Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

সিরিয়ার হোমসে রেড ক্রিসেন্টের স্বেচ্ছাসেবী দল

সিরিয়ার সহিংস বাব আমর এলাকায় সরকার বিরোধী বিদ্রোহীদের ত্রাণ ও চিকিৎসা সেবা দেয়ার উদ্দেশ্যে রেড ক্রিসেন্টের একদল স্বেচ্ছাসেবী ডাক্তার হোমসে পৌঁছেছে। বাব আমর এলাকায় প্রায় এক মাস যাবৎ সরকার বিরোধী বিদ্রোহীরা সরকারি বহিনীর বিরুদ্ধে ধারাবাহিক লড়াই করে আসছে। বৃহস্পতিবার বিদ্রোহীরা কৌশলগতভাবে সেখান থেকে সরে যায়। তারপর শহরের নিয়ন্ত্রণ সরকারি বাহিনীর হাতে আসে। সেখানকার বিদ্রোহীদের মানবিক সহায়তা দেয়ার জন্য রেডক্রিসেন্ট যেতে চাইলেও এতদিন অনুমতি দেয়নি সিরিয়া সরকার। কিন্তু এখন শহরটি সরকারের নিয়ন্ত্রণে আসার পর সেখানে রেডক্রিসেন্টকে যাওয়ার সুযোগ দিলো সিরিয়া। গতকাল সকালে জরুরি ত্রাণ ও ওষুধ নিয়ে রেডক্রিসেন্টের সাতটি গাড়ির বহর হোমসে এসে পৌঁছে। সেখানে তাদের সঙ্গে যোগ দেয়ার জন্য এম্বুলেন্স ও ওষুধ নিয়ে অপেক্ষা করছে অনেক স্বেচ্ছাসেবীর দল এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন, জেনেভা ভিত্তিক আন্তর্জাতিক রেডক্রসের মুখপাত্র কারলা হাদ্দাদ। আবু আব্দু নামের হোমসের একজন বিদ্রোহী বলেন, বাব আমর এলাকার বাসিন্দারা জরুরি সহায়তার জন্য অপেক্ষা করছেন। সরকারের বাহিনীর লাগাতার আক্রমণের মুখে তারা মুখিয়ে আছেন চিকিৎসা সেবার জন্য। তিনি বলেন, সরকারি বাহিনী ঘরে ঘরে খুঁজে নির্যাতন চালাচ্ছে সেখানে। তিনি উল্লেখ করেন, আমরা আসলেই রেডক্রসের সহায়তা চাই। আমরা সরকারি বাহিনীকে বিশ্বাস করি না। এদিকে সরকারি বাহিনী বাব আমর নিয়ন্ত্রণে নিয়ে সেখানে হত্যাযজ্ঞ চালাচ্ছে এমন অভিযোগের পর জাতিসংঘের মানবাধিকার কমিশনের প্রধান বলেছেন, সেখানে কি ঘটছে তার প্রতি লক্ষ্য রাখছেন তারা। প্রতিবাদীরা বলছেন, বর্তমানে বাব আমর এলাকায় ৪ হাজারের মতো মানুষ রয়েছে। যাদের সব রকম সহায়তার প্রয়োজন। বিদ্রোহীরা বলেছে, সাধারণ নাগরিকদের রক্ষার জন্য সেখান থেকে পিছু হটেছে তারা। এদিকে আল জাজিরা এক রিপোর্টে বলেছে, বাব আমর থেকে বিদ্রোহীরা সরে যাওয়ায় বিদ্রোহ সারা দেশে ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। যারা এখান থেকে চলে গেছে তারা কোথায় যাবে। মনে হয় তারা রেস্তান এলাকায় গিয়ে জড়ো হবে রিপোর্টে বলা হয়। এদিকে সিরিয়া কর্তৃপক্ষ তিনজন বিদেশী সাংবাদিকের মৃতদেহ পাওয়ার কথা নিশ্চিত করেছে। যারা এ সপ্তাহে বাব আমর এলাকায় নিহত হয়েছেন। এরা হলেন, মার্কিন সাংবাদিক ম্যারি ক্যালভিন (সানডে টাইমস), ফরাসি ফটোগ্রাফার রেমি ওকলিক ও স্প্যানিশ খাফিয়ের এসপিনোসা। সিরিয়া কর্তৃপক্ষ বলেছে, দামেস্কের একটি হাসপাতালে পোস্টমর্টেম করার পর স্ব স্ব দেশের দূতাবাসে লাশ হস্তান্তর করা হবে। এদিকে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ দাবি জানিয়েছে, জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক প্রধানকে কোন রকম বাধা ছাড়া হোমসসহ সিরিয়ার যে কোন অংশে ঢোকার অনুমতি দিতে হবে।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট


2 Responses to সিরিয়ার হোমসে রেড ক্রিসেন্টের স্বেচ্ছাসেবী দল

  1. sikiş izle

    March 13, 2012 at 8:12 am

    that you are seriously quantity 1 admin your blogging is remarkable i generally verify your website i am certain you will probably be the top

  2. smackdown oyunları

    March 14, 2012 at 3:05 pm

    Amazing post admin thank you. I found what i used to be seeking right here. I’ll review overall of posts within this working day