Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

শহিদ মিনারে ফরীদির মরদেহে নাগরিক শ্রদ্ধা

ঢাকা, ১৪ ফেব্রুয়ারি: কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে প্রখ্যাত অভিনেতা হুমায়ুন ফরীদির মরদেহে শ্রদ্ধা নিবেদন করছেন সর্বস্তরের মানুষ। মঙ্গলবার সকাল ১০টায় তার মরদেহ শহিদ মিনারে আনা হয়। সেখানে প্রথমে তাকে গার্ড অব অনার দেয়া হয়। এ সময় বিহবলে করুণ সুর বেজে উঠে।

 

এরপর বিভিন্ন সংগঠন, প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তির পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে তার মরদেহে শেষ শ্রদ্ধা জানানো হয়। তাকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে শহিদ মিনারে হাজারো জনতার ঢল নেমেছে। দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত তার মরদেহ শহিদ মিনার প্রাঙ্গণে রাখা হবে।

 

সাধারণ জনতার শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে ফরীদি চতুর্থ জানাজা অনুষ্ঠিত হবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে। এরপর তাকে চিরনিদ্রায় শায়িত করা হবে মিরপুর শহিদ বুদ্ধিজীবী গোরস্তানে।

 

সোমবার সকাল ৯টার দিকে ধানমণ্ডির বাসায় হুমায়ুন ফরীদি ইন্তেকাল করেন। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজেউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬০ বছর।

 

১৯৫২ সালের ২৯ মে ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন ফরীদি। পড়ালেখা করেছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে অর্থনীতি বিভাগে। তার অভিনয় জীবনের শুরু মঞ্চ নাটক দিয়ে। পরে অসংখ্য টিভি নাটকে অভিনয় করেছেন।

 

মঞ্চ, টেলিভিশন ও সিনেমায় আলোড়ন তোলা এই অভিনেতা অসাধারণ সব অভিনয়ের মাধ্যমে খ্যাতির ‍তুঙ্গে ছিলেন। কিংবদন্তি এই অভিনেতার উপস্থিতিতেই দর্শক-শ্রোতা খুঁজে পেতো অনাবিল আনন্দ ও মুগ্ধতা।

 

১৯৮০ ও ৯০’র দশকে যে কয়েকজন অভিনয় শিল্পী মঞ্চ ও টিভি নাটককে অসম্ভব জনপ্রিয়তা এনে দিয়েছিলেন, ফরীদি ছিলেন তাদেরই একজন। ধারাবাহিক নাটক সংশপ্তকে ‘কান কাটা রমজান’ চরিত্রে অভিনয় করে তিনি নিজেকে নিযে যান অন্য উচ্চতায়। তার উল্লেখযোগ্য নাটকগুলো হলো, হঠাৎ একদিন, পাথর সময়, সংশপ্তক, সমুদ্রে গাংচিল, কাছের মানুষ, মোহন।

 

এক দশকেরও বেশি সময় ধরে বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে অভিনয় করছেন এই শক্তিমান অভিনেতা। তার অভিনীত চলচ্চিত্রগুলোর মধ্যে একাত্তরের যিশু, সন্ত্রাস, ব্যাচেলর, জয়যাত্রা ও শ্যামলছায়া অন্যতম।

 

ব্যক্তিগত জীবনে অভিনেত্রী সুবর্ণা মুস্তফার সঙ্গে সংসার শুরু করলেও ২০০৮ সালে তাদের বিচ্ছেদ হয়ে যায়। ধানমণ্ডির নতুন ৯/এ’র ৭২নং বাসায় তিনি একাই থাকতেন।

 

ফরীদির মৃত্যুর খবরে তাৎক্ষণিকভাবে শোকের ছায়া নেমে আসে দেশের সাংস্কৃতিক অঙ্গনে। নাট্য ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনের কর্মীরা জড়ো হতে থাকেন ধানমণ্ডির বাড়িতে।

 

এদিকে, তার মৃত্যুতে গভীর শোক ও পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. জিল্লুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিরোধী দলীয় নেতা বেগম খালেদা জিয়া।

 

রাষ্ট্রপতি তার বাণীতে বলেন, ফরীদির মৃত্যুতে দেশ একজন শক্তিশালী নিবেদিতপ্রাণ অভিনেতাকে হারালো। অভিনয়ে অসাধারণ দক্ষতার জন্য তিনি অত্যন্ত জনপ্রিয় ছিলেন।”

 

প্রধানমন্ত্রী তার শোকবাণীতে বলেন, “নাট্যাঙ্গন ও সংস্কৃতিতে হুমায়ুন ফরীদির অবদান বিশেষভাবে স্মরণে রাখবে বাংলাদেশ।”

 

খালেদা জিয়া তার শোকবার্তায় বলেন, “অসাধারণ অভিনয়ের জন্য তিনি দেশের মানুষের মনে চিরজাগরুক থাকবেন। বহুমাত্রিক অভিনয়-ক্ষমতার এই শিল্পীর শূন্যতা সহজে পূরণ হবে না।”

 

স্পিকার, ডেপুটি স্পিকারসহ মন্ত্রী-এমপি ও বিশিষ্টজনেরা তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

 

বার্তা২

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট


2 Responses to শহিদ মিনারে ফরীদির মরদেহে নাগরিক শ্রদ্ধা

  1. sikiş izle

    March 13, 2012 at 8:51 am

    you happen to be truly variety one admin your running a blog is wonderful i generally test your blog site i’m positive you is going to be the most effective

  2. smackdown oyunları

    March 14, 2012 at 3:09 pm

    I used to be browsing for this great sharing admin considerably thanks and have nice blogging bye