Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

‘সাঈদীর সঙ্গে মরতে চাই’

মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত বিএনপি নেতা সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরী তার আইনজীবীদের প্রত্যাহার করে
নিয়েছেন। ট্রাইব্যুনাল তার এ আবেদন মঞ্জুর করেছে। একই সঙ্গে তার পক্ষে আইনি লড়াই পরিচালনার জন্য রাষ্ট্রের পক্ষ থেকে কৌঁসুলি নিয়োগ দেয়া হবে। বিচারপতি এটিএম ফজলে কবীরের নেতৃত্বাধীন ট্রাইব্যুনাল গতকাল এ আদেশ দেয়। ট্রাইব্যুনালে এতদিন সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরীর পক্ষে আহসানুল হক হেনা ও ব্যারিস্টার ফখরুল ইসলাম মামলা পরিচালনা করছিলেন। গতকালও দুপুর পর্যন্ত তারা ট্রাইব্যুনালে ছিলেন। এসময় সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরীর বিপক্ষে একজন নারী সাক্ষীর ক্যামেরা ট্রায়ালে সাক্ষ্য নেয়া হয়। দুপুরের পর সালাহউদ্দিন কাদেরের পক্ষে কোন আইনজীবী না দেখে ট্রাইব্যুনালের চেয়ারম্যান এটিএম ফজলে কবীর বলেন, মিস্টার সালাহউদ্দিন কাদের, আপনার আইনজীবীর খবর কি? জবাবে তিনি বলেন, আমি লিখিতভাবে জানিয়েছি। আমি সংসদ সদস্য হিসেবে স্বীকৃতি পাচ্ছি না। তাই তাদের বিদায় করে দিয়েছি। ইনশাআল্লাহ সাত দিনের মধ্যে যদি ফাঁসি না হয় তাহলে আবার আমার আইনজীবীদের নিয়োগ দেবো। এ বিষয়ে প্রসিকিউটর জেয়াদ আল মালুম ট্রাইব্যুনালে যুক্তি তুলে ধরেন। ট্রাইব্যুনালের কার্যক্রম শেষে কাঠগড়ায় থাকা সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরী উপস্থিত সাংবাদিকদের উদ্দেশে বলেন, আবুল কালাম আযাদ হয়তো দোষ করেছেন তাই তার ফাঁসি হয়েছে। পৃথিবীর ইতিহাসে এমন রায় দেখিনি। তিনি বলেন, আমি সাঈদীর সঙ্গে মরতে চাই। ফাঁসিকে ভয় পাই না।
প্রসিকিউশনের সমন্বয়ক এম কে রহমান: আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউশনের কাজ সমন্বয়ের জন্য অতিরিক্ত এটর্নি জেনারেল এম কে রহমানকে নিয়োগ দিয়েছে সরকার। তিনি তার দায়িত্বের অতিরিক্ত হিসেবে এ দায়িত্ব পালন করবেন। গতকাল আইন মন্ত্রণালয়ের সলিসিটর কার্যালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, এম কে রহমান ট্রাইব্যুনালের চিফ প্রসিকিউটরের কার্যালয়ের প্রধান সমন্বয়কারী হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট