Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

চলে গেলেন বিপ্লবী নেতা হুগো শ্যাভেজ

চলে গেলেন ভেনিজুয়েলার জনপ্রিয় প্রেসিডেন্ট হুগো শ্যাভেজ। প্রায় দুই বছর ক্যান্সারের সঙ্গে লড়াই করে অবশেষে হার মানলেন লাতিন আমেরিকা অঞ্চলের বিপ্লবী এই নেতা। দীর্ঘ ১৪ বছর ভেনিজুয়েলার নেতৃত্ব দিয়েছিলেন জনপ্রিয় এ নেতা। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৫৮ বছর। গতকাল রাতে রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে দেয়া বিবৃতিতে অশ্রুসিক্ত ভাইস প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো প্রেসিডেন্টের মৃত্যুর সংবাদ জানান। আগামী শুক্রবার তার শেষকৃত্য অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী এলিয়াস জোস মিলানো শ্যাভেজের মৃত্যুতে জাতীয় পর্যায়ে ৭ দিন শোক পালনের ঘোষণা দিয়েছেন। তার মৃত্যুর খবর শোনার পর রাস্তায় নেমে আসে তার অসংখ্য সমর্থক। তারা কেঁদে কেঁদে বলতে থাকেন, শ্যাভেজ বেঁচে আছে, এটি আমাদের জন্য গভীর দুঃখের মুহূর্ত। তার কাজ, তার পতাকা সম্মান ও মর্যাদার সঙ্গে ঊর্ধ্বে তুলে ধরা থাকবে। কমান্ডার, আপনাকে ধন্যবাদ। আপনাকে অশেষ ধন্যবাদ জানাই সেসব মানুষের পক্ষ থেকে, যাদের আপনি রক্ষা করেছিলেন। ২০১১ সালের মাঝামাঝি সময়ে শ্যাভেজের দেহে ক্যান্সার ধরা পড়ে। চতুর্থবারের মতো অস্ত্রোপচারের জন্য তিনি গত বছরের ১১ই ডিসেম্বর কিউবার হাভানায় যান। কিউবায় ক্যান্সার চিকিৎসা শেষে গত মাসে দেশে ফেরেন প্রেসিডেন্ট শ্যাভেজ। কিউবায় সর্বশেষ অস্ত্রোপচার শেষে দেশে ফিরেছিলেন তিনি। সেখানে রাজধানী ক্যারাকাসের একটি সামরিক হসাপাতালে কেমোথেরাপি নিচ্ছিলেন শ্যাভেজ। এর আগে এক ঘোষণায় মাদুরো বলেছিলেন, শ্বাস-প্রশ্বাসজনিত তীব্র সংক্রমণে ভুগছেন প্রেসিডেন্ট। তার অবস্থা সঙ্কটাপন্ন ও সবচেয়ে কঠিন সময় পার করছেন। শ্যাভেজের মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে বন্ধু রাষ্ট্র কিউবা, বলিভিয়া ও ইকুয়েডরে। সারা বিশ্বে শ্যাভেজের অগণিত ভক্ত চোখের পানি ধরে রাখতে পারেননি। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি। এরপর থেকে আর জনসম্মুখে দেখা যায়নি তাকে। প্রেসিডেন্ট হুগো শ্যাভেজের মৃত্যুতে জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি মুনসহ বিশ্ব নেতারা গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। ৩০ দিনের মধ্যে নির্বাচন হতে পারে ও অন্তর্বর্তী সময়ে ভাইস প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করবেন। তবে নির্বাচন কবে অনুষ্ঠিত হবে সে ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট কোন তারিখ জানানো হয়নি।
ঐতিহাসিক শত্রুরা শ্যাভেজের ক্যান্সারের জন্য দায়ী
ভেনিজুয়েলার ভাইস প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো গতকাল দেশটির প্রেসিডেন্ট হুগো শ্যাভেজের মৃত্যুর জন্য ঐতিহাসিক শত্রুদের দায়ী করেছেন। মাদুরো বলেন, তার কোন সন্দেহ নেই যে শ্যাভেজ এ রোগে কিভাবে আক্রান্ত হয়েছিলেন তা বের করতে বিজ্ঞানীদের একটি কমিশন গঠন করা হবে। আবেগঘন ওই বক্তৃতায় তিনি বলেন, এ জাতির ঐতিহাসিক শত্রুরা কিভাবে আমাদের কমান্ডারের শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটানো যায় সে পথ খুঁজছিল। এ খবর দিয়েছে অনলাইন হিন্দুস্তান টাইমস।
বর্ণাঢ্য জীবন: বর্ণময় জীবনের অধিকারী ছিলেন ভেনিজুয়েলার বিপ্লবী প্রেসিডেন্ট হুগো শ্যাভেজ। দরিদ্র পরিবারে জন্মগ্রহণ করলে নিজকর্ম গুণে অধিষ্ঠিত হয়েছিলেন রাষ্ট্রক্ষমতার শীর্ষে। সারা বিশ্বে ঈর্ষণীয় জনপ্রিয়তা অর্জন করেছিলেন। প্রেসিডেন্ট থাকাকালে বিশ্ব ক্ষমতায় ছড়ি ঘোরানো আমেরিকার আগ্রাসী নীতির কঠোর সমালোচনা করেছেন। বিশ্বের কোটি কোটি নিপীড়িত শোষিত মানুষের কথা বলেছেন। বন্ধুত্ব ছিল কিউবার অবিসংবাদিত নেতা ফিদেল কাস্ত্রোর সঙ্গে।
নিম্নে শ্যাভেজের বিবরণী দেয়া হলোÑ
১৯৫৪: এই বছরের ২৮ জুলাই হুগো চাভেজ ভেনিজুয়েলার বারিনাস রাজ্যের সাবানেতায় এক স্কুলশিক্ষকের ঘরে জন্ম নেন।
১৯৭৫:  ভেনিজুয়েলার একাডেমি অব মিলিটারি সায়েন্স থেকে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন।
১৯৭৭:  সেনাবাহিনীর ভেতরে বিপ্লবী কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন।
১৯৮১: শিক্ষক হিসেবে সামরিক একাডেমিতে ফেরত যান।
১৯৯২: ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্ট কার্লোস আন্দ্রেস পেরেজের সরকারকে উৎখাতের চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। শ্যাভেজকে দুই বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়।
১৯৯৪: দল পুনর্গঠন করেন।
১৯৯৯: ১৯৯৮ সালের নির্বাচনে জয়ী হয়ে এ বছর ক্ষমতায় যান।
২০০২: এক ব্যর্থ অভ্যুত্থানে ক্ষমতাচ্যুত হন। দুই দিন পর আবার ক্ষমতায় ফিরে যান।
২০১১: শ্যাভেজের দেহে ক্যানসার ধরা পড়ে।
২০১২: অক্টোবরে নির্বাচনে জয়ী হয়ে আরও ছয় বছরের জন্য ক্ষমতায় যান। ডিসেম্বরে চতুর্থবারের মতো কিউবায় ক্যানসারের চিকিৎসা করান।
২০১৩: চিকিৎসার পর কিউবা থেকে ভেনিজুয়েলায় ফিরে আসেন শ্যাভেজ। গতকাল মঙ্গলবার ভেনিজুয়েলার সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাঁর মৃত্যু হয়।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট