Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

চন্দরপল একাই রুখে দিলেন ঢাকাকে

জহির ভূঁইয়া
চট্টগ্রাম থেকে

 

চট্টগ্রাম, ১৯ ফেব্রুয়ারি: আগের ম্যাচে সাকিব আল হাসান। আর আজ চন্দ্রপল। দুইজন দুইদিন খুলনাকে জয় এনে দিলেন। আগের দিন চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী বিভাগীয় স্টেডিয়ামের উইকেটে সিলেটের জিতে যাওয়া ম্যাচ পকেটে ভরে ছিলেন সাকিব। ম্যাচে বিপিএলে প্রথম বার ফিফটির দেখা পাওয়া আশরাফুলের ৫৩ রান কোনো কাজেই আসেনি।

মিরপুরের উইকেটে রাজশাহীর কাছে হেরে যাবার পর হারের বৃত্ত থেকে এখনো বের হতে পারেনি ঢাকা। সিলেটকে সাকিব রুখে দেবার পর রোববার চট্টগ্রামের একই ভেন্যুতে ঢাকাকে রুখে দিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান শিব নারায়ণ চন্দরপল। সঙ্গী হিসাবে সাকিব আল হাসান চন্দরপলকে যথার্থ সাপোর্ট দিয়েছেন। ৭ উইকেটে জয় তুলে নিয়ে সাকিবের খুলনা ঢাকার বিপক্ষে জয়ের ধারা অব্যাহত রেখেছে। আগের বার ১৯ রানে হারের শোধ নিতে ব্যর্থ হলো ঢাকা।

খুলনার সহজ জয়টা মূলত ওপেনার চন্দ্রপলের একক পারফর্মেন্সেই আয়ত্ত করেছে খুলনা। খুলনার পক্ষে সাকিবের ২৭ রানে ১ উইকেট আর ব্যাট হাতে ৩৪ বলে ৩৯ রানের অলরাউন্ডিং পারফর্মেন্স আর ম্যাচ সেরা চন্দরপলের অপরাজিত ৮৭ রানেই ছিল উল্লেখ করার বিষয়।

এই জয়ের ফলে খুলনা পয়েন্ট টেবিলে ৬ ম্যাচে ৪ জয় আর ২ হার নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে উঠে এসেছে রান রেটের হিসাবে।

বিপিএলে রোববারই প্রথম বার জ্বলে উঠেছে আশরাফুলের ব্যাট। তবে চট্টলা উইকেটে আশরাফুলের একার জ্বলে উঠাতে বিশেষ কোনো লাভ হয়নি ঢাকার। বিপিএলে আশরাফুলের প্রথম ফিফটি হাঁকানো ম্যাচে ঢাকার সংগ্রহ মাত্র ১৪০ রান।

টস জিতে ঢাকা ব্যাট করার সিদ্ধান্তটা এককভাবে আশরাফুলই সঠিক বলে প্রমাণ করেন ৪২ বলে ৫৩ রান স্কোর যোগ করে। আর সবচেয়ে আকর্ষণীয় বিষয় ছিল, আশরাফুলের ব্যাটিং অর্ডার উপরে তুলে আনা। ব্যাটিং অর্ডারে ওপেনারের ভূমিকায় আশরাফুল বেশ ভাল ভাবেই উতরে গেলেন।

কিন্তু অন্য ওপেনার ইমরান নাজির দলের ৩ রানের মাথায় পেসার শফিউলের বলে জয়সুরিয়ার হাতে বন্দি হয়ে ফিরে যান। ওয়ান ডাউনে আসা আজহার মাহমুদের সঙ্গে ২য় জুটিতে রান যোগ হয় ৫৩। এরপর আজহার মাহমুদ রান আউট হলে ঢাকা কিছুটা চাপে পড়ে।

মিডল অর্ডারে স্টিভেন ৮ রানের বেশি যোগ করতে পারলেন না। ভরসার প্রতীক কিরন পোলার্ড ১০ রানে ও’ ব্রায়ানের হাতে রাজ্জাকের বলে ক্যাচ দিলে স্কোর দাঁড়ায় ৪ উইকেটে ৯৭ রান।

ভরসা তৈরি হয় আনামুল হক আর আশরাফুলের ৫ম জুটি দেখে শুনে খেলার কারণে। কিন্তু জয়সুরিয়া ২১ রান করা এই জুটিকে ভেঙ্গে দিলেন আনামুলকে বোল্ড করে। মিডল অর্ডারের ব্যর্থতায় মূলত ঢাকা বড় স্কোর গড়তে পারেনি।

১৮.৩ ওভারে ১৩১ রানে ৭ম উইকেটে আশরাফুল স্মিথের বলে নাজমুল হোসেন মিলনের হাতে ধরা পড়লে ঢাকার আর বেশি দূর যাওয়া হয়নি।

১৪১ রানের মাঝারি স্কোর তাড়া করতে গিয়ে খুলনা ওপেনার চন্দরপলের অপরাজিত ৮৭ আর মিডল অর্ডারে সাকিবের ৩৪ বলে ৩৯ রানে ভর দিয়ে ৭ উইকেটের সহজ জয় আয়ত্ব করে।

ওপেন করতে নামা চন্দরপল ১৬.৪ ওভারে দলের জয়সূচক রান আসা পর্যন্ত অপরাজিত রইলেন। ঢাকার কোনো আক্রমণই তাকে টলাতে পারেনি।

ঢাকার বোলার আজহার মাহমুদের বলে এলবির ফাঁদে কাটা যান আরেক অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান জয়সুরিয়। আর স্মিথ মাশরাফির বোলে বোল্ড আউট হন। ২ উইকেটে ১৫ রান ওভার মাত্র ২.১!

আশা জাগানো বোলিং আর ফিল্ডিং শুরু করেছিল ঢাকা। কিন্তু ৩য় উইকেট জুটিতে সাকিব-চন্দরপল ১৩তম ওভারের শেষ বল পর্যন্ত ৯৪ রানের উপহার দিলে জয়টা অনেক বেশি সহজ হয়ে ধরা দেয় খুলনার সামনে।

খুলনার স্কোর তখন ১০৯ রান। চন্দরপল এবার নাজমুল মিলনকে পাশে পেলেন। তবে নাজমুল মিলনকে কষ্ট করতে হয়নি। কারণ দলের ১০৯ থেকে ১৪১ রান পর্যন্ত চন্দ্রপল একাই ব্যাট করেন।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট


3 Responses to চন্দরপল একাই রুখে দিলেন ঢাকাকে

  1. Harun Khan

    February 19, 2012 at 8:36 pm

    No Comants

  2. sikiş izle

    March 13, 2012 at 10:42 am

    I necessary for this blog site post admin seriously thanks i’ll glimpse your future sharings i bookmarked your blog site

  3. smackdown oyunları

    March 14, 2012 at 3:21 pm

    Superb submit admin thank you. I found what i used to be looking for right here. I’ll review complete of posts within this day