Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

সাইফুরের নামফলকটি প্রতিস্থাপন করলেন সিলেটের ব্যবসায়ীরা

ওয়েছ খছরু, সিলেট থেকে: সিলেটের প্রয়াত অর্থমন্ত্রী এম সাইফুর রহমানের নামফলক আবার প্রতিস্থাপন করলেন ব্যবসায়ীরা। ভেঙে ফেলা নামফলকটি আবার নতুনভাবে নির্মাণ করে তারা গতকাল তা স্বস্থানেই প্রতিস্থাপন করলেন। নগরীর আম্বরখানা এলাকায় ৬ বছর আগে স্থাপিত এই ফলকটি চলতি মাসের প্রথম দিকে রাতের আঁধারে ভেঙে ফেলেছিল দুষ্কৃতকারীরা। এ নিয়ে ক্ষুব্ধ হন সিলেট নগরীর আম্বরখানা এলাকার ব্যবসায়ীরা। ২০০৬ সালের ২রা জুলাই সিলেট নগরীর আম্বরখানা-টুকেরবাজার সড়ক সমপ্রসারণ ও উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করেন সাবেক অর্থ ও পরিকল্পনামন্ত্রী এম সাইফুর রহমান। উদ্বোধন উপলক্ষে নগরীর আম্বরখানার মসজিদের পাশে একটি নামফলক নির্মাণ করা হয়। প্রয়াত সাইফুর রহমান এই নামফলকটির মাধ্যমে ওই রাস্তায় কাজের উদ্বোধন করেন। স্থানীয় ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, উদ্বোধনের পর এম সাইফুর রহমান কয়েক কোটি টাকা ব্যয়ে এ কাজের উদ্বোধন করেন। এরপর সাইফুর রহমানের অর্থায়নের মাধ্যমে স্থানে স্থানে ভেঙে যাওয়া এই সড়কের কাজ করানো হয়। নির্মাণকাজ শেষ হওয়ার দীর্ঘ ৬ বছর পেরিয়ে গেলেও কেউ কোনদিন এই নামফলকে হাত দেয়নি। কিন্তু চলতি মাসের শুরুতে রাতের আঁধারে কে বা কারা এই নামফলকটি ভেঙে ফেলে। নামফলকটি এমন ভাবে ভাঙা হয় যে, সাইফুর রহমানের নামের কোন অস্তিত্ব ছিলো না। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ হন স্থানীয় ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসী। তারা এ ঘটনায় স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের কাছে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। পরে ব্যবসায়ীরা নিজ উদ্যোগেই নামফলকটি আবার নির্মাণ করেন। আর গতকাল দুপুরে আনুষ্ঠানিকভাবে স্থানীয় এলাকাবাসী, আম্বরখানা বাজারের ব্যবসায়ী ও মাছ ব্যবসায়ীরা স্বস্থানেই নামফলকটি প্রতিস্থাপন করেন। এ সময় স্থানীয় ব্যবসায়ীরা ছাড়াও বিএনপি’র কেন্দ্রীয় সদস্য আরিফুল হক চৌধুরী, সিলেট মহানগর বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক ও সিটি কাউন্সিলর রেজাউল হাসান লোদি কয়েছ ও বিএনপি নেতা সালেহ আহমদ খসরু উপস্থিত ছিলেন। নামফলকটি প্রতিস্থাপন করার পর মোনাজাত করা হয়। এ ব্যাপারে সিলেট নগর উন্নয়ন কমিটির সাবেক চেয়ারম্যান ও সাবেক কাউন্সিলর আরিফুল হক চৌধুরী মানবজমিনকে জানিয়েছেন, নামফলকটি ভেঙে ফেলার পর স্থানীয় ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসী এতে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তারা নামফলক নির্মাণ করে গতকাল আবার প্রতিস্থাপন করেছেন। তাদের আমন্ত্রণ পেয়ে আমরা সেখানে গিয়েছি। তিনি জানান, প্রয়াত সাইফুর রহমান ছিলেন সিলেটের উন্নয়নের ফেরিওয়ালা। সাইফুর রহমান তার উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের জন্য সিলেটবাসীর হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছেন। আর এ কারণেই দীর্ঘ ৬ বছর পর তার নামফলক নিয়ে রাজনীতি করায় ক্ষুব্ধ মানুষ সাইফুরের ভালোবাসার প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন করেছেন। সিলেট মহানগর বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক ও সিটি কাউন্সিলর রেজাউল হাসান কয়েস লোদি জানান, সাইফুর রহমানের নাম সিলেটবাসীর মুখে মুখে হৃদয়ে হৃদয়ে। সুতরাং সাইফুরকে নিয়ে কোন ধরনের রাজনীতি সিলেটবাসী মেনে নেয়নি। এর প্রমাণ হলো সর্বস্তরের মানুষ এক হয়ে ভেঙে ফেলা সাইফুরের নামফলক আবার স্থাপন করেছেন। স্থানীয় ব্যবসায়ীরা নামফলক প্রতিস্থাপনের পর সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, প্রয়োজন হলে তারা এই নামফলক পাহারা দেবেন। তারা জানান, সিলেট নগরীর আম্বরখানা এলাকার যুগান্তকারী উন্নয়ন করেছেন প্রয়াত সাইফুর রহমান। তার মুখের দিকে চেয়ে ব্যবসায়ীরা নিজেদের জায়গা ছেড়ে রাস্তা বড় করেছিলেন। সাইফুর রহমানও ব্যবসায়ীদের যথাযথ মূল্যায়ন করেছেন। সুতরাং সিলেট দরদী এই মানুষটির নামের ফলক এভাবে ভেঙে ফেলা ঠিক হয়নি। এ কারণে ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসী এক হয়ে আবার এই নামফলকটি প্রতিস্থাপন করেছেন।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট