Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

‘সরকার উত্তেজনা উস্কে দিচ্ছে’

ফাঁসি চাই, জবাই কর স্লোগান দিয়ে দেশ গড়া যাবে না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেছেন, সরকার উত্তেজনা প্রশমন না করে আরও উসকে দিচ্ছে। এর সব দায়দায়িত্ব সরকারকেই বহন করতে হবে। দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে ইসলামী ঐক্যজোটের উদ্যোগে আয়োজিত স্মরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ইসলামী ঐক্যজোটের সাবেক চেয়ারম্যান মুফতি ফজলুল হক আমিনীর জীবন ও কর্ম নিয়ে এ আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।
ফখরুল বলেন, শান্তিপ্রিয় মানুষের ধর্মবিশ্বাসে আঘাত করছে সরকার। এদেশে আল্লাহ ও রাসুলকে অবমাননা কেউ মেনে নেবে না। সরকার জেনে শুনে গোটা দেশকে সংঘাতের দিকে ঠেলে দিয়েছে।
তিনি বলেন, বাংলাদেশ এখন এক কঠিন সময় অতিক্রম করছে। ’৭১ সালের পর এতো কঠিন সময় আর আসেনি। গত কয়েকদিন প্রায় ২১ জন ধর্মপ্রাণ মুসলমানকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। তাদের অপরাধ তারা আল্লাহ ও রাসুলের অবমাননাকারীদের বিরুদ্ধে শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ করেছে।
মির্জা ফখরুল বলেন, সোমবার মিরপুরে যে বক্তব্য শুনেছি তাতে মনে হচ্ছে, জেনে শুনে দেশকে একটা অন্ধকার গহ্বরের দিকে ঠেলে দেয়া হচ্ছে। কারণ সর্বক্ষেত্রে ব্যর্থ সরকার সবকিছুকে ঢেকে ফেলার জন্য পানি ঘোলা করতে চায়। ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে চায়।
শাহবাগের আন্দোলনকারী তরুণদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, হিংসার গান গেয়ে নয়, ভালবাসার গান গেয়ে জাতিকে গড়ে তুলতে হবে। শুধু ফাঁসি চাই আর জবাই কর বলে দেশ গড়া যাবে না।
ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান মাওলানা আবদুল লতিফ নেজামীর সভাপতিত্বে সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন- ইসলামী ঐক্যজোটের মহাসচিব মুফতি ফয়জুল্লাহ, ভাইস চেয়ারম্যান এডভোকেট মাওলানা আবদুর রকিব, মুফতি আমিনীর ছেলে মাওলানা আবুল হাসানাত আমিনী, জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বীর প্রতীক, ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টির সভাপতি খন্দকার গোলাম মোর্তুজা, বাংলাদেশ ন্যাপের চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানি, ইসলামীক পার্টির চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আবদুল মবিন প্রমুখ।
আলোচনা সভায় সরকারকে হুঁশিয়ার করে ইসলামী ঐক্যজোটের মহাসচিব মুফতি ফয়জুল্লাহ বলেছেন, ‘রক্তচক্ষু দেখাবেন না। রক্তচক্ষুকে আমরা ভয় করি না। আমরা তিন ঘণ্টার নোটিশে ৫০ লাখ মানুষ রাস্তায় নামাতে পারি। তিনি বলেন, আমার দেশ সম্পাদক মাহমুদুর রহমান কোন ব্যক্তি নন, তিনি এখন একটি প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছেন। হাত ওঠাবেন না, হাত ভেঙে যাবে। এমন আগুন জ্বলবে, সেই আগুনে শেখ হাসিনার গদি জলে পুড়ে ছাড়খার হয়ে যাবে। তিনি বলেন, ‘আর সময় বেশি নেই। এমন আন্দোলন গড়ে তোলা হবে আপনারা পালাবার পথ পাবেন না। ইমানদার আর বেঈমানদের যুদ্ধ শুরু হয়ে গেছে। এই যুদ্ধে ইমানদাররা জয়ী হবে, আর নাস্তিকরা পরাজিত হবে ।
মুফতি আমিনীর পূত্র মাওলানা আবুল হাসানাত শাহবাগের আন্দোলনকারীদের হুমকি দিয়ে বলেন, আগামী বৃহস্পতিবারের মধ্যে শাহবাগের নাটক বন্ধ করা না হলে, শুক্রবারের পর তাদের উচ্ছেদ করতে শাহবাগের দিকে লংমার্চ ঘোষণা করা হবে।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট