Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

মিস ইউএসএ ইরিন অখুশি নন পারমিতা

কানেক্টিকাটের সুন্দরী ইরিন ব্রাডি এবার মিস ইউএসএ নির্বাচিত হয়েছেন। ১৬ই জুন লাস ভেগাসে অনুষ্ঠিত এ প্রতিযোগিতায় সবচেয়ে সুন্দরী নারীর মুকুটটি মাথায় তুলেছেন ২৫ বছরের এ তরুণী। রূপে গুণে তিনি হারিয়ে দিয়েছেন স্বদেশের ৫০ অঙ্গরাজ্যের ৫০ সুন্দরীকে। এর ফলে চলতি বছরের ৯ই নভেম্বর রাশিয়ার মস্কোতে অনুষ্ঠেয় মিস ইউনিভার্স প্রতিযোগিতায় যুক্তরাষ্ট্রের হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন তিনি। লাস ভেগাসের প্ল্যানেট হলিউড হোটেল ক্যাসিনোতে অনুষ্ঠিত মিস ইউএসএ প্রতিযোগিতায় সুদর্শনা ও বুদ্ধিদীপ্ত ইরিন বিভিন্ন বিষয়ে বিচারকদের প্রশ্নের জবাব দেন। যুক্তরাষ্ট্রে গ্রপ্তারের পর অপরাধীদের ডিএনএ টেস্ট করানোর সিদ্ধান্তকে সুপ্রিম কোর্টের অনুমোদন দেয়া সমর্থন করেন কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘যদি কেউ অপরাধ সংঘটনে অঙ্গীকারবদ্ধ হয়, তাহলে বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই তা ঘটে। এমন অনেক অপরাধ আছে যেগুলো আমরা এক পা এগিয়ে গেলেই থামাতে পারি। তাই আমি এ সিদ্ধান্তের পক্ষে।’ এ প্রতিযোগিতায় ছিলেন বাংলাদেশের বরিশালে জন্মগ্রহণকারী এবং মিসিসিপিতে বড় হওয়া পারমিতা মিত্র। ২১ বছর বয়সী পারমিতা ৫ ফুট ৫ ইঞ্চি লম্বা এবং ৪ ভাষায় কথা বলতে পারেন। তিনি পড়ছেন মিসিসিপি ইউনিভার্সিটিতে মহাকাশ প্রকৌশল বিষয়ে। একমাত্র ভাই অম্লান মিত্র গ্রাফিক ডিজাইনার এবং পিতা ড. অধ্যাপক অমল মিত্র শিক্ষকতা করেন ইউনিভার্সিটি অব সাউদার্ন মিসিসিপিতে। অমল মিত্র বলেন, আমার মেয়ে স্বাধীনচেতা এবং সে হতে চায় প্রথম বাংলাদেশী নভোচারী। ৫ বছর বয়সে তাকে নিয়ে আমরা আমেরিকায় এসেছি। গত বছর গ্রীষ্মে পারমিতা আমাদের সাথে বাংলাদেশে গিয়েছিল। ঢাকা মেডিকেল কলেজের প্রখ্যাত প্লাস্টিক সার্জন অধ্যাপক শাফকাত হোসেনের নেতৃত্বে ঠোঁটকাটা রোগীদের কাউন্সেলিং করেছে। মানবসেবায় তার ভীষণ আনন্দ। পারমিতার মা রত্না মিত্র বলেন, এতবড় মাপের একটি প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের সুযোগ পাওয়াটাও একটি ভাগ্যের ব্যাপার। ‘মিস মিসিসিপি’ শিরোপা অর্জনের ব্যাপারটিও কম গৌরবের নয়। তবে মিস ইউএসএ প্রতিযোগিতার সকলেই ভীষণ স্মার্ট ছিলেন। আমার কন্যার ভাগ্যে হয়তো মুকুট ছিল না। তবে আমরা সকলে খুব খুশি। পারমিতাও খুশি। বরিশালের স্বরূপকাঠির ইমিগ্র্যান্ট অমল মিত্র সকলের দোয়া চেয়েছেন তার পুত্র-কন্যার সুন্দর ভবিষ্যতের জন্য। অনুষ্ঠানে সান্ধ্যকালীন পোশাকে সাজার জন্য ৫ ফুট ৮ ইঞ্চি উচ্চতার নয়া এই মিস ইউএস ইরিন বেছে নেন লেবুরঙা গাউন। বাদামি চোখ ও চুলের এই সুন্দরী একটি পর্বে পরেছিলেন কমলারঙা বিকিনি। ইরিনকে মিস ইউএসএ-র মুকুট পরিয়ে দেন গতবারের মিস ইউএসএ প্রথম রানারআপ ন্যানা মেরিওয়েদার। মুকুটের পাশাপাশি এক বছর থাকার জন্য নিউইয়র্কের মানহাটনে একটি অভিজাত এপার্টমেন্ট পেয়েছেন ইরিন। প্রথম রানারআপ হন মিস অ্যালাবামা মেরি মার্গারেট ম্যাকর্ড। ইস্ট হ্যাম্পটনের বাসিন্দা ইরিন সেন্ট্রাল কানেক্টিকাট ইউনিভার্সিটি থেকে অর্থনীতিতে স্নাতক করেছেন। হার্টফোর্ডে একটি প্রতিষ্ঠানে হিসাবরক্ষক হিসেবে কাজও করেছেন। আগামীতে এমবিএ পড়ার আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি। সেরা এই সুন্দরীর বিশেষ গুণ হলো রান্না। দাতব্যসেবা নিয়েই তার ভবিষ্যতের নানা পরিকল্পনা। আয়োজকরা জানান, মিস ইউএসএ হিসেবে আমেরিকায় ঘুরে ঘুরে স্তন ও গর্ভাশয়ের ক্যান্সার বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধির কাজ করবেন তিনি। পাশাপাশি মাদকের নেতিবাচক প্রভাবে জর্জরিত পরিবারের শিশুদের সহায়তায় কাজ করারও ইচ্ছা আছে তার। ইরিন বলেছেন, ্তুআমি নিজেই এমন একটি পরিবারে বেড়ে উঠেছি। তাই এমন পরিবারের সমস্যাগ্রস্ত শিশুদের সহায়তা করা গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করি আমি। প্রাপ্তবয়স্ক মাদকাসক্তদের বেশির ভাগই শিশু অবস্থায় মাদকে জড়িয়ে পড়ে আমেরিকায়। তাই এই বৃত্ত থেকে সবাইকে বের করে আনাই আমার লক্ষ্য। এজন্য মাদকাসক্ত শিশুদের সুপথে আসার পরামর্শ দিতে চাই।্থ

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট