Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

আতঙ্ক ছড়ানোর শঙ্কায় কামরান, প্রশাসনের নিরপেক্ষতা চান আরিফ

সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটের মাঠে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ শুরু করেছেন মেয়র প্রার্থীরা। তবে এবার খোদ ১৪ দলের মেয়র প্রার্থী বদরউদ্দিন আহমদ কামরান আগে অভিযোগ তুললেন। তিনি জানিয়েছেন, ভোটের মাঠে ইতিমধ্যে
বিরোধী সমর্থকরা আতঙ্ক ছড়াতে শুরু করেছে। তবে আরিফ জানিয়েছেন, নির্বাচন অবাধ করতে প্রশাসনকে নিরপেক্ষ ভূমিকা পালন করতে হবে। অন্যদিকে প্রশাসন জানিয়েছে, নির্বাচন অবাধ করতে শুরু হয়েছে অস্ত্রবাজ সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তার অভিযান। সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচন নিয়ে এবার শঙ্কার কারণ হচ্ছে, মাঠে দেশের রাজনৈতিক প্রধান দু’টি জোটের সমর্থনে রয়েছেন দু’জন প্রার্থী। সিলেটের সাবেক মেয়র বদরউদ্দিন আহমদ কামরান রয়েছেন ১৪ দলের সমর্থনে। আর আরিফুল হক চৌধুরী রয়েছেন ১৮ দলের সমর্থনে। এখনও সিলেট বিএনপির পুরো অংশটি আরিফকে সমর্থন না দিলেও কোন কোন রাজনৈতিক দলের নেতারা প্রকাশ্যে মাঠে নামায় নির্বাচন নিয়ে ব্যাপক শঙ্কা তৈরি হয়েছে। বিরোধী সমর্থকদের ইঙ্গিত করে কামরান বলেছেন, বিভিন্ন স্থানে তারা আনারস প্রতীকের ব্যানার ও ফেস্টুন ছিঁড়ে ফেলছে। নেতাকর্মীদের ভয়-ভীতির মধ্যে রাখছে। তিনি বলেন, সিলেটের মানুষ শান্তিপ্রিয়। এখনও সামাজিক, রাজনৈতিক ও ধর্মীয় সমপ্রীতি চমৎকার। অতীতে নগর ভবন পরিচালনার সময় কখনও কোন বিশেষ মহলের স্বার্থ দেখা হয়নি। সব দল ও মতের মানুষের চাহিদা পূরণের চেষ্টা করা হয়েছে। একই সঙ্গে সাধারণ মানুষের মধ্যে ঐক্য স্থাপন করা হয়েছে। তিনি বলেন, বিগত সব ক’টি নির্বাচনই অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ হয়েছে। এম সাইফুর রহমান ভোটের মাঠে থাকাকালে উৎসবমুখর পরিবেশে নির্বাচন হয়েছে। কিন্তু এবার প্রচারণার শুরু থেকে ভোটের মাঠের পরিস্থিতি ঘোলা করার প্রক্রিয়া চালানো হচ্ছে। তিনি বলেন, তার সমর্থকরা সব কিছু ধৈর্যের সঙ্গে মোকাবিলা করছেন। তার পক্ষ থেকে অবাধ নির্বাচনের জন্য যা যা করা প্রয়োজন সব করবেন বলে জানান। তবে, এসব অভিযোগ অস্বীকার করে ১৮ দলীয় জোটের প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী জানিয়েছেন, নির্বাচন উৎসবমুখর পরিবেশে অনুষ্ঠানের জন্য প্রশাসনকে নিরপেক্ষ হতে হবে। প্রশাসন নিরপেক্ষ ভূমিকা রাখলে সব সহায়তা করা হবে। তিনি বলেন, নির্বাচনের শুরু থেকে পুলিশ ও প্রশাসন নিয়ে তার সমর্থকদের হয়রানি করার চেষ্টা করছে- যা অতীতে কখনও ঘটেনি বলে দাবি করেন তিনি। বলেন, এবার টেলিভিশন জনগণের প্রতীকে পরিণত হয়েছে। সাধারণ মানুষ এবার জেগে উঠেছে। এই প্রতীকের জয় হবে বলে তিনি আশাবাদী। একই সঙ্গে তিনি প্রশাসনকে মাঠ নিরপেক্ষ রাখতে এখনই উদ্যোগ নেয়ার আহ্বান জানান। এদিকে, সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনের শুরু থেকেই মাঠ উত্তপ্ত হওয়ার আশঙ্কা উড়িয়ে দেয়া যাচ্ছে না। সিলেটে সন্ত্রাসী ও অস্ত্রবাজ এবং ছিনতাইকারীদের আধিপত্য লক্ষ্য করা গেছে। এ নিয়ে নগরবাসীর মধ্যেও কিছুটা ভয় ও শঙ্কা কাজ করছে। তবে, প্রশাসন থেকে এরই মধ্যে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ জানিয়েছে, সিলেটে নির্বাচনের মাঠ স্বাভাবিক রাখতে ইতিমধ্যে প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। সিলেটের সন্ত্রাসীদের একটি খসড়া তালিকা প্রস্তুত করা হয়েছে। আর এই তালিকার সূত্র ধরে নগরীতে অভিযান চলছে। সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার এজাজ আহমদ জানিয়েছেন, নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠুভাবে পালন করতে মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের সহায়তা প্রয়োজন। প্রশাসন নিরপেক্ষ থেকে কাজ করবে। এবং এই নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য সহায়তার হাত বাড়াতে হবে প্রার্থীদের। তিনি বলেন, পুলিশি অভিযান ইতিমধ্যে সফলতা পেয়েছে। সিলেট নগরীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে দু’টি আগ্নেয়াস্ত্র সহ বিপুল পরিমাণ দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। আটক করেছে ১৬ জনকে। তিনি জানান, পুলিশ অভিযানে আছে। যেখানেই অভিযোগ আসবে সেখানেই অভিযান চালানো হবে।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট