Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

‘আর প্রতিবাদ নয়, এবার কার্যকর প্রতিরোধ’

সরকার বর্বরভাবে মানুষ হত্যা করছে অভিযোগ করে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকা বলেছেন, সরকারের নিষ্ঠুর আচরণের প্রতিবাদ নয়, এবার কার্যকর প্রতিরোধ গড়ে তোলা হবে। সাম্প্রতিক সময়ে সারা দেশে পুলিশের গুলিতে নিহতের স্মরণে গায়েবানা জানাজায় তিনি এ কথা বলেন। সেই সঙ্গে সারা দেশে গণহত্যার প্রতিবাদে আগামী সোমবার নয়াপল্টনে ১৮ দলের বিক্ষোভ সমাবেশের ঘোষণা দেন। জানাজার আগে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে খোকা বলেন, মুক্তিযুদ্ধ শুরুর মাস মার্চের শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ সরকার দেড় শতাধিক মানুষকে পিটিয়ে, গুলি করে, ছাদ থেকে ফেলে, পানিতে ডুবিয়ে বর্বরভাবে করেছে। যা মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সঙ্গে অবমাননা। এটাকে ১৮ দলের পক্ষ থেকে ‘গণহত্যা’ বলে আখ্যায়িত করা হয়েছে। ভবিষ্যতে এ রকম ঘটনার জন্য গণমানুষের পক্ষ থেকে কেবল নিন্দা জানানো হবে না, এ ধরনের আক্রমণের কার্যকর প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। এ ধরনের কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে শক্ত অবস্থান নিতে হবে। তিনি বলেন, বিএনপির সমাবেশে পুলিশ নির্বিচারে যেভাবে গুলি চালিয়েছে তা দেশে বিশ্ববাসী বলছে বাংলাদেশে এখন গণতন্ত্রের লেশমাত্রও নেই। আমরা পরিস্কার বলতে চাই গণতন্ত্র ধ্বংস হতে পারে এমন কর্মকাণ্ড কাউকে করতে দেয়া হবে না। গতকাল বিকালে নয়াপল্টনে বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সামনে অনুষ্ঠিত গায়েবানা জানাযায় বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খান, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, মির্জা আব্বাস, ভাইস চেয়ারম্যান আলতাফ হোসেন চৌধুরী, আবদুল্লাহ আল নোমান, সাদেক হোসেন খোকা, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা প্রফেসর এমএ মান্নান, ইনাম আহমেদ চৌধুরী, খন্দকার মাহবুব হোসেন, মে. জে. (অব.) রুহুল আলম চৌধুরী, যুগ্ম-মহাসচিব রিজভী আহমেদ, ঢাকা মহানগর জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদ, জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, লেবার পার্টি চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, এনপিপি চেয়ারম্যান শেখ শওকত হোসেন নীলুসহ ১৮দলীয় জোটের হাজার হাজার নেতাকর্মী অংশ নেন। জানাজা পড়ান জাতীয়তাবাদী ওলামা দলের সভাপতি মাওলানা শাহ মোহাম্মদ নেসারুল হক।
‘কমিটি ফর পাবলিক সেফটি’ গঠন: রিজভী
এদিকে আগামী তিন দিনের মধ্যে ১৮দলের পক্ষ থেকে ‘কমিটি ফর পাবলিক সেফটি’ গঠনের কথা জানিয়েছেন বিএনপির দপ্তরের দায়িত্বপ্রাপ্ত যুগ্ম মহাসচিব রিজভী আহমেদ। সন্ধ্যায় দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা জানান। রিজভী বলেন, ফ্যাসিবাদী সরকারের ছাত্রলীগ, যুবলীগ, র‌্যাব, পুলিশ নির্যাতন চালাচ্ছে। তারা হামলা-মামলা করে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করছে। এ কারণেই ১৮দলের পক্ষ থেকে গায়েবানা জানাজা হয়েছে। আর মানুষকে হত্যা, গ্রেপ্তার, হামলা-মামলা-নির্যাতনের হাত থেকে রক্ষার জন্য তিন দিনের মধ্যে কমিটি ফর পাবলিক সেফটি গঠন করা হবে। ‘কমিটি ফর পাবলিক সেফটি’তে ১৮ দল ছাড়াও বিভিন্ন সামাজিক শক্তি ও গণতন্ত্রে বিশ্বাসী দলগুলোর প্রতিনিধি থাকবে। ইউনিয়ন পর্যায় থেকে শুরু করে থানা, জেলা, মহানগর সব পর্যায়ে এ কমিটি হবে। এছাড়া গণহত্যা, হামলা, মামলা, নির্যাতন ইত্যাদির প্রতিবাদে সারাদেশে বিক্ষোভ কর্মসূচি হবে সোমবার। সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব সালাউদ্দিন আহমেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মসিউর রহমান, সহ-আইন বিষয়ক সম্পাদক সানাউল্লাহ মিয়া উপস্থিত ছিলেন

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট