Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

অভিবাসন বিলে সিনেট প্যানেলের অনুমোদন, উদ্যোগের প্রশংসায় প্রেসিডেন্ট ওবামা

যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসকারী ১১ মিলিয়ন কাগজপত্রহীন অভিবাসীর নাগরিকত্ব লাভে অভিবাসন সংস্কারে খসড়া বিলটি মঙ্গলবার অনুমোদন করেছে সিনেট প্যানেল। এ অনুমোদনের মাধ্যমে অভিবাসন নীতিতে আগামী মাসে সিনেটের পূর্ন অধিবেশনে আলোচনার পথ প্রসস্থ হলো। অভিবাসন নীতিতে অগাধিকারে রাখা প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা সিনেট জুডিশিয়াল কমিটির নেয়া এ পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছেন। বিলটি আইন হিসেবে পাস হতে জুনেই সিনেটের পূর্ণ অধিবেশনের ভোটে দেওয়া হবে। এর ফলে, ভাগ্য খুলে গেল দক্ষ হাইটেক কর্মীদের। ভারত ও অন্যান্য দেশের পাশাপাশি এখন বাংলাদেশের দক্ষ কম্পিউটার কর্মীরা যোগ্যতা দিয়ে ‘স্বপ্নের দেশ’ যুক্তরাষ্ট্রে নাগরিকত্ব লাভের সুযোগ পাবেন। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো, সিনেট জুডিসিয়ারি কমিটিতে রিপাবলিকান ও ডেমোক্র্যাট দু’দলের চাওয়া-পাওয়ার একটি সমঝোতায় অবশেষে ১৩-৫ ভোটে এ বিলটি পাস হয়েছে। এছাড়া দু’দলের সমঝোতার ক্ষেত্রে এতে সমকামীদের অধিকার নিয়ে কিছু বিষয় বাড়তি যোগ করা হয়েছে। উল্লেখ্য, অভিবাসন সংস্কারে খসড়া বিলটিতে সমকামী ও বিদেশি দক্ষ শ্রমিকদের বিষয় নিয়ে সৃষ্ট জটিলতায় অত্যন্ত কষ্টসাধ্য সমঝোতা প্রক্রিয়ায় ৫ দিনে ৩০১টি সংশোধনী চূড়ান্ত করা হয়। কমিটির এই অবস্থানের প্রশংসা করেছেন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। হোয়াইট হাউস থেকে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে ওবামা বলেছেন, দ্বিপাক্ষিক এই বিলটিকে সম্ভাব্য সুযোগ ব্যবহার করে দ্রুততার সঙ্গে সিনেটে পূর্ণাঙ্গ বিতর্কে তোলার জন্য আমি সিনেটকে উৎসাহিত করছি আর এর মাধ্যমে বিষয়টির আরো অগ্রগতি হবে বলে আশা করছি। প্রস্তাবিত বিলে আগামী ১৩ বছরের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত ১ কোটি ১০ লাখ অভিবাসীকে বৈধ করে নেওয়ার কৌশল গ্রহণ করা হয়েছে। এছাড়া এতে মেঙিকোর সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণপশ্চিমাঞ্চলজুড়ে বিস্তৃত সীমান্তে আরো কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশও করা হয়েছে। এই সীমান্ত পথেই সবচেয়ে বেশি অবৈধ অভিবাসী যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করে। উল্লেখ্য, দীর্ঘ প্রায় ২৫ বছর ধরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসন আইন সংস্কারে ও কাগজপত্রহীন ইমিগ্র্যান্টদের কোনো সফল উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়নি।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট