Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

কারাগারের কোনো খাবারই খেতে পারছেন না গোলাম আযম

ঢাকা, ১৮ ফেব্রয়ারি: মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে বঙ্গবন্ধু মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রিজন সেলে আটক বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সাবেক আমির অধ্যাপক গোলাম আযমের সাথে দেখা করেছেন তার পরিবারের সদস্যরা।

শনিবার বিকেল ৪টায় দেখা করে অধ্যাপক গোলাম আযমের ছেলে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (সাবেক) আবদুল্লাহিল আমান আযমী সাংবাদিকদের বলেন, “আমার বাবার বয়স এখন ৯০ বছরের বেশি। তিনি কারাগারের কোনো খাবারই খেতে পারছেন না। বাইরে থেকে পুষ্টিকর ফল দেয়ারও অনুমতি দেয়া হচ্ছে না। ফলে ক্রমেই শারীরিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়ছেন তিনি।”

এর আগে সকালে অধ্যাপক গোলাম আযমের সাথে প্রিজন সেলে দেখা করেছেন দুই আইনজীবী অ্যাডভোকেট শিশির মোহাম্মদ মনির ও ব্যারিস্টার এমরান এ সিদ্দিক। এ দুই আইনজীবী মামলাসংক্রান- বিভিন্ন বিষয়ে অধ্যাপক গোলাম আযমের সাথে পরামর্শ করেছেন বলে জানান।

বিকেল ৪টার পরে আদালতের অনুমতি নিয়ে পিজি হাসপাতালের প্রিজন সেলে অধ্যাপক গোলাম আযমের সাথে দেখা করেন তার পরিবারের তিন সদস্য। সদস্যদের মধ্যে ছিলেন স্ত্রী সৈয়দা আফিফা আযম, ছেলে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (সাবেক) আবদুল্লাহিল আমান আযমী ও বড় ছেলের মেয়ে সাম্মা আযমী।

আবদুল্লাহিল আমান আযমী পরে সাংবাদিকদের সংক্ষিপ্ত ব্রিফিংয়ে বলেন, “আমার বাবার বয়স এখন ৯০ বছরের বেশি। তিনি একা বাথরুমেও যেতে পারেন না। একা শোয়া থেকে উঠে বসতে এমনকি বসা অবস্থা থেকে একা দাঁড়াতেও পারেন না। তিনি হাসপাতালের খাবার খেতে না পেরে অত্যন- দুর্বল হয়ে পড়েছেন। আমাদের পরিবারের পক্ষ থেকে কয়েকবার আবেদন করেও আমার বাবার জন্য বাইরে থেকে একটি ফল দিতে পারছি না।”

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, বাইরে থেকে কোনো খাবারও দিতে দেয় না জেল কর্তৃপক্ষ।

তিনি সাংবাদিকদের আরো বলেন, “আমরা আমাদের পরিবারের পক্ষ থেকে কর্তৃপক্ষকে বারবার বলেছি, আমার বাবার খাবারের মান উন্নত করতে হবে। কিন্তু তা করা হচ্ছে না। হাসপাতাল থেকে যে খাবার দেয়া হয় তা দেখে খাওয়ার রুচি থাকে না। আমরা বলেছি, বাসা থেকে খাবার দেয়ার অনুমতি দেয়া হোক কিন্তু তা-ও দেয়া হচ্ছে না। ৯০ বছরের একজন বয়স্ক লোকের যে পরিমাণ পুষ্টিকর খাবারের দরকার তা দেয়া হচ্ছে না বলেও তিনি অভিযোগ করেন। এ ছাড়া আমার বাবাকে প্রিজন সেলে একাকী নির্জন পরিবেশে রেখে মানসিকভাবেও কষ্ট দেয়া হচ্ছে।”

তিনি অভিযোগ করে বলেন, “প্রিজন সেলে দেখা করার বিষয়ে আমাদের হয়রানি করা হচ্ছে। কারা কর্তৃপক্ষের এক কর্মকর্তা অনুমতি দিলেও অন্যজন বলছেন দেখা করতে দেয়া হবে না। আমরা বুঝতে পারছি না সমস্যা কোথায়? একজন খুনের আসামিকেও তার চুল দাড়ি কাটার সুযোগ দেয়া হয় কিন্তু এখানে দীর্ঘ ৪০ দিনে সেই অনুমতিও দেয়া হচ্ছে না।”

নির্যাতনের অবসান চাই : মিসেস আফিফা আযম

এ দিকে অধ্যাপক গোলাম আযমের স্ত্রী সৈয়দা আফিফা আযম শনিবার এক বিবৃতিতে বলেন, “আমার স্বামী অধ্যাপক গোলাম আযম প্রায় ৯০ বছর বয়সে বিগত ৩৯ দিন কারান-রীণ অবস্থায় মানবেতর জীবন যাপন করছেন। তাকে এ বয়সে পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন রেখে প্রিজন সেলে একাকী বন্দীজীবন যাপনে বাধ্য করার পাশাপাশি তার প্রয়োজনীয় ন্যূনতম খাবার সরবরাহ করা হচ্ছে না। গত ১৫ ফেব্রুয়ারি জামিনের শুনানির জন্য আদালতে আমার স্বামী নিজেই প্রয়োজনীয় খাবার না খেতে পারার কারণে মৃত্যুর আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন। অত্যন- বিস্ময়ের সাথে লক্ষ্য করছি যে, হাসপাতাল ও কারা কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে সম্পূর্ণ নির্লিপ্ত ও নির্বিকার। বহুবার লিখিত আবেদন করেও উভয় কর্তৃপক্ষ থেকে কোনোরূপ সাড়া বা জবাব পাওয়া যায়নি।”

বিবৃতিতে তিনি বলেন, “দুই সপ্তাহ পর তাকে শনিবার দেখতে যাই। উল্লেখ্য, গত সপ্তাহে কারা কর্তৃপক্ষ পরিবারের সদস্যদের তার সাথে দেখা করতে দেননি। দেখা করতে না দেয়ার ব্যাপারে বারবার জানতে চাওয়ার পরও তাদের নীরবতা রহস্যজনক। ৯০ বছরের একজন বৃদ্ধ, যিনি আন্তর্জাতিকভাবে সম্মানিত একজন ইসলামী চিন্তাবিদ, তার সাথে যে ধরনের অমানবিক আচরণ করা হচ্ছে তা অসহনীয়। আমরা এ ধরনের অমানবিক আচরণ ও অসহনীয় নির্যাতনের অবসান চাই। সেই সাথে আমি আমার স্বামীর খাবারের কষ্টের ব্যাপারে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য মহা কারা পরিদর্শক, স্বরাষ্ট্র সচিব ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।”

 

বার্তা২৪/এসএফ

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট


8 Responses to কারাগারের কোনো খাবারই খেতে পারছেন না গোলাম আযম

  1. Nandi

    February 19, 2012 at 12:01 pm

    71 e joto khayco, r na khayleo cholbo. Se ble abar odapok… Chagole koi ki???

  2. abdur rob

    February 19, 2012 at 1:58 pm

    varoter rajakar sob varote jaw ……………

  3. Tanvir Hassan Tomal

    February 19, 2012 at 10:49 pm

    কে এই শয়তান কে খাবার দেয় দেশের খাবার কি বাশি হইছে না কি?

  4. osman

    February 20, 2012 at 12:07 am

    jara golam azomke rajakar bole gali debe selok islamer dosmon sada r kisui noy.jara jaro sontan tara azomke gali debe r jara geani lok tara onar jonne doa korbe.

  5. abdur rob

    February 20, 2012 at 1:48 pm

    thank,s osman via

  6. Shantir Dhormo Islam

    March 2, 2012 at 9:01 pm

    Golam Ajom ei suorer bachha muktijoddha der mere ebong narider dhorshon kore ekdom Islam sommoto kaj i koreche. Varoter dalal muktijoddhara sob hindur chakor, amader nabi bolechen juddhobondi nari ra bijoyider sompotti, tader sahe sohobot korle kono dosh nei. Ei varoter dalal joto ache sobaike hotta kore bangladesh e shantir dhormo islam protishta korte hobe. Naraye Takbi, Allahu Akbar.

  7. sikiş izle

    March 13, 2012 at 11:02 am

    you are genuinely quantity a single admin your blogging is remarkable i at all times verify your blog i am confident you will be the very best

  8. smackdown oyunları

    March 14, 2012 at 3:24 pm

    I used to be curious about your future submit admin truly needed this blog super astounding blog