Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

২ মে দাওয়াতে ইসলামের আত্মপ্রকাশ পৃষ্ঠপোষক ইসলামিক ফাউন্ডেশন!

নাটোর:‘দাওয়াতে ইসলাম’ নামে নতুন একটি ধর্মীয় সংগঠন আত্মপ্রকাশ করতে যাচ্ছে।২ মে জাতীয় প্রেস ক্লাবে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এই সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণা করা হবে। এ জন্য সারা দেশে সফর ও প্রচার-প্রচারণা চালানো হচ্ছে। আর এর পৃষ্ঠপোষকতায় রয়েছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন্।

ইতিমধ্যে গত শুক্র ও শনিবার সারা দেশ থেকে উপজেলা পর্যায়ের ফাউন্ডেশনের কেয়ারটেকারদের ঢাকায় ডেকে নিয়ে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে তাদের বিশ্বস্ততা যাচাই করতে নেয়া হয়েছে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষা। পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ব্যক্তিদের মাধ্যমে ইতিমধ্যে সারা দেশে এই নতুন সংগঠনের পোস্টার ও লিফলেট পাঠানো হয়েছে । আগামী  ২ মে জাতীয় প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে ৫০১ সদস্যের কমিটি ঘোষণা করা হবে।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, মহান আল্লাহ, তার রাসুল  (সাঃ)  ও পবিত্র কোরআন-হাদিস নিয়ে কিছুসংখ্যক ব্লগারের কটূক্তি ও বিদ্রূপের বিচারের দাবিতে দেশজুড়ে হেফাজতে ইসলামের আন্দোলন সামাল দিতেই মূলত এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। আর এ জন্য মাঠে নেমেছেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক সামীম মোহাম্মদ আফজাল।

গত কয়েক সপ্তাহে সামীম মোহাম্মদ আফজাল রাজশাহী, পাবনা, নাটোরসহ দেশের গুরুত্বপূর্ণ বেশির ভাগ জেলা সফর করেছেন। সেসব জেলার ইসলামিক ফাউন্ডেশনের  আওতাধীন মসজিদের ইমাম, মুয়াজ্জিন, মসজিদভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রমের শিক্ষক ও লাইব্রেরিয়ানদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। এসব মতবিনিময় সভায় তিনি হেফাজতে ইসলামের আন্দোলন ও দেশের প্রচলিত ইসলামী ব্যাংকিংয়ের কঠোর সমালোচনা করেন।

এ ব্যাপারে হেফাজতে ইসলামের নেতারা অভিযোগ করেন, অখ্যাত ও বিতর্কিত কিছু আলেমকে দিয়ে হেফাজতের সমালোচনা করার জন্য বিভিন্ন সভা-সমাবেশ করে সাড়া না পেয়ে এবার  দাওয়াতে ইসলাম নামে একটি ধর্মীয় সংগঠন মাঠে নামাচ্ছেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক । এ লক্ষ্যে সারা দেশ থেকে চিঠি দিয়ে ডেকে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ২২৫ জন উপজেলা মডেল কেয়ারটেকারকে শুক্রবার ও ২২৫ জন উপজেলা সাধারণ কেয়ারটেকারকে শনিবার ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সম্মেলনকক্ষে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়।

হেফাজতের নেতারা আরো অভিযোগ করেন, হেফাজতে ইসলাম, বিএনপি ও জামায়াত-সমর্থিত কোনো আলেম-ওলামা যেন এই সংগঠনে ঢুকে না যান, সে জন্য লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষার মাধ্যমে যাচাই করা হয়েছে তাদের বিশ্বস্ততা। পরীক্ষার একটি প্রশ্নে জানতে চাওয়া হয়েছে, ‘দেশের চলমান সংকট মোকাবেলায় কার পক্ষ নেয়া জরুরি- হেফাজতে ইসলাম, জামায়াতে ইসলামী, না আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআত?’

প্রশিক্ষণে অংশ নেয়া একজন নাম প্রকাশ না করার শর্তে নতুন বার্তা ডটকমকে জানান, এসব পরীক্ষা ও প্রশিক্ষণে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক সামীম মোহাম্মদ আফজাল এবং নতুন এই সংগঠনের আহ্বায়কসহ ফাউন্ডেশনের অন্য কর্মকর্তারা বক্তব্য দেন।

পরীক্ষায় অংশ নেয়া নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক রাজশাহী, নাটোর ও পাবনার একাধিক সাধারণ কেয়ায়টেকার ও মডেল কেয়ারটেকার নতুন বার্তা ডটকমকে জানান, পরীক্ষার সব প্রশ্নই ছিল ১৫ আগস্ট ও চলমান সংকট সম্পর্কে। পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারীদের মানসিকতা পরখ করাই ছিল এর উদ্দেশ্য।

তারা আরো জানান, ঢাকায় যাতায়াতের জন্য প্রতিজনে যে খরচ হয়েছে, তার আংশিক নগদ দেয়া হয়েছে। বাকিটা পরিশোধের জন্য ইসলামিক ফাউন্ডেশনের জেলা কার্যালয়কে নির্দেশসংবলিত একটি চিঠি দেয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ ইমাম ওলামা কল্যাণ পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ মাওলানা মোঃ জহিরুল ইসলাম মিঞা ওরফে মোস্তাকীম হুজুর নতুন বার্তা ডটকমকে জানান, তাকে আহ্বায়ক করে সৃষ্ট সংগঠনের  ৫০১ সদস্যের কমিটি আগামী  ২ মে জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে ঘোষণা করা হবে।  এ লক্ষ্যে তিনি এখন সারা দেশ সফর করছেন। ৩৩ পুরানা পল্টনে এই সংগঠনের প্রধান কার্যালয় করা হয়েছে।

হেফাজতে ইসলাম সম্পর্কে তার প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে মাওলানা মোঃ জহিরুল ইসলাম বলেন, “হেফাজতের সঙ্গে তাদের কোনো সরাসরি সংঘর্ষ নেই। যেহেতু হেফাজতের বর্তমান দাবি বা কর্মকাণ্ডে জামায়াতের বিরুদ্ধে কোনো তৎপরতা নেই, সেহেতু আমরা তাদের সঙ্গে দ্বি-মত পোষণ করছি।”

ইতিমধ্যে বিতরণ করা দাওয়াতে ইসলামের পোস্টারে বলা হয়েছে, হরতাল-অবরোধ ইসলাম রক্ষার পদ্ধতি নয়। নফল রোজা  ও দোয়া-মোনাজাতের মাধ্যমে আল্লাহর কাছে পানাহ চাইতে হবে। এ ছাড়া মদিনা সনদের আলোকে দেশ গড়া, মসজিদভিত্তিক মক্তবের শিক্ষকদের সম্মানী চালু, কওমি মাদ্রাসার শিক্ষকদের চাকরির ব্যবস্থা এবং ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মসজিদভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রমে নিয়োজিত শিক্ষকদের চাকরি স্থায়ী করার কথা বলা হয়েছে পোস্টারে। কাদিয়ানি-জামায়াত-শিবির ও কটূক্তিকারী ব্লগার একই জাতের বলেও লেখা হয়েছে।

তাদের লিফলেটে বলা হয়েছে, আহম্মদ শাহ শফী হুজুর শাহবাগ চত্বরের তরুণ প্রজন্মের দেশপ্রেম ও ইসলামের অনুভূতি সম্পর্কে সঠিক জানেন না বলেই এই আন্দোলন করছেন। এটা জাতির জন্য দুর্ভাগ্য। হেফাজতের ১৩ দফা দেশে বিশৃঙ্খৃলা সৃষ্টির পাঁয়তারা, বঙ্গবন্ধু ইসলামের যতটা খেদমত করেছেন গত ৪২ বছরে কেউ তা করেনি, জিয়াউর রহমান সংবিধানে আল্লাহর ওপর পূর্ণ আস্থা ও বিশ্বাস অন্তর্ভুক্ত করলেও তিনি মদের লাইসেন্স দিয়েছিলেন বলে লিফলেটে প্রচার করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে জানতে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক সামীম মোহাম্মদ আফজালের সঙ্গে যোগাযোগ করলে  তিনি কোনো কথা বলতে রাজি হননি। তিনি হাসপাতালে ভর্তি আছেন জানিয়ে নতুন বার্তা ডটকমকে বলেন, চেহারা না দেখে কারো সঙ্গে তিনি একজন প্রতিষ্ঠানের প্রধান হিসেবে কথা বলতে চান না। তিনি এসব ব্যাপারে কথা বলতে তার চেম্বারে দেখা করতে বলেছেন।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট