Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

অপেক্ষা করুন, আপনারও বিচার হবে: খালেদাকে সেলিম

ঢাকা: আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম চৌধুরী সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা বেগম খালেদা জিয়াকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, “আপনি অপেক্ষা করুন, মানবতাবিরোধীদের বিচার করতে পারলে একই অপরাধে আপনারও বিচার হবে। যারা যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচানোর চেষ্টা করছে, হত্যাকাণ্ড, তাণ্ডব চালাচ্ছে ও সহযোগিতা করছে, বাংলার মাটিতে তাদেরও বিচার হবে।”

রোববার জাতীয় সংসদের বৈঠকে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি
ওয়াশিংটন টাইমসে খালেদা জিয়ার নিবন্ধ প্রসঙ্গে বলেন, “খালেদা জিয়া বাংলাদেশের গণতন্ত্র রক্ষায় যুক্তরাষ্ট্রের সহযোগিতা চেয়েছেন। দেশে গণতন্ত্র বিদ্যমান। তিনি কোন গণতন্ত্র চান? তার স্বামী জিয়াউর রহমান আমাদের সামরিক গণতন্ত্র উপহার দিয়েছিলেন।”

তিনি বলেন, “জিয়াউর রহমান ’৭৫ সালে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা দখল করে। ক্ষমতা আঁকড়ে ধরে রাখতে কর্নেল তাহেরকে অন্যায়ভাবে ফাঁসি দেন। মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত সংবিধানকে পদদলিত করে সামরিক অধ্যাদেশ দিয়ে দেশ চালিয়েছিল। সামরিক অধ্যাদেশের মাধ্যমে সংবিধানে ৩৮-৩৯ অনুচ্ছেদ বাদ দিয়ে জামায়াত-সাম্প্রদায়িক শক্তিদের রাজনীতি করার সুযোগ দেন। এর ধারাবাহিকতা দেশে জঙ্গিবাদের উত্থান হয়।”

জিয়া বহুদলীয় গণতন্ত্রের কথা বলে স্বাধীনতাবিরোধীদের রাজনীতিতে প্রতিষ্ঠা করেন- এমন মন্তব্য করে সেলিম বলেন, “যুদ্ধাপরাধী শাহ আজিজকেও জিয়াউর রহমান  প্রধানমন্ত্রী বানিয়েছিলেন। আর  নিজামী মুজাহিদদের মন্ত্রী বানান বেগম খালেদা জিয়া।

সেলিম বলেন, “বাংলাদেশের মানুষ বিদেশিদের কথা মানবে না। বাংলাদেশে কোনো গণতান্ত্রিক সংকট হয়নি যে বিদেশিদের সহযোগিতা লাগবে।”

ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের সমালোচনা করে তিনি বলেন, “মওদুদ আবার খালেদা জিয়ার ওপর ভর করেছেন। শাহবাগের মঞ্চের বদলে তিনি গণতন্ত্র মঞ্চের নামে রাজাকারদের মঞ্চ করতে চান। বাংলাদেশের মানুষ কোনো রাজাকার মঞ্চ করতে দেবে না।”

যুদ্ধাপরাধীদের পক্ষে মওদদু-জমির-মাহবুব ওকালতি করে হেরে গিয়ে নতুন ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছেন বলেও অভিযোগ করেন শেখ সেলিম।

তিনি বলেন, ‘‘জিয়া ক্ষমতায় এসে দালাল আইন বাতিল করে দিয়েছেন; মওদুদ সাহেব তার নিজের বইতেই এ কথা লিখেছেন। এই আইন বাতিল করায় ২০ হাজারের মতো যুদ্ধাপরাধীকে মুক্তি দেয়া হয়। এর ফলে যারা নিষিদ্ধ ছিল তারা ইসলামি দল হিসেবে রাজনীতি করার সুযোগ পায়।

সেলিম বলেন, ‘‘বিএনপি দাবি করছে জামায়াত শিবির রাজনৈতিক দল। কারণ তারা জামায়াতের সাথে জোটবদ্ধ। কিন্তু জামায়াত সারা দেশে তাণ্ডব চালিয়ে রাষ্ট্রীয় সম্পদ ধ্বংস করছে। রেল লাইন উপড়ে ফেলছে। বিদ্যুৎ কেন্দ্র পুড়িয়ে দিচ্ছে। কোন রাজনৈতিক দল এ ধরনের কর্মকাণ্ড করতে পারে না। বরং এরা জঙ্গী সংগঠন। তাদেরকে বর্তমান সংবিধানের আইনেই নিষিদ্ধ করা যায়। তাদের অর্থলগ্নি প্রতিষ্ঠান ও অর্থের উৎস বন্ধ করে বাংলার মাটি থেকে উৎখাত করতে হবে বলেও সেলিম মন্তব্য করেন।

জামায়াত শিবির ধর্মের নামে দেশে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগাতে চায়  উল্লেখ করে সেলিম বলেন, ‘‘ওরা ধর্ম মানে না। ওরা নাস্তিক।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট