Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

বিদেশী মিডিয়ার রিপোর্ট: মতিঝিল পরিণত হয়েছিল সাদা পোশাকের সমুদ্রে

হেফাজতে ইসলামের সমাবেশের সময় মতিঝিল পরিণত হয়েছিল সাদা পোশাকের এক সমুদ্রে। এতে যোগ দেন কয়েক লাখ ধর্মপ্রাণ মুসল্লি। তারা প্রত্যন্ত গ্রাম থেকে আসা। হেফাজতে ইসলামের লংমার্চ ও সমাবেশকে কেন্দ্র করে গতকাল এ কথা লিখেছে বার্তা সংস্থা এএফপি। লংমার্চকে কেন্দ্র করে গতকাল বিদেশী মিডিয়াও ছিল বেশ সরব। প্রায় সব মিডিয়া এ নিয়ে ফলাও করে রিপোর্ট প্রকাশ করে। এএফপি’র রিপোর্টে আরও বলা হয়, রাতভর লংমার্চ করে হাজার হাজার ইসলামপন্থি মানুষ জড়ো হন ঢাকায়। তাদের দাবি নাস্তিক ব্লগারদের শাস্তি। বাংলাদেশে এটাই সর্বশেষ প্রতিবাদ, যেখান থেকে বাংলাদেশে পীড়ন শুরু হয়েছে। এর মাধ্যমে ধর্ম নিরপেক্ষতার পক্ষ ও দেশের সবচেয়ে বড় ইসলামি দল জামায়াতে ইসলামীর মধ্যে উত্তেজনা আরও গভীর থেকে গভীরতর হয়েছে। হেফাজতে ইসলামের এই লংমার্চে অংশ নেন প্রত্যন্ত গ্রামের মানুষ। তারা পায়ে হেঁটে এতে যোগ দিয়েছেন। সমাবেশে যোগ দেয়া মানুষের সংখ্যা কমপক্ষে ৫ লাখ। এ সময় বাংলাদেশের বাণিজ্যিক প্রাণকেন্দ্র মতিঝিল পরিণত হয় সাদা পোশাকের এক সমুদ্রে। এতে যোগ দিয়েছেন ঢাকা থেকে ২০ কিলোমিটার দূরে একটি মসজিদের ইমাম শহিদুল ইসলাম। তিনি বলেন, এ সমাবেশে যোগ দিয়েছি ইসলামের জন্য। আমরা কোন ব্লগারকে ইসলাম ও মহানবী হযরত মোহাম্মদ (সা.)কে অবমাননা করতে দিতে পারি না। অনলাইন আল জাজিরায় বলা হয়, ইসলামকে অবমাননাকারী ব্লগারদের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড দেয়ার আইনের দাবিতে ঢাকায় লংমার্চ করলেন হেফাজতে ইসলামের লাখ লাখ মুসল্লি। শুক্রবার থেকে ঢাকা ছিল দেশের অন্যান্য অংশ থেকে বিচ্ছিন্ন। লংমার্চ ঠেকাতে ধর্মনিরপেক্ষবাদীরা ২২ ঘণ্টার হরতাল আহ্বান করায় এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়। এদিন ফরিদপুরের ভাঙ্গায় হেফাজতে ইসলাম ও আওয়ামী লীগের সদস্যদের মধ্যে সংঘর্ষে নওশের খান নামে এক আওয়ামী লীগ নেতা নিহত হওয়ার খবরও দেয়া হয়। এ বিষয়ে ৭১ টেলিভিশনের আউটপুট প্রধান শাকিল আহমেদ আল জাজিরাকে বলেছেন, শনিবারের এই বিক্ষোভ ছিল শান্তিপূর্ণ। দু’পক্ষ থেকেই এ নিয়ে ভুল তথ্য দেয়া হচ্ছিল। অনেক নেতাকর্মী এ নিয়ে ভুল তথ্য প্রচার করেছেন। অনলাইন বিবিসি লিখেছে, ইসলাম অবমাননাকারী ব্লগারদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নিতে হেফাজতে ইসলাম মতিঝিলে সমাবেশ করে। কিন্তু এই লংমার্চ উপলক্ষে সব বাস ও নৌপরিবহন বন্ধ রাখা হয়েছিল। এর বিরোধিতাকারীরা দিনব্যাপী হরতাল করেছে। বার্তা সংস্থা এপি লিখেছে, ইসলাম অবমাননাকারীদের কঠোর শাস্তির বিধান রেখে আইন করার দাবিতে কয়েক লাখ মুসল্লি সমবেত হন মতিঝিলে। নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগের মধ্যে এ সমাবেশ হলো।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট