Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

কোনো অবস্থাতেই সরকার আর ছাড় দেবে না: কামরুল

ঢাকা, ১৯ ফেব্রুয়ারি: ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ও আইন প্রতিমন্ত্রী কামরুল ইসলাম বলেছেন, ‘‘রাজনৈতিক কর্মসূচি রাজনৈতিক ভাবে মোকাবেলা করতে প্রস্তুত আওয়ামী লীগ। তবে রাজনৈতিক কর্মসূচির নামে যদি নৈরাজ্য সৃষ্টি করা হয় তাহলে অবশ্যই আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ব্যবস্থা নিবে।’’

রোববার বিকেলে বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে মহানগর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

আমর্ত্মজাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে আগামী ২১ ও ২২ ফেব্রুয়ারি দুই দিনের কর্মসূচি সফল করতে এই বর্ধিত সভার আয়োজন করা হয়।

কামরুল ইসলাম বলেন, ‘‘সরকারকে কঠোর মনোভবের প্রদর্শনের জন্য সংসদে সর্বসম্মতভাবে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কোনো অবস্থাতেই সরকার আর ছাড় দেবে না। বিরোধীদলকে নাজেহালের জন্য সরকার আইনকে কাজে লাগাবে না। সরকার এতোদিন নমনীয় ছিল। কিন্তু এখন কঠোর।’’

বিরোধী দলের প্রতি আহবান জানিয়ে তিনি বলেছেন, ‘‘প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে যে অন্তর্বর্তীকালীন সরকার গঠিত হবে, তাদেরকে কী কী দায়িত্ব দেয়া হবে আসুন আমরা সেটা আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে ঠিক করি।’’

তিনি বলেন, ‘‘রাজনৈতিক কর্মসূচি রাজনৈতিকভাবে মোকাবেলা করার জন্য আওয়ামী লীগ সবসময় প্রস্তুত। রাজনৈতিক কর্মসূচির নামে দেশকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করা হলে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী কাউকে ছাড় দিবে না।’’

কামরুল বিরোধী দলের প্রতি আহবান জানিয়ে বলেন, ‘‘অযথা মাঠ দখল করার হুমকি দিয়ে লাভ নেই। কোনো অবস্থাতেই দেশকে জিম্মি করার ষড়যন্ত্রে সফল হতে পারবেন না।’’

দুই দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করে তিনি বলেন, ‘‘২০ তারিখ রাতে প্রধানমন্ত্রী শহীদ বেদীতে ফুল দিবেন। ২১ তারিখ ৭ টায় প্রভাতফেরী সহকারে কবর জিয়ারত শেষে শহীদ মিনারে ফুল দেয়া হবে। পরদিন  ২২ ফেব্রুয়ারি বিকেলে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আলোচনা সভা হবে।’’

আলোচনা সভায় দলের সবাইকে থাকার আহবান জানান তিনি।

তিনি এই কর্মসূচির গুরুত্ব বোঝাতে গিয়ে বলেন, ‘‘জনগণকে জিম্মি করে রাখার জন্য ঢাকায় জনদুর্ভোগ সৃষ্টির যে হুংকার দিয়েছেন খালেদা জিয়া তার জন্য আমাদের এই কর্মসূচি আরো গুরুত্বপূর্ণ ভাবে পালন করতে হবে।’’

কামরুল ইসলাম বিএনপির ১২ মার্চের কর্মসূচির আগে আরেকটি কর্মসূচির ইঙ্গিত দিয়ে বলেন, ‘‘আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে থানায় থানায় কর্মসূচি আছে। মহানগর আওয়ামী লীগের পক্ষে থেকে একটি মানব প্রাচীরের কর্মসূচি দেয়া হবে। সেটা আগামী মাসের ৮, ৯ কিংবা ১০ তারিখে করা হতে পারে।’’

এরপর ৭ মার্চ, ১৭ মার্চ, ২৬ মার্চ ও ৩০ মার্চে কর্মসূচির কথাও জানান তিনি।

সংগঠনের প্রচার সম্পাদক আব্দুল হক সবুজের পরিচালনায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাজী সেলিম, আওলাদ হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ প্রমুখ।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট