Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

বামপন্থী জোটের বিক্ষোভ সমাবেশ কাল, নানান কর্মসূচি

, ঢাকা, ১৬ জানুয়ারি : সারা দেশে আধা বেলা হরতাল শেষে  বুধবার বামপন্থী দুটি রাজনৈতিক জোট নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। জোটের পক্ষে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন। পল্টনে সিপিবির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এ সংবাদ সম্মেলন হয়।
বুধবারের হরতালে জোটের নেতা-কর্মীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার সারা দেশে বিক্ষোভ সমাবেশ করবেন তাঁরা। ঢাকায় বিকেল চারটায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এ কর্মসূচি পালন করা হবে।
আগামী বোরো মৌসুমের চাষ পুরোদমে শুরু হওয়ার আগে জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত বাতিল ও বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর পাঁয়তারা বন্ধের দাবি মেনে নিতে জোটের পক্ষ থেকে সরকারের কাছে আহ্বান জানানো হয়েছে।
এই দাবিতে ২৮ জানুয়ারি থেকে ৩ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বিভিন্ন কৃষক ও খেতমজুর সংগঠনের সঙ্গে মিলে দেশের সব উপজেলায় গণবিক্ষোভ ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের মাধ্যমে সরকারের কাছে দাবি পেশ করা হবে।
৪ ফেব্রুয়ারি জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সমাবেশ শেষে জাতীয় সংসদ অভিমুখে মিছিল ও স্পিকারের কাছে স্মারকলিপি পেশ করা হবে।
এ ছাড়া নারী নির্যাতন বন্ধ, যুদ্ধাপরাধীদের দ্রুত বিচার, জামায়াত-শিবিরের রাজনীতি বন্ধসহ ১৫ দফা দাবিতে আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারি সিপিবি ও বাসদ ঢাকায় জাতীয় মহাসমাবেশ করবে।
সংবাদ সম্মেলনে মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেন, ‘আজকের হরতাল ও সমাবেশে পুলিশ যে হামলা ও তরল গ্যাস স্প্রে করেছে, এটা যদি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নির্দেশে হয়ে থাকে, তা হলে তাঁর পদত্যাগ দাবি করছি। তাঁর পদত্যাগ দাবি করার অধিকার জনগণের আছে। আর যদি কোনো পুলিশ কর্মকর্তার নির্দেশে এই হামলা হয়ে হয়ে থাকে, তা হলে সরকারের উচিত দোষী ব্যক্তিকে বিচারের মুখোমুখি করে শাস্তি দেয়া।’
জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত বাতিল ও বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর পাঁয়তারা বন্ধের দাবিতে গণতান্ত্রিক বাম মোর্চা এবং বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) ও বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ) পৃথকভাবে বুধবার সারা দেশে আধা বেলা হরতাল কর্মসূচি পালন করেছে। এই হরতালে সমর্থন দিয়েছিল বিএনপি। সকাল ছয়টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত হরতাল চলে।
সিপিবির সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম দাবি করেছেন, পল্টনে পুলিশের হামলায় দলের সাধারণ সম্পাদক আবু জাফর আহমেদ ও বাসদের সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামানসহ অনেক নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন। দেশের বিভিন্ন জায়গায় পুলিশ ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সিপিবি ও বাসদের মিছিলে হামলা চালিয়েছে।