Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

জরুরি আইন জারি করতেই পরিকল্পিত বিশৃঙ্খলা সরকারের সৃষ্টি: ড. মোশাররফ

সরকার জরুরি আইন জারি করতেই পরিকল্পিতভাবে সারা দেশে বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি করছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। বলেছেন, সারা দেশে সরকারের লোকজনই ককটেল বিস্ফোরণ ঘটাচ্ছে। সরকার গোয়েন্দা বাহিনী দিয়ে বিএনপির গত বুধবারের সমাবেশকে পণ্ড করে দিয়েছে। পাখির মতো গুলি করেছে। এতে নজরুল ইসলাম খানসহ বিএনপির সিনিয়র নেতারা আহত হয়েছেন। সন্ত্রাস করে আমাদের সমাবেশ করতে দেয়া হয়নি। আসলে জরুরি অবস্থা জারি করতেই সরকার পরিকল্পিতভাবে সারা দেশে এ বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি করেছে। ৭ই মার্চ বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের কারাবরণের ৬ষ্ঠ বার্ষিকী উপলক্ষে জাতীয় প্রেস ক্লাবে ছাত্রদল আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এ অভিযোগ করেন। ড. মোশাররফ বলেন, সরকার জাতিকে বিভক্ত করতে চায়। তাই একদিকে ইসলামের পক্ষের মানুষ আর অন্যদিকে মুরতাদ ও কাফেরদের দাঁড় করিয়ে দিয়েছে। একটি পক্ষকে আরেকটির বিপক্ষে দাঁড় করিয়ে দিয়ে সরকার জাতিকে জাতিকে বিভক্ত করতে চায়। স্বাধীনতার ৪২ বছর পরে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষ-বিপক্ষের শক্তির কথা বলেও জাতিকে বিভক্ত করতে চায়। তিনি বলেন, সরকার নিজেই সন্ত্রাস করছে আবার ব্যর্থতা ঢাকতে সন্ত্রাস দমনের নামে কমিটি করছে। আসলে বিরোধী দলকে নিশ্চিহ্ন করতেই সরকার সন্ত্রাস দমন কমিটি করছে। নইলে যেখানে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী রয়েছে, সেখানে সন্ত্রাস দমন কমিটি কেন? সরকারের কারণেই আমরা দেশ ও জনগণকে রক্ষায় কমিটি ফর পাবলিক সেফটি গঠন করছি। পাল্টাপাল্টি এ কমিটি গঠনের কারণে দেশে সহিংসতার সৃষ্টি হলে সরকারকেই তার দায়-দায়িত্ব বহন করতে হবে। ড. মোশাররফ বলেন, জনগনের অধিকার প্রতিষ্ঠা ও জানমাল রক্ষায় বিরোধীদল সরকার পতনের এক দফার আন্দোলনের ঘোষণা দিয়েছে। এ আন্দোলনের মাধ্যমে সরকারকে বিদায় করতে ছাত্রদলকে ভ্যানগার্ড হিসেবে সামনে থাকতে হবে। সেই সঙ্গে একদফার আন্দোলনে জাতীয়তাবাদী গণতান্ত্রিক শক্তিকে সামিল হওয়ার আহ্বান জানান তিনি। ছাত্রদলের সভাপতি আবদুল কাদের ভূঁঁইয়ার সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শওকত মাহমুদ ও ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন, বিএনপির ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক শহিদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী এমপি, প্রফেসর ড. পিয়াস করিম, প্রফেসর তাজমেরী এস ইসলাম ও বিএনপির সহ-ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু প্রমুখ বক্তব্য দেন।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট