Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

রাজপথে খালেদা জিয়াকে গণসংবর্ধনা

কাফি কামাল/জিয়া শাহীন, বগুড়া থেকে: মাঠে নয়, রাজপথে মাইলের পর মাইল অবস্থান নিয়ে ও পুষ্পবৃষ্টি ছিটিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে গণসংবর্ধনা দিয়েছে বগুড়াবাসী। উত্তরাঞ্চল অভিমুখে বগুড়ার প্রবেশমুখ থেকে শেষপ্রান্ত পর্যন্ত অবস্থান নিয়েছিল লাখো মানুষ। বিরোধীদলীয় নেতাকে অভিনন্দন জানাতে তারা অপেক্ষা করেছেন দুপুর থেকে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত। রাজপথে কর্মী-সমর্থক ও সাধারণ মানুষের সংবর্ধনায় সংবর্ধিত হয়ে খালেদা জিয়া বগুড়া পৌঁছান সাড়ে ৮টায়। সিরাজগঞ্জের চান্দাইকোনা থেকে তাকে বরণ করে নেয় কয়েকশ’ মোটরসাইকেলের একটি শোভাযাত্রা। শহরের মুখে মাঝিরা থেকে বনানী মোড় পর্যন্ত ফুলের গালিচা বানিয়ে খালেদা জিয়াকে অভিনন্দিত করা হয়। মূলত বগুড়া জেলা বিএনপি’র সম্মানিত এক নম্বর সদস্য পদটি গ্রহণ করায় বিএনপি চেয়ারপারসনকে এ সংবর্ধনা দিয়েছেন তারা। আজ লালমনিরহাট যাওয়ার পথেও বগুড়া শহর থেকে শিবগঞ্জের রহবল পর্যন্ত একই ভাবে অবস্থান নেবে জেলা বিএনপি। খালেদা জিয়ার উত্তরাঞ্চল সফরকে সুযোগ হিসেবে নিয়েছে বগুড়া বিএনপি। এদিকে খালেদা জিয়ার উত্তরাঞ্চল সফরযাত্রায় রাজধানীর উত্তরা থেকে টাঙ্গাইল পর্যন্ত পথে পথে ব্যাপক শোডাউন করেছে স্থানীয় বিএনপি।
বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে গণসংবর্ধনা দিতে অন্যরকমভাবে সাজানো হয়েছে বগুড়া। বগুড়ার প্রবেশমুখ চান্দাইকোনা থেকে জেলার শেষপ্রান্ত রহবল পর্যন্ত নির্মাণ করা হয়েছে প্রায় ৩০০ তোরণ। অসংখ্য ব্যানার লাগানো হয়েছে শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে। অনির্ধারিত হলেও খালেদা জিয়ার লালমনিরহাট জনসভায় যোগদানের আগের রাতে বগুড়ায় যাত্রাবিরতিকে কেন্দ্র করে বগুড়া বিএনপি গণসংবর্ধনার এই উদ্যোগ নেয়।
গত ২২শে জানুয়ারি বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্বাক্ষরে বগুড়া জেলা বিএনপি’র ১৭২ সদস্য ও ২৬ উপদেষ্টা বিশিষ্ট কমিটি অনুমোদন করা হয়। পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে সম্মানিত এক নম্বর সদস্য করা হয় বিএনপি’র চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে। দুই নম্বর সম্মানিত সদস্য হিসেবে রাখা হয় বিএনপি’র সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে। মূলত বেগম খালেদা জিয়া বগুড়া বিএনপি’র সদস্য হিসেবে নিজের পদকে গ্রহণ করায় বগুড়া বিএনপি’র পক্ষ থেকে এই অনানুষ্ঠানিক গণসংবর্ধনার আয়োজন করা হয়।
এদিকে খালেদা জিয়ার গণসংবর্ধনাকে সামনে রেখে প্রায় ১০ দিন আগে থেকে ওয়ার্ড, ইউনিয়ন, উপজেলা, পৌরসভা ও জেলায় নিজেদের মধ্যে সভা করে পরিকল্পনা নেয়া হয়। সেই পরিকল্পনার ধারাবাহিকতায় জেলা বিএনপি গণসংযোগ, মাইকিং, ব্যানার ইত্যাদির মাধ্যমে প্রচারণা শুরু করে। পুরো প্রস্তুতির নেতৃত্ব দেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান। নেতা-কর্মীদের জানিয়ে দেয়া হয়, বগুড়ার প্রবেশপথ চান্দাইকোনা থেকে বগুড়া সার্কিট হাউজ পর্যন্ত ২৬শে ফেব্রুয়ারি মহাসড়কের দু’পাশে অবস্থান নিয়ে বেগম খালেদা জিয়াকে শুভেচ্ছা জানানোর কথা। বগুড়া থেকে আজ লালমনিরহাট যাত্রার পথে সার্কিট হাউজ থেকে বগুড়ার শেষ সীমানা রহবল পর্যন্ত একই ভাবে প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। দেখা গেছে, ঢাকা থেকে রওনা দেয়ার পর বেগম খালেদা জিয়ার বগুড়া পৌঁছতে রাত হলেও মহাসড়কের দু’পাশে লাখ লাখ মানুষ দাঁড়িয়ে তাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছে। জেলা বিএনপি সভাপতি ভিপি সাইফুল ইসলাম এবং যুবদলের সভাপতি সিপার আল বখতিয়ার জানান, আসলে বগুড়ার বিএনপি তথা সাধারণ জনগণ ভালবাসার আবেগ থেকেই চেয়ারপারসনকে সংবর্ধনা দিতে মহাসড়কের দু’পাশে দাঁড়িয়েছিল।
রাজপথে মানুষের ঢল
খালেদা জিয়ার উত্তরাঞ্চল সফরকে কেন্দ্র করে গতকাল ঢাকা থেকে বগুড়া পুরো রাজপথে নামে মানুষের ঢল। টঙ্গীতে খালেদা জিয়াকে অভিনন্দন জানিয়ে শোডাউন করে গাজীপুর জেলা বিএনপি। স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্রিগেডিয়ার (অব.) হান্নান শাহ, সাংগঠনিক সমপাদক ফজলুল হক মিলন, হাসান সরকার ও সাইয়েদুল আলম বাবুলের নেতৃত্বে টঙ্গী, কোনাবাড়ী, বাইপাস, কালিয়াকৈর মোড়ে অবস্থান নেন বিএনপি’র হাজার হাজার কর্মী-সমর্থক। টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে সাবেক এমপি আবুল কালাম আজাদ ও টাঙ্গাইল বিশ্বরোড মোড়ে জেলা সাধারণ সমপাদক শামসুল আলম তোফার নেতৃত্বে হাজার হাজার কর্মী-সমর্থক রাজপথে দাঁড়িয়ে খালেদা জিয়ার আন্দোলনকে সমর্থন জানান। সিরাজগঞ্জের কড্ডার মোড়, হাটিকুমরুল ও বগুড়ার শেরপুরে জেলা বিএনপি শোডাউন করে। বিশেষ করে বগুড়ার শেরপুরের উপস্থিতি ছিল বিপুল। এ সময় তাদের হাতে ছিল নানা স্লোগান লেখা ব্যানার ও ফেস্টুন। রাজপথে কর্মী-সমর্থকদের এ বিপুল সমর্থনের জবাবে স্পটগুলোতে গাড়ির গতি কমিয়ে হাত নেড়ে শুভেচ্ছা জানান খালেদা জিয়া।
শত গাড়ির বহর ও খালেদার সফরসঙ্গী
উত্তরাঞ্চল সফরে খালেদা জিয়ার বহরে অংশ নিয়েছে শতাধিক গাড়ি। সফরসঙ্গী হয়েছেন বিএনপি ও অঙ্গদলের অর্ধশতাধিক সিনিয়র নেতা। যার মধ্যে রয়েছেন দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্রিগেডিয়ার (অব.) আসম হান্নান শাহ, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, যুগ্ম মহাসচিব আমান উল্লাহ আমান, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সমপাদক এহছানুল হক মিলন ও যুবদলের কোষাধ্যক্ষ মোস্তাফিজুর রহমান ভুঁইয়া দিপুসহ যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল ও ছাত্রদলের সিনিয়র নেতারা। উত্তরাঞ্চল সফরের প্রথম দিন গত রাতে বগুড়া সার্কিট হাউজে অবস্থান করেছেন বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়া। আজ সকালে তিনি লালমনিরহাটের উদ্দেশে যাত্রা করবেন। লালমনিরহাট কালেক্টরেট মাঠে আয়োজিত সমাবেশে বক্তব্য দেবেন তিনি।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট