Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

আমিন বাজার ট্রাজেডি: মামলার অগ্রগতি জানতে চেয়েছে হাইকোর্ট

ঢাকা,১৬ফেব্রুয়ারি: আমিন বাজারে গণপিটুনিতে ছয় ছাত্রের নিহত ঘটনায় পুলিশের যে সব কর্মকতার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে সে মামলার তদন্তের অগ্রগতি জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট।

আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে এ বিষয়ে তদন্তের অগ্রগতি প্রতিবেদন দিতে বলেছেন তদন্তের দায়িত্বে নিয়োজিত সিআইডি অফিসারকে।

বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের বিচারক ফরিদ আহম্মদ ও বিচারক শেখ হাসান আরিফ’র সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চে এ আদেশ দেন।

আদালত অন্য একটি আদেশে ঢাকার পুলিশ সুপারকে বলেন, “হাইকোর্টের দেয়া রুলের শুনানিতে পুলিশের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়ার যে আদেশ ছিল তা বাস্তবায়নে কতটুকু অগ্রগতি তাও প্রতিবেদ আকারে উপস্থাপন করতে হবে।

২০১১ সালের ২০ জুলাই সাভারের আমিনবাজারে ছয় নিরীহ ছাত্রকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় রুল জারি করেন আদালত।

রুলে জানতে চাওয়া হয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ব্যর্থতাকে কেন সংবিধান পরিপন্থী ও বেআইনী ঘোষণা ও ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের বিরদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ এবং নিহতদের ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে কেন ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ দেয়া হবে না জানতে চান আদালত।

ন্যাশনাল প্রোটেকশন অব হিউম্যান রাইটসের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট তাজুল ইসলাম রিটটি দায়ের করেন।

রিটে বলা হয়, আইনানুযায়ী  জীবন ও ব্যক্তি স্বাধীনতা থেকে কোনো ব্যক্তিকে বঞ্চিত করা যাবে না। এটা রাষ্ট্রের নাগরিকের মৌলিক অধিকার। আইনের আশ্রয় ব্যতীত কোনো ব্যক্তির জীবন, স্বাধীনতা, দেহ বা সম্পত্তি হানি করা যাবে না। সংবিধানের ৩১ ও ৩২ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী নিরীহ ছাত্রের হত্যা করা গুরতর মানবতাবিরোধী অপরাধ।

সংবিধানের ১১ অনুচ্ছেদে মানবসত্তার মর্যাদা ও মূল্যের প্রতি শ্রদ্ধাবোধ নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে। এক্ষেত্রেও ছয়জন নিরীহ ছাত্র হত্যা করা অসাংবিধানিক ও গুরতরভাবে আইনের লঙ্ঘন। সংবিধানের ৩৬ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী বাংলাদেশের সর্বত্র চলাফেরার অধিকার নাগরিকদের রয়েছে।

উল্লেখ্য ২০১১ সালের শবেবরাতের রাতে সাভারের আমিনবাজারে ডাকাত সন্দেহে গণপিটুনিতে ছয়জন নিরীহ ছাত্র নিহত হয়। পুলিশের সহযোগিতায় গ্রামবাসী ওই ছয় ছাত্রকে গণপিটুনি দেয়। এই ঘটনায় সারা দেশের রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠন ও আইনজীবী সমাজ তীব্র নিন্দা, প্রতিবাদ ও গভীর শোক প্রকাশ করে। পুলিশের ইন্ধনে এ ঘটনা ঘটছে বলে দেশের সকল গণমাধ্যমে প্রকাশ পেয়েছিল

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট


2 Responses to আমিন বাজার ট্রাজেডি: মামলার অগ্রগতি জানতে চেয়েছে হাইকোর্ট

  1. sikiş izle

    March 13, 2012 at 11:07 am

    I used to be looking for this fantastic sharing admin significantly thanks and also have good running a blog bye

  2. smackdown oyunları

    March 14, 2012 at 3:24 pm

    Great submit admin! i bookmarked your web blog site. i’ll glimpse ahead should you could have an e-mail variety including.