Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

অলিম্পিক গেমসে প্রধান পোশাক সরবরাহকারী দেশ বাংলাদেশ

লন্ডন, ৪ মার্চ: এ বছরের জুলাইয়ে লন্ডনে বসতে যাচ্ছে অলিম্পিক গেমসের আসর। যেখানে অংশ নেবে প্রায় ২০০ দেশের দশ হাজার খেলোয়াড়। আর সেইসব খেলোয়াড়রা তাদের গায়ে বাংলাদেশের তৈরি পোশাক জড়িয়ে নামবেন খেলার মাঠে। খবরটি জানিয়েছে বৃটিশ দৈনিক ‘দ্য অবজারভার’।

রোববার তারা একটি প্রতিবেদনে জানিয়েছে, খেলার সামগ্রী এবং পোশাক তৈরিকারী বিখ্যাত প্রতিষ্ঠান অ্যাডিডাস, পুমা এবং নাইক এবারের অলিম্পিকের মূল পোশাক সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান। যারা বাংলাদেশ, ভারত, শ্রীলংকা এবং ইন্দোনেশিয়ায় তাদের সাপ্লায়ার ফ্যাক্টরি থেকে পোশাক তৈরি করাচ্ছে। তবে, এদের মধ্যে সবচেয়ে এগিয়ে আছে বাংলাদেশের নাম।

জানা গেছে, এই তিনটি প্রতিষ্ঠান জুলাইয়ে অনুষ্ঠিতব্য অলিম্পিক গেমসে অংশ নেয়া অধিকাংশ দেশের স্পোর্টস টিমের পোশাক সরবাহ করছে। যা বেশির ভাগই তৈরি হচ্ছে তাদের বাংলাদেশের ফ্যাক্টরিতে।

অলিম্পিক গেমসের অফিসিয়াল পোশাক সরবরাহকারী অ্যাডিডাস স্পনসর করছে বৃটিশ টিমের পোশাক। অন্যদিকে নাইক দায়িত্ব নিয়েছে আমেরিকা, চীন, জার্মান এবং রাশিয়ার টিমের পোশাক তৈরি। আর জ্যামাইকান স্পোর্টস স্টার উসাইন বোল্টের পোশাকসহ আরো কয়েকটি দেশের পোশাক তৈরি করছে পুমা। এবং সেইসব পোশাকের তৈরি হচ্ছে বাংলাদেশী শ্রমিকদের হাতেই।

কিন্তু অভিযোগ উঠেছে, অ্যাডিডাস, নাইক এবং পুমার সেইসব সাপ্লায়ার ফ্যাক্টরিতে লঙ্ঘিত হচ্ছে শ্রমিক আইন। অতিরিক্ত কাজ এবং ন্যায্য পারিশ্রমিক না দেয়া অভিযোগ উঠেছে তাদের বিরুদ্ধে। যা জলদিই সমাধান করার ব্যাপারে হুঁশিয়ারে দিয়েছে অলিম্পিক কমিটি।

এ ব্যাপারে নাইকের এক মুখপাত্রও জানিয়েছেন, তারা এই ধরনের অভিযোগ খুবই গুরুত্বের সঙ্গে দেখেন। এ ব্যাপারে তারা পদক্ষেপও গ্রহণ করছে।

এদিকে অ্যাডিডাসের প্রতিনিধি ‘দ্য অবজারভার’-কে জানিয়েছেন, তারা তাদের বাংলাদেশের ফ্যাক্টরি এবং সাপ্লায়ার প্রতিষ্ঠানে নিয়মিত অডিট করেন। তারাও গেল বছরের অডিটে সেখানে কিছু সমস্যার ব্যাপারে জানতে পেরেছেন। যা এখন সমাধানের ব্যাপারে তদন্ত চলছে। তাছাড়া পারিশ্রমিকের ব্যাপারে যে অভিযোগ আনা হয়েছে তা বর্তমানে সমাধান করা হয়েছে বলেও ‘দ্য অবজারভার’-কে জানিয়েছে অ্যাডিডাসের প্রতিনিধি।

এছাড়াও শ্রমিক আইন লঙ্ঘনের যে অভিযোগ প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে আনা হয়েছে সে ব্যাপারে তারা জানিয়েছে, এমনটা কাম্য নয়। শ্রমিকদের অধিকারের ব্যাপারে তারা সচেতন। তবে যদি এই অভিযোগ সত্যি হয়ে থাকে তবে এই ব্যাপারে কঠোর পদক্ষেপ নেবে তারা। তারা এই ব্যাপারে বিস্তারিত জানার জন্য তাৎক্ষণিকভাবে তদন্তের প্রক্রিয়াও শুরু করেছে বলে ‘দ্য অবজারভার’-কে প্রতিষ্ঠানগুলো জানিয়েছে।

খেলার সামগ্রী প্রস্তাকারী প্রতিষ্ঠান পুমাও জানিয়েছে একই কথা। তাদের বক্তব্যে, বাংলাদেশ তাদের প্রধান এবং সবচেয়ে নির্ভরশীল পোশক রফতানিকারক দেশ। তবে অতিরিক্ত কাজ করানো এবং ন্যয্য পারিশ্রমিক না দেয়ার ব্যাপারে তারা জানতে পেরেছে। যা সমাধানে ইতিমধ্যেই কাজ শুরু করেছে কোম্পানি। বাংলাদেশ থেকে আসা শ্রমিকদের সব ধরনের অভিযোগের সমাধান তারা করবেন বলে ‘দ্য অবজারভার’-কে জানিয়েছে।

বার্তা২৪/আর

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট


3 Responses to অলিম্পিক গেমসে প্রধান পোশাক সরবরাহকারী দেশ বাংলাদেশ

  1. salim

    March 5, 2012 at 5:32 pm

    Oh.That’s a very good sign for Bangladesh.
    But we hope that they will provide total salary of our garment workers.

  2. sikiş izle

    March 13, 2012 at 10:01 am

    I required for this webpage submit admin truly thanks i’ll glimpse your up coming sharings i bookmarked your webpage

  3. smackdown oyunları

    March 14, 2012 at 3:16 pm

    that you are genuinely number a single admin your running a blog is wonderful i constantly check out your weblog i am guaranteed you is going to be the most effective