Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

মাহমুদুর রহমানের নাম ও ছবি ব্যবহার করে ভুয়া ইমেইল ও ব্লগে মিথ্যাচার

ঢাকা, ২১ ফেব্রুয়ারি : আমার দেশ সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের নাম ও ছবি ব্যবহার করে ই-মেইল ও ব্লগে সর্বৈব অসত্য ও ভুয়া বক্তব্য প্রকাশ করেছে অজ্ঞাত ব্যক্তিরা। এসব বক্তব্য বিভিন্ন ব্যক্তির মেইল ও ফেসবুকের পেজে পাঠানো হয়েছে। সামাজিক ওয়েবসাইটগুলোতে এসব বক্তব্য ছড়িয়ে দেয়ারও আহবান জানিয়েছে প্রকাশকারীরা। এতে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার ও শুক্রবার ইসলামী দলগুলোর কর্মসূচীতে নাশকতা করার তথ্য প্রকাশ করা হয়। বৃহস্পতিবার ই-মেইল বার্তার একটি কপি মাহমুদুর রহমানের মেইলে পাঠানো হলে বিষয়টি প্রকাশ পায়।
এদিকে মাহমুদুর রহমানের নাম ও ছবি ব্যবহার করে এসব অসত্য ও ভুয়া মেইল ও ওয়েবপেজ তৈরির সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন তার আইনজীবীরা। বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক জরুরি সংবাদ সম্মেলন করে আইনজীবীরা বলেছেন, ই-মেইল, ব্লগ ও ফেসবুকে প্রকাশিত এসব মিথ্যা ও ভুয়া বক্তব্যের প্রেক্ষিতে যদি দেশে কোনো ধরনের অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টি হয় তার সব দায়দায়িত্ব প্রকাশকারীদের নিতে হবে। এসব মিথ্যা ও ভুয়া বক্তব্য প্রকাশকারীদের আইনের আওতায় আনতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের আহবান জানান তারা। পরে মাহমুদুর রহমানের পক্ষে তেজগাঁও থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন আইনজীবীরা।
জিডিতে মাহমুদুর রহমান বলেন, আমার দেশ পত্রিকার প্রচার সংখ্যা বৃদ্ধিতে ঈর্ষান্বিত হয়ে একটি স্বার্থন্বেষী মহল চরম আক্রোশে মিথ্যা ও হীনস্বার্থ চরিতার্থ করার মানসে আমার নাম ব্যবহার করে ফেসবুক ও ব্লগের মাধ্যমে কুরুচিপূর্ণ ও মিথ্যা তথ্য প্রচার ও প্রকাশ করেছে। এসবের সঙ্গে আমার বা আমার দেশ পত্রিকা কোনোভাবে জড়িত নয়। দেশের ক্রান্তিলগ্নে কে বা কারা বা কোন স্বার্থান্বেষী মহল আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য এবং দেশের আপামর জনসাধারনের দৃষ্টি অন্যদিকে নেয়ার অপচেষ্টা করছে। ফলে আমার সম্পাদিত দৈনিক আমার দেশ পত্রিকা নিয়ে শংকিত বোধ করছি।
জাতীয় প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে মাহমুদুর রহমানের আইনজীবী ও ঢাকা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট মো. সানাউল্লাহ মিয়া বলেন, ই-মেইল ও ব্লগের তথ্যে কেউ যাতে বিভ্রান্ত না হন সেজন্য এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে। মূল বক্তব্যে তিনি বলেন, আমার দেশ পত্রিকার মাধ্যমে সত্য তথ্য তুলে ধরায় মাহমুদুর রহমান বিশেষ গোষ্ঠীর চক্ষুশূলে পরিনত হয়েছেন। তার ছবি ও নাম ব্যবহার করে ব্লগ ও ফেসবুক পাতায় একাধিক বক্তব্য প্রকাশ করা হচ্ছে, যা সর্বৈব মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক। তিনি এ ধরনের লেখা কখনোই পোষ্ট করেননি এবং কোনো ব্যক্তির সঙ্গেও বলেননি। ফেসবুকের Bdnews নামের একটি পেজ-এ লেখা হয়েছে, ‘‘৭১এ মুক্তিযুদ্ধের সময় রাজাকাররা যেমন মুক্তিযোদ্ধাদের হত্যা করেছিল ঠিক তেমনি অনেক মুক্তিবাহিনীও রাজাকারদের নির্মমভাবে হত্যা করেছিল। হত্যার দায়ে মুক্তিযোদ্ধারা রাজাকারের সমান অপরাধী। এই সরকার বিশেষ ট্রাইব্যুনালে রাজাকারদের বিচার করছে। জামায়াত সমর্থিত দল যদি কখনো ক্ষমতায় আসে তাহলে রাজাকার হত্যার দায়ে বিশেষ ট্রাইবুনালে মুক্তিযোদ্ধাদেরও বিচার করবে- সম্পাদক মাহমুদুর রহমান।’’ এ লেখাটি ফেসবুক ব্যবহারকারী ও ব্লগারদের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে ওই পেজে অনুরোধ জানানো হয়েছে। এরপরই এই পোষ্টকে কেন্দ্র করে মাহমুদুর রহমানকে দেখে নেয়ার একাধিক হুমকি সম্বলিত বক্তব্য পোষ্ট হয়েছে। একইভাবে মাহমুদুর রহমানের নাম ব্যবহার করে mahmud.amardesh@yahoo.com একটি ই-মেইল আইডি খোলা হয়েছে। ওই আইডি থেকে নাশকতামূলক বক্তব্য বিভিন্ন মেইলে পাঠানো হচ্ছে। মাহমুদুর রহমান এ নামের কোনো ই-মেইল আইডি বা ফেসবুকে পেজ আজ অবধি খোলেননি এবং ব্যবহারও করেননি। তিনি একটি মাত্র ই-মেইল আইডি admahmudrahman@gmail.com ব্যবহার করেন। সুতরাং ব্লগ ও ফেসবুকে তার নাম ও ছবি ব্যবহার করে এ ধরনের প্রচারণা সম্পূর্ণ আইনবিরোধী ও রাষ্ট্রের শান্তি-শৃঙ্খলার পরিপন্থী। এসব বক্তব্যকে কেন্দ্র করে যদি দেশে কোনো ধরনের অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়, তার সব দায়দায়িত্ব প্রকাশকারীকে নিতে হবে। যেসব ব্যক্তি বা গোষ্ঠী তার নাম ব্যবহার করে অসত্য তথ্য প্রকাশ করছে তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে। সংবাদ সম্মেলনে অ্যাডভোকেট মাসুদ আহমদ তালুকদার বলেন, মাহমুদুর রহমান ও আমার দেশ পত্রিকার সাফল্যে ঈর্ষান্বিত হয়ে একটি চক্রান্তকারী গোষ্ঠী দীর্ঘদিন ধরে অপপ্রচারের মাধ্যমে সম্মান ক্ষুন্ন করার অপকৌশলে লিপ্ত। এ বিষয়ে দেশবাসীকে সতর্ক থাকতে হবে। দেশের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে যারা চক্রান্ত করছে তাদের খুজে বের করে আইনের আওতায় আনার আহবান জানান তিনি। সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আমার দেশ’র নির্বাহী সম্পাদক ও জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবদাল আহমদ, মাহমুদুর রহমানের আইনজীবী হারুন অর রশিদ ভূইয়া, আবুল কালাম খান প্রমুখ।