সঙ্গে গল্প করে কাটিয়েছেন।

তাদের বৈঠকের বিষয়ে কারো কোনো প্রশ্ন তোলারও এখতিয়ার নেই। এ বিষয়ে সালাউদ্দিন কাদের ও কাদের মোল্লার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথার বলে জানা যায়, তাদের উভয়কে কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে ট্রাইব্যুনালের আদেশে নিজ-নিজ মামলার শুনানিতে হাজিরা দিতে আনা হয়েছিল।

দিনের শেষ দিকে বিকাল ৫টায় বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী ও কাদের মোল্লাকে হাজতখানা থেকে বের করে কাশিমপুর কারাগারে নেয়ার সময় তুমুল চেঁচামেচি করেন সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী এবং ওই সময় তিনি ট্রাইব্যুনালের উদেশ্যে অভিযোগ করে বলেন, ‘‘ট্রাইব্যুনালও সরকারে ক্ষমতা দেখায়। এই ক্ষমতা দেখিয়ে তাদেরকে সারাদিন ট্রাইব্যুনালের হাজতখানায় অযথায় বসিয়ে রাখে।’’

তিনি উচ্চস্বরে বলেন, ‘‘আমাদেরকে অযথায় এনে বসিয়ে রেখেছেন। আমাদের মামলার শুনানি হবে না, তারা তো এটা জানতেন। তাহলে কেন ট্রাইব্যুনালের পক্ষ থেকে বলা হয়নি যে আমাদের মামলার কার্যক্রম আজকে চলবে না। আপনাদেরকে বসে থাকার দরকার নেই।’’

তিনি উত্তেজিত কণ্ঠে বলেন, ‘‘আগামকাল আমার আইনজীবী নয়, আমিই কথা বলবো ট্রাইব্যুনালে।’’

জানা যায়, জামায়াত নেতা আব্দুল কাদের মোল্লার অভিযোগ গঠনের বিষয়ে এবং সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর করা জামিন আবেদনসহ বিভিন্ন আবেদনের শুনানি সোমবার পর্যন্ত মুলতবি করেছেন ট্রাইব্যুনাল।

ট্রাইব্যুনালের চেয়ারম্যান বিচারপতি নিজামুল হকের নেতৃত্বে তিন সদস্যের ট্রাইব্যুনালে রোববার মাওলানা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর ছাবিবশতম সাক্ষী সাংবাদিক আবেদ খানকে জেরা করা হয়।

এর আগে গত ২ ফেব্রুয়ারি রোববার তার আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর দুই আইনজীবী অ্যাডভোকেট আহসানুল করিম হেনা ও ব্যারিস্টার ফখরুল ইসলাম। পরে রাষ্ট্রপক্ষও তাদের বক্তব্য উপস্থাপন শুরু করেছিলেন। রাষ্টপক্ষের বক্তব্য উপস্থাপন শেষ হলে সালাউদ্দিন কাদেরের আবেদনের বিষয়ে আদেশ দিতে পারেন ট্রাইব্যুনাল।

সালাউদ্দিন কাদেরের আবেদনগুলোর মধ্যে হলো ১.জেলখানা পরিবর্তন ২.জামিন ৩.ট্রাইব্যুনালের বিচারে আন্তর্জাতিক মান বজায় রাখাসহ তার মামলা বাতিলের আবেদন।

মামলা বাতিলের আবেদনে সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর আইনজীবী উল্লেখ করেন, ‘‘১৯৭২ সালে দালাল আইনের (দালাল অধ্যাদেশ ) আওতায় সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর বিরুদ্ধে ছয়টি মামলা হয়। ওই মামলা এখনও বলবৎ রয়েছে। রাষ্ট্রপক্ষ সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর বিরুদ্ধে যে ফরমাল চার্জ দাখিল করেছে তাতে ওই ছয়টি মামলার অভিযোগ রয়েছে। এ কারণে নতুন করে তদন্ত হতে হবে। এ মামলাগুলোতে সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর বিরুদ্ধে যে অভিযোগ আনা হয় সেই একই অভিযোগে ট্রাইব্যুনালে বিচার করা হচ্ছে। সংবিধান অনুযায়ী একই অপরাধের দুইবার বিচার হতে পারে না।’’

বার্তা২৪/এফএইচ/জিসা

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট


2 Responses to ট্রাইব্যুনালে বিএনপি ও জামায়াতের শীর্ষ নেতাদের রুদ্ধদার বৈঠক!

  1. sikiş izle

    March 13, 2012 at 9:44 am

    hey admin thanks for wonderful and uncomplicated understandable post i adored your web site site genuinely a lot bookmarked also

  2. smackdown oyunları

    March 14, 2012 at 3:14 pm

    I used to be browsing for this wonderful sharing admin much thanks and have nice blogging bye