Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

মিশরে জরুরি অবস্থা জারি

egypt২৮ জানুয়ারি : মিশরে গত চারদিনে সহিংসতায় ৪৯ জন নিহত হওয়ার পর প্রেসিডেন্ট মুহাম্মদ মুরসি দেশের তিনটি শহরে জরুরি অবস্থা জারি করেছেন।
দেশটির পোর্ট সাঈদ, সুয়েজ ও ইসমাইলিয়া শহর তিনটিতে এক মাস এ জরুরি অবস্থা বহাল থাকবে।
ফুটবল দাঙ্গার রায় নিয়ে সৃষ্ট সহিংসতায় এর আগে নিহত ৩৩ জনের জানাজা অনুষ্ঠানে রোববারও পোর্ট সাঈদে গুলিতে ৭ জন নিহত ও বহু লোক আহত হয়েছে। এর ফলে গত বৃহস্পতিবার থেকে সহিংসতায় নিহতের সংখ্যা ৪৯ এ দাঁড়ালো। এ অবস্থায় সোমবারও বিক্ষোভের ডাক দেয় মুরসি বিরোধীরা।
রোববার রাতে জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া এক টেলিভিশন ভাষণে মুরসি বলেন, পোর্ট সাইদ, ইসমাইলিয়া ও সুয়েজে সোমবার সন্ধ্যা থেকে রাত্রিকালিন কারফিউ বহাল থাকবে।
ভাষণে মুরসি বলেন, ‘জাতির সুরক্ষা প্রত্যেকের দায়িত্ব। আইন অনুযায়ি আমরা নিরাপত্তার প্রতি হুমকিকে শক্তি ও দৃঢ়তা দিয়ে মোকাবিলা করব।’ তিনি সহিংসতায় নিহতদের স্বজনদের প্রতি সমবেদনা জানান।
উল্লেখ্য, গত বছরের পহেলা ফেব্রুয়ারি পোর্ট সাঈদের একটি স্টেডিয়ামে ফুটবল খেলার সময় সংঘটিত দাঙ্গায় জড়িত থাকার দায়ে শনিবার মিশরের একটি আদালত ২১ ব্যক্তিকে মৃত্যুদন্ডের রায় দেয়।
এরপর পোর্ট সাঈদ শহরে তাতক্ষণিকভাবে সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে এবং দিনভর সংঘর্ষ ৩৩ জন নিহত হয়। রোববার সুয়েজ ও ইসমাইলিয়া শহরেও সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে। অবস্থার আরো অবনতির আশঙ্কায় জরুরি অবস্থা জারি করা হলো।
মামলার বাকি ৫২ জনের বিরুদ্ধে রায় হবে আগামী ৯ মার্চ।
২০১২ সালের দাঙ্গায় ফুটবল মাঠের ওই দাঙ্গায় ৭৪ জন নিহত ও এক হাজারের বেশি মানুষ আহত হয়েছিল।
ওই ঘটনায় মিশরের সাবেক স্বৈরশাসক হোসনি মোবারকের অনুসারিরা জড়িত ছিল বলে তখন খবর বের হয়েছিল। আল-মারসি ক্লাবের বিজয়ের পর পরাজিত ক্লাব আল-আহলির সমর্থকদের ওপর হামলা হয়। মুবারক সমর্থকরা তখন উস্কানি দিয়ে সংঘর্ষ বাধায়।

সূত্র : রয়টার্স ও আল জাজিরা