Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

চার সিটিতে ভোটগ্রহণ শুরু, ভোটারদের দীর্ঘ লাইন

রাজশাহী, খুলনা, সিলেট ও বরিশাল সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। ভোটগ্রহণ শুরুর আগে কেন্দ্রে ভোটারদের দীর্ঘ সারিতে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। নির্ধারিত সময়েই চার সিটিতে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে।
চার সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে নিরাপত্তা রক্ষায় ১১৮টি মোবাইল টিম ও ৪০টি স্ট্রাইকিং ফোর্স নিয়োজিত রয়েছে। এছাড়া চার সিটিতে ২১ প্লাটুন বিজিবি ও খুলনা এবং বরিশাল সিটি কর্পোরেশনে নির্বাচনে পাঁচ প্লাটুন কোস্টগার্ড নিয়োজিত করা হয়েছে।
নির্বাচনী এলাকায়  মোবাইল ও স্ট্রাইকিং ফোর্সের সঙ্গে ৯১ জন এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট  (নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট) কাজ করছেন।  নির্বাচন চলাকালে সংঘটিত অপরাধের তাৎক্ষণিক বিচারের জন্য প্রতিটি সিটি কর্পোরেশন এলাকায় পাঁচজন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট  মোতায়েন করা হয়েছে। এ ছাড়া নির্বাচনী এলাকায় শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষার্থে মোবাইল টিম, স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে দায়িত্ব পালনের জন্য পুলিশ, এপিবিএন, র‌্যাব, কোস্টগার্ড ব্যাটালিয়ন, আনসার ও বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। প্রতি ওয়ার্ডের জন্য একটি মোবাইল ফোর্স ও তিনটি ওয়ার্ডের জন্য একটি স্ট্রাইকিং ফোর্স নিয়োজিত থাকবে।
প্রত্যেক ভোটার যাতে নির্বিঘ্নে ও নিরাপদে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেন, সে লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। নির্বাচন কমিশন চার সিটি কর্পোরেশনের ভোটারদের শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটদানের জন্য আহ্বান জানিয়েছে।
এছাড়া চার সিটি কর্পোরেশনের প্রত্যেকটিতে একটি করে ওয়ার্ডে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণ করা হচ্ছে।  ভোটগ্রহণের জন্য যাবতীয় সামগ্রী নির্বাচনী এলাকায় পাঠানো হয়েছে গতকালই। এ জন্য এক লাখ বিশ হাজার ৮০ জন  ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাকে নিবিড় প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছেন ৬৫৩ জন প্রিজাইডিং অফিসার, তিন হাজার আটশ নয় জন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার এবং সাত হাজার ৬১৮ জন  পোলিং অফিসার। ভোটাররা যাতে করে মোবাইল ফোনে এসএমএস-এর মাধ্যমে তাদের ভোটার নম্বর ও কেন্দ্রের নাম জানতে পারেন, সে ব্যবস্থাও করা হয়েছে বলে নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট