Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

জনগণ পাশে থাকলে কোন ষড়যন্ত্র সফল হয় না

আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আওয়ামী লীগ নিঃশেষ করার জন্য অতীতে বহু ষড়যন্ত্র হয়েছে। কিন্তু কোন ষড়যন্ত্রই সফল হয়নি। সর্বশেষ হেফাজতের ঘাড়ে পা দিয়ে বিএনপি সরকার উৎখাতের ষড়যন্ত্র করেছিল। কিন্তু তাদের চক্রান্ত সফল হয়নি। জনগণ পাশে থাকলে কোন ষড়যন্ত্রই সফল হয় না।  সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এটি ছিল দলের কার্যনির্বাহী সংসদের মুলতবি বৈঠক। বৈঠকের শুরুতে শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, যুব মহিলা লীগের পক্ষ থেকে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়।
বৈঠকের শুরুতে ১৯৮১ সালে শেখ হাসিনার দেশে ফেরার প্রেক্ষাপট তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন দলের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। এরপর স্মৃতিচারণ করেন সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী। পরে শেখ হাসিনা কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকের সূচনা বক্তব্য রাখেন। তার বক্তব্যেও ছিল দেশে ফেরার স্মৃতিচারণ।
প্রধানমন্ত্রী বিরোধী দলের আন্দোলনের সমালোচনা করে বলেন, ৪ঠা মে হুমকি দেয়া হলো- পালানোর পথ পাবো না। ৫ই মে হেফাজতকে বসিয়ে দেয়া হলো। মাদরাসার বাচ্চা বাচ্চা ছেলেদের ব্যবহার করে তাদের ঘাড়ে পা দিয়ে, সরকার উৎখাতের ষড়যন্ত্র করা হলো। অনেক জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র ছিল। অনেকেই খেলেছে। জনগণের সমর্থন থাকলে কোন ষড়যন্ত্র কাজে আসে না। দেশে ফেরার স্মৃতিচারণ করে তিনি বলেন, আমাকে বারবার ট্রাভেল করতে হয়েছে। প্রতিনিয়ত মৃত্যুর মুখোমুখি দাঁড়াতে হয়েছে। আমার বাবার খুনি হুদা আর রশীদকে নিয়ে ইত্তেফাকের মইনুল হোসেন পার্টি করেন। ফারুককে এরশাদ হেলিকপ্টার দেয়। কর্নেল রশীদ আর হুদাকে বেগম জিয়া সংসদে বসায়। আমার রাজনীতি শেষ করতে এই খুনিদের বারবার ব্যবহার করেছে। আমার বাবা-মার খুনি দেখে যেন আমি ভয় পেয়ে যাই। কিন্তু আমি ভয় পাইনি। আমি চেয়েছি যাতে তাদের বিচার হয়। তাদের বিচার হয়েছে। বৈঠকে দলের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতারা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠক সূত্র জানায়, চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি এবং আগামী নির্বাচন ও নিবাচনকালীন সরকার পদ্ধতি নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট