Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

ঢাবিতে ছাত্রলীগ নেতাদের সিট বাণিজ্য চলছেই

হুমাযুন কবীর আকাশ
ঢাকা, ২৪ ফেব্রুয়ারি: প্রাচ্যের অক্সফোর্ড খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলোতে বেশ দাপট ও প্রতিকারহীন ভাবে চলছে সিট বাণিজ্য। আর এই বাণিজ্য একতরফাভাবে নিয়ন্ত্রণ করছে ছাত্রলীগ।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীরা অনেক স্বপ্ন আর আশা নিয়ে ভর্তি হয়। আর সাধারণ শিক্ষার্থীদের এই আশায় গুড়ে বালি দেয় সিট রাজনীতির নতুন অপসংস্কৃতি। হলে থাকতে রাজনীতি করতে হবে। এমনটাই এখন যেন নিয়ম হয়ে দাঁড়িয়েছে হল গুলোতে। সিটে তোলার মাধ্যমে এই শিক্ষার্থীতে কাঁধে তুলে দেয়া হচ্ছে রাজনীতির নতুন সংস্কৃতি। হলে থাকতে হলেই অবশ্যই রাজনীতি করতে হবে। এর সঙ্গে আছে আর গেস্ট রুম নামের উদ্ভট সংস্কৃতি। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় সবটি হলেই এই গেস্ট রুম প্রথা। নবীন শিক্ষার্থীদের রাজনীতি শিক্ষা দিতেই এই ধরনের গেস্ট রুম করানো হয়ে বলে জানান কয়েকটি হলের নেতারা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিবছর পাঁচ হাজারের ওপর নতুন শিক্ষার্থীরা যোগ দেন বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারে। তবে প্রতিবছর বাড়ে না বিশ্ববিদ্যালয়ের সিট বা থাকার জাগয়া। এর ফলে আবাসন সমস্যা প্রকট থেকে প্রতিনিয়ত প্রকট হচ্ছে প্রতিবছরই।

জিয়া হলের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী মাসুদ বলেন, ‘‘আর এই সিটকে পুঁজি করে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন হলে সাধারণ শিক্ষার্থীদের দিয়ে রাজনীতি নামে অপরাজনীতি চলছে। আর এই আবাসন সমস্যা মূলে রয়েছে ছাত্রলীগের কৃত্রিম প্রশাসনিক দায়িত্ব। হলের সিট বণ্টনের দায়িত্ব বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বা হল প্রশাসনের তা বুঝা যাচ্ছে না। যখন যে দল ক্ষমতায় থাকে তখন সে দলের ছাত্র সংগঠন হলের কৃত্রিম আবাসন সংকট সৃষ্টি করে সাধারণ শিক্ষার্থীদের রাজনীতিতে আসতে বাধ্য করে।’’

সিট দখল নিয়ে জহুরুল হক হলে জানুয়ারি মাসে দুইবার মারামারির উপক্রম হয়েছে। একই ধরনের সমস্যা হচ্ছে এস এম হলে। এসএম হলে বহিরাগতদের হলে থাকা নিয়ে চলছে সাধারণ শিক্ষার্থীদের আন্দোলন। ৯ ও ১০ ফেব্রুয়ারি এস এম হলে চরম উত্তেজনা বিরাজ করে। পরে হল প্রশাসন ও হল শাখা ছাত্রলীগ বৈঠক কর বিষয়টি মীমাংসা করে। তবে অবৈধভাবে যারা হলে সিট দখল করে আছে ছাত্রলীগের জন্য তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নিতে পারেনি হল প্রশাসন।

এছাড়াও ১৫ ফেব্রুয়ারি ছাত্রলীগ স্যার এ এফ রহমান শাখা অবৈধভাবে থাকাদের হল থেকে বের করে দিতে চাইলে হলের গেস্ট রুমসহ কয়েকটি রুম ভাংচুর করে ছাত্রলীগ কর্মীরা।

জানা গেছে, হলে গেস্ট রুম ভাংচুরের ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদ করায় ২২ ফেব্রুয়ারি রাত ১১টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্যার এ এফ রহমান হলের প্রভোস্টসহ এক শিক্ষককে লাঞ্চিত করেছে ছাত্রলীগ। হলের অফিস রুমে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় তারা ওই দুই শিক্ষককে ঘণ্টাব্যাপী আটকেও রাখে। লাঞ্ছিত শিক্ষকদ্বয় হলেন মনোবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক ও হল প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. আজিজুর রহমান ও গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের প্রভাষক সাইফুল ইসলাম।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, ১৫ ফেব্রুয়ারি হলে অবস্থানরত অনাবাসিক ছাত্রদের বের করে দেয়ার প্রতিবাদে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি মেহেদী হাসান মোল্লার অনুসারী কর্মীরা গেস্ট রুমসহ বেশ কয়েকটি রুম ভাংচুর করে। ঘটনায় দোষীদের চিহ্নিত করতে বুধবার রাত ১১টার দিকে হল অফিসে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছাত্রলীগ কর্মী সাইফুল ইসলামকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকেন হল প্রভোস্ট। এ সময় হলের আবাসিক শিক্ষক সাইফুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন। কিন্তু এ ঘটনায় ছাত্রলীগ কর্মী জড়িত নয় দাবি করে অন্যান্য ছাত্রলীগ কর্মীরা প্রভোস্টের বিরুদ্ধে স্লোগান এবং গালিগালাজ করতে থাকে। এক পর্যায়ে ছাত্রলীগ কর্মী সায়েম, রিয়াজ, মাকসুদ, রাজু ও শুভর নেতৃত্বে একটি গ্রুপ হলের সব লাইট বন্ধ করে দেয়। পরে তারা অফিস রুমে তালা ঝুলিয়ে প্রায় এক ঘণ্টা ধরে শিক্ষক দুজনকে আটক করে রাখে। পরে ছাত্রলীগ সভাপতি মেহেদী হাসান এসে তাদের উদ্ধার করে।

বিভিন্ন হলের কয়েকজন শিক্ষার্থী অভিযোগ করে বলেন, ‘‘হলের ছাত্রলীগের পরিচয় দিয়ে এবং ছাত্রলীগ নেতাদের আত্মীয় স্বজন সিট থাকছে। এদের বিরুদ্ধে প্রশাসন কোনো ধরনের ব্যবস্থা নিচ্ছে না।’’

প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয়ে হল গুলো সিট বণ্টনের দায়িত্ব হচ্ছে হল প্রশাসনের। তবে মেয়েদের হল এবং স্যার এ এফ রহমান হল বাদে প্রায় সবগুলো হলেই ছাত্রলীগের নিয়ন্ত্রণেই চলছে সিট বণ্টন। হল প্রশাসন হলে সিট বণ্টন করলেও সিটে তুলে দেয় না।

সূত্র মতে, হলগুলোতে প্রশাসনের নেই কোনো নিয়ন্ত্রণ। প্রশাসন থাকলেও নেই কার্যক্রম। হলগুলোতে রয়েছে ছাত্রলীগের নেতারা। বিশ্ববিদ্যালয়ে যাদের ছাত্রত্ব নেই। বেশির ভাগ হলের ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রত্ব নেই। তারা এখনো হলগুলোতে এখনো একটি করে সিঙ্গেল রুম দখল করে আছেন।

জহুরুল হক হলের গণরুমে থাকা এক শিক্ষার্থী নাম না প্রকাশ করার শর্তে বার্তা২৪ ডটনেটকে বলেন, ‘‘অনেক আশা নিয়ে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েছিলাম। তবে সিট রাজনীতির জন্য আমি পড়ালেখা করতে পারছি না।’’

হলে অবৈধভাবে সিট দখলের বিষয়টি স্বীকার বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক বার্তা২৪ ডটনেটকে বলেন, ‘‘কোনো কোনো হলে কিছু অবৈধভাবে থাকছে শুনেছি। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’’

তিনি আরো বলেন, ‘‘হলের সিট বণ্টনের দায়িত্ব হল প্রশাসনের। যদি প্রশাসন সে দায়িত্ব পালন করতে না পারে তবে ছাত্রলীগের কি করার আছে?’’

এ সর্ম্পকে হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. গোলাম মোহম্মদ ভূঁঞা বার্তা২৪ ডটনেটকে বলেন, ‘‘হল প্রশাসন সিট বণ্টন করে। কোনো বহিরাগত সিটে থাকলে তাকে অবশ্যই হল থেকে বের করে দেয়া হবে।’’

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর বলেন, ‘‘প্রশাসন সিট বরাদ্দের ব্যবস্থা করবে। অবৈধভাবে কেউ হলে থাকলে হল প্রশাসন যথাযথ ব্যবস্থা নেবে।’’

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বার্তা২৪ ডটনেটকে বলেন, ‘‘হল প্রভোস্টদের কাজ হচ্ছে হলের সিট বণ্টন করা। এক্ষেত্রে কোনো অনিয়ম হয়ে থাকলে হল প্রভোস্টদের ব্যবস্থা নিতে বলা হবে।’’

বা২৪/এইচকেএ/জিসা

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট


5 Responses to ঢাবিতে ছাত্রলীগ নেতাদের সিট বাণিজ্য চলছেই

  1. sikiş izle

    March 13, 2012 at 2:59 am

    hey admin thanks for good and simple understandable post i liked your web site internet site seriously very much bookmarked also

  2. alışveriş rehberi

    March 14, 2012 at 3:58 am

    I used to be seeking this weblog last three nights excellent webpage manager wonderful posts almost everything is terrific

  3. escort ilanlari

    March 14, 2012 at 4:48 am

    I used to be searching for this weblog survive several nights wonderful web site owner wonderful posts every thing is great

  4. su arıtma cihazları

    March 14, 2012 at 11:04 am

    Genuinely needed publish admin fantastic 1 i bookmarked your world-wide-web webpage see you in upcoming web site put up.

  5. smackdown oyunları

    March 14, 2012 at 2:31 pm

    you will be really variety a single admin your running a blog is remarkable i continually check out your blog site i’m certain you is going to be the most effective