Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

সংঘাত, নিহত ৪, রোববার হরতাল

সংঘাত ছড়িয়ে পড়েছে সারাদেশে। গুলি, টিয়ারসেল, ককটেল বিস্পোরণ আর ইটপাটকেল নিক্ষেপে সারাদেশ যেন এক রণক্ষেত্র। দেশের বিভিন্নস্থানে গণজাগরণ মঞ্চে আগুন দেয়া হয়েছে। জুমার নামাযের পরপর ইসলামপন্থী দলগুলো ঐক্যবদ্ধভাবে সারা দেশের বিভিন্ন মসজিদ থেকে মিছিল বের করলে সংঘর্ষ শুরু হয়। তবে দেশের অনেক জায়গায় পুলিশ মিছিলকারীদের কোন বাধা দেয়নি। পুলিশ-ইসলামপন্থী দলের সংঘর্ষে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত চার জন নিহত হয়েছেন। সিলেট, গাইবান্ধা এবং ঝিনাইদহে পুলিশের গুলিতে তারা নিহত হন। সংঘর্ষে সাংবাদিক, পুলিশসহ আহত হয়েছেন পাঁচ শতাধিক। কয়েকশ’ বিক্ষোভকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এদিকে, বিক্ষোভ কর্মসূচিতে পুলিশি বাধা, হামলা এবং হত্যার প্রতিবাদে রোববার সারা দেশে হরতাল ডেকেছে ইসলামপন্থী দলগুলো। সোমবার সারা দেশে বিক্ষোভ কর্মসূচিও ঘোষণা করা হয়েছে।
আজ রাজধানীতে সংঘর্ষ হয়েছে পল্টন, মৎস্যভবন, কাটাবন, মিরপুর ও আনন্দবাজার এলাকায়। ইসলামপন্থী দলগুলোর কর্মীরা বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদ থেকে জুমার নামায শেষে মিছিল বের করে শাহবাগের দিকে যেতে চাইলে সংষর্ষের সূত্রপাত হয়। এসময় পুলিশ গুলি বর্ষণ করে। বিক্ষোভকারীরা ইটপাটকেল, ককটেল বিস্পোরণ করে জবাব দেয়। কাটাবন মসজিদের সামনেও পুলিশ গুলি করে। কাওরান বাজার থেকেও ইসলামপন্থী দলের কর্মীরা একটি মিছিল নিয়ে শাহবাগের দিকে এগুনোর চেষ্টা করলে পুলিশ বাঁধা দেয়। ফাঁকাগুলি বর্ষণ করে মিছিলটি ছত্রভঙ্গ করে দেয় আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। রাজধানী ছাড়াও দেশের বিভিন্নস্থান থেকে সংঘর্ষের খবর পাওয়া যাচ্ছে। চট্টগ্রামের আন্দরকিল্লা এলাকায় পুলিশের সঙ্গে মুসল্লীদের সংঘর্ষ হয়েছে। পরে হাজার হাজার মুসল্লীর উপস্থিতিতে সমাবেশ হয়েছে। সমাবেশ এবং বিক্ষোভে পুলিশ কোন বাধা দেয়নি। রাজশাহীতে ইসলামী দলগুলোর সমর্থকরা গণজাগরণ মঞ্চে ভাঙচুর চালিয়েছেন। সরকার সমর্থকরাও ইসলামী ব্যাংকে হামলা চালিয়েছেন। খুলনা, সিলেট, ফেনী এবং বগুড়ায় গণজাগরণ মঞ্চে হামলা হয়েছে। সাভারে বিক্ষুদ্ধ মুসল্লিরা সড়ক অবরোধ করেছেন। আল্লাহ, রাসুল (সা.) ও ইসলাম নিয়ে কটূক্তিকারী ব্লগারদের শাস্তি এবং ইসলামী রাজনীতি নিষিদ্ধ করার ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে বিভিন্ন ইসলামপন্থী দলের আজকের বিক্ষোভ কর্মসূচিকে ঘিরে সকাল থেকেই উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। বায়তুল মোকাররম এলাকাসহ বিভিন্ন মসজিদকে ঘিরে মোতায়েন করা হয় বিপুল সংখ্যক আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য। ইসলামপন্থী দলগুলো যেন মিছিল বের করতে না পারে এ ব্যাপারে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে সরকারের পক্ষ থেকে নির্দেশনা দেয়া হয়। একে শাহবাগের গণজাগরণ মঞ্চের বিরুদ্ধে দেয়া কর্মসূচি হিসেবে বিবেচনা করছে সরকার। তবে সর্বজন শ্রদ্ধেয় আলেম আল্লামা আহমদ শফি ও অন্যান্য ইসলামী দলের ডাকা আজকের বিক্ষোভ কর্মসূচিকে ঘিরে সরকারের ভেতরে-বাইরে একধরনের অস্থিরতা তৈরি হয়েছে।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট