Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে প্রথম ওয়ানডে আজ

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাংলাদেশের ওয়ানডে সিরিজ যতটা না প্রতিশোধের তার চেয়ে বেশি মর্যাদার। ২০১১ সালে ৫ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে বাংলাদেশ হেরে ফিরেছিল ৩-২ ব্যবধানে। এবার জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। আজ প্রথম ওয়ানডে ম্যাচটি বুলাওয়েতে শুরু হবে বাংলাদেশ সময় দুপুর ১টায়। টেস্ট সিরিজে প্রথম ম্যাচ পরাজয় বাংলাদেশেকে ঠেলে দিয়েছিল অন্ধকারে। কিন্তু পরের ম্যাচেই দুর্দান্ত ব্যাটিং আর বোলিং দিয়ে তুলে নিয়েছে ১৪৩ রানের জয়। এই জয়ে সিরিজে শুধু সমতাই ফিরেনি পুনরুদ্ধার হয়েছে হারানো সম্মানও। আজ ওয়ানডে মিশনে তাই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে বাংলাদেশ জয়  ছাড়া বিকল্প কিছুই ভাবছে না। কারণ টেস্ট জয়ের মধ্য দিয়ে তারা ফিরে পেয়েছে হারানো আত্মবিশ্বাসও। তবে টেস্টের তুলনায় বাংলাদেশ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে অনেক বেশি সফল। এই পর্যন্ত ৫৬টি ম্যাচের ৩০টিতে বাংলাদেশ জয় তুলে নিয়েছে। আর হেরেছে ১৯টিতে। বাংলাদেশের অধিনায়ক মুশফিকুর রহীমের সামনে এখন চার বছর পর চতুর্থ টেস্ট জয়ের সুখ স্মৃতি আর আত্মবিশ্বাস।
এই পর্যন্ত বাংলাদেশ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ১২টি দ্বি-পক্ষীয় ওয়ানডে সিরিজ খেলেছে। যার মধ্যে ২০০৪-৫ সালে প্রথম সিরিজে জয় পায় বাংলাদেশ। এরপর আরও ৬টি দ্বি-পক্ষীয় সিরিজে বাংলাদেশ জয়  পেয়েছে। তবে ২০১১ সালে বাংলাদেশ সর্বশেষ সিরিজে বাংলাদেশ হেরে যায়। তবে ৫ ম্যাচ সিরিজের শেষ দু’টিতে বাংলাদেশ ৫ উইকেট আর ৯৩ রানের জয় নিয়ে ফিরেছিল। আর এই জয় দু’টি ছিল বুলাওয়ের মাঠেই। এই মাঠে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাংলাদেশ ৬টি ম্যাচে জিতেছে আর দু’টিতে জিম্বাবুয়ে। তাই আজ বুলাওয়েতে জয়ের স্মৃতি নিয়ে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। মুশফিকুর রহীমও এই মাঠে নিজের জয়ের স্মৃতিকে প্রাধান্য দিয়ে বলেছেন, ‘আমরা ম্যাচের শুরুর উপর গুরুত্ব দিচ্ছি। শুরুটা ভাল করতে চাই। এছাড়া এই মাঠে আমাদের অর্জনও অনুপ্রেরণা হয়ে থাকবে।’
দলের ওপেনিং থেকে বাদ পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে জহুরুলের। সুযোগ আসতে পারে শামসুর রহমান শুভ’র। শেষ টেস্টে ব্যাট হাতে না হলেও বল হাতে নিজেকে প্রমাণ করেছেন জিয়াউর রহমান। তাই দলের একজন পেস আলরাউন্ডার রাখাটাই উচিত মনে করবেন টিম ম্যানেজমেন্ট। আর জিয়াকে জায়গা দিতে বাদ ওয়ানডে থেকেও বাদ পড়তে পারেন সহ-অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ। এছাড়াও জিম্বাবুয়েতে পেসারদের সফলতায় দল খেলবে বাড়তি পেসার নিয়ে। তাই ইনজুরি কাটিয়ে দলে ফিরতে পারেন শফিউল ইসলাম। আর স্পিন আক্রমণে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৫১টি উইকেট নেয়া সাকিবের সঙ্গে থাকবেন দলের অপরিহার্য স্পিনার হয়ে ওঠা সোহাগ গাজী। তবে এই পর্যন্ত জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সর্বোচ্চ ৫৫টি উইকেট নেয়া আবদুর রাজ্জাক দলের স্পিন আক্রমণকে আরও শানিত করবে ওয়ানডেতে। বলা চলে পেস আর স্পিনের যুগলবন্দিতে টেস্টের মতো ওয়ানডেতে জিম্বাবুয়েকে বধ করার পরিকল্পনা বাংলাদেশ দলের।
বুলাওয়েতে বাংলাদেশের ভাল করার একটি রহস্যও লুকিয়ে আছে। তাহলো এখনকার উইকেটের আচরণ অনেকটা উপ-মহাদেশের মতো। যা বাংলাদেশের জন্য অনেক আনন্দের একটি কারণ। এখনকার উইকেট বেশ স্লো যেমনটা উপ-মহাদেশে হয়ে থাকে। আর এখনকার শীতল জলবায়ু দুই দলের জন্যই সুফল বয়ে আনবে।
বাংলাদেশ সম্ভাব্য একাদশ:
তামিম ইকবাল, জহুরুল ইসলাম/শামসুর রহমান,  মো. আশরাফুল, মুশফিকুর রহীম (অধিনায়ক), সাকিব আল হাসান, নাসির হোসেন, মাহমুদুল্লাহ/জিয়াউর রহমান, সোহাগ গাজী, আবদুর রাজ্জাক, শফিউল ইসলাম, রবিউল ইসলাম।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট