Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বের আখেরী মোনাজাত কাল

মনির হোসেন জীবন, স্টাফ রিপোর্টার, ১২ জানুয়ারী : রাজধানীর অদূরে টঙ্গী তুরাগ নদীর তীরে এবারের প্রথম পর্বের তিন দিনব্যাপী বিশ্ব ইজতেমা রোববার দুপুরে আখেরী মোনাজাতের মধ্যদিয়ে সমাপ্তি ঘটবে। সারা মুসলিম জাহানের দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্মীয় মহাসমাবেশ এটি। তিন দিনের ইজতেমা শুরুর দ্বিতীয় দিন আজ । শনিবার দুপুর পর্যন্ত বিশ্বের ৮৫টি দেশের প্রায় ১৫-১৬ হাজার বিদেশী মুসল্লি ইতিমধ্যে ইজতেমা মাঠে এসে পৌচ্ছেন। বিশ্ব মুসলিম উম্মাহর শান্তি, ঐক্য, ভ্রাতৃত্ব, অগ্রগতি, কল্যাণ ও সমৃদ্ধি কামনা করে উর্দু ও আরবি ভাষায় আখেরী মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে। বিশ্ব তাবলীগ জামায়াতের শীর্ষ মুরুব্বি প্রয়াত হযরত মাওলানা এনামুল হাসানের পুত্র মাওলানা মোঃ যোবায়ের হাসান  রোববার আখেরী মোনাজাতটি পরিচালনা করবেন বলে ধারনা করা হচ্ছে । দুপুর সোয়া ১২টা থেকে দুপুর সোয়া ১টার মধ্যে যে কোন সময় আখেরী মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে। রোববার প্রথম পর্বের তিন দিনের শেষ দিন  অর্থাত আখেরী মোনাজাতের দিন আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে ওই মোনাজাতে প্রায় ৪০ লাখ মুসল্লি অংশ গ্রহণ করবেন বলে আশা করা হচ্ছে। টঙ্গী তুরাগ তীরে ইজতেমা শুরুর প্রথম থেকে প্রতিদিন বয়ান চলছে । বাদ ফজর, জোহর, আছর, মাগরীব ও এশা নামাজের আগ পর্যন্ত ইজতেমার শীর্ষ মুরুব্বিরা বয়ান করেন। তাবলীগের ৬ উছুল কালেমা, নামাজ, এলেম-জিকির, একরামুল মুসলেমীন, ছহি নিয়ত ও তাবলীগ নিয়ে বিশ্ব ইজতেমার দেশী বিদেশী শীষ মুরব্বিরা ময়দানে সমবেত মুসল্লিদের উদ্দেশে উর্দু ভাষায় বয়ান রাখেন।  বিভিন্ন ভাষাভাষির মুসল্লিদের সুবিধার্থে তা বাংলা, মালে, হিন্দি, আরবি, ফারসিসহ বিভিন্ন ভাষায় তাতক্ষণিকভাবে তরজমা করা হয়। রোববার ৩ দিনের বিশ্ব ইজতেমার আখেরী মোনাজাতের শেষ দিনে ময়দানের মূল মঞ্চ থেকে বয়ান করা হবে । আর বেলা ১১টার পর একটানা বয়ান শুরু হবে এবং আখেরী মোনাজাতের ঠিক পূর্ব মুহুর্ত পর্যন্ত বয়ান চলতে থাকবে। বয়ানে দ্বিনের মেহনতের উপর বেশী বেশী আমল করার আহবান জানানো হবে। আখেরী মোনাজাত শুরুর ৩-৪ মিনিট আগে মাইকের ঘোষনা করা হবে এখনি মোনাজাত অনুষ্টিত হচ্ছে। মুহুর্ত্বের মধ্যে যেন সব কিছূ নিশ্চুপ হয়ে যাবে । আর এভাবেই আরম্ভ হবে চলতি বছরের তিন দিনব্যাপী বিশ্বইজতেমার প্রথম পর্বের আখেরী মোনাজাত।
শনিবার সকালে ইজতেমা মাঠ সরজমিনে দেখা গেছে,  সমগ্র ইজতেমা ময়দান র‌্যাব ও পুলিশের নজরদারিতে রয়েছে। ৪৮টি সিসিটিভি, ৯টি উচু টাওয়ার, নদীতে স্পীড বোড, পোষাক পড়ে, সাদা পোষাকে ও ২টি হেলিকপ্টার দিয়ে র‌্যাব সদস্যরা নিরাপত্তা নিশ্চিত করেছেন। র‌্যাবের একটি সুত্রে জানান, ১ হাজার র‌্যাব সদস্য দায়িত্ব পালন করছেন। প্রয়োজনে আখেরী মোনাজাতের পূর্বে আরো র‌্যাব মোতায়েন করা হবে। রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও বিরোধী দলীয় নেত্রী সড়ক পথে উত্তরা হয়ে আখেরী মোনাজাতে অংশ গ্রহণ করবেন বলে আশা করা হচ্ছে। ইজতেমায় অংশগ্রহণ করা মুসল্লিদের পরিবহণগুলো রাখার জন্য উত্তরা জোনে ৮টি স্থান নির্ধারিত করা হয়েছে। এসব পরিবহণগুলোর নিরাপত্তায় ২ শতাধিক ট্রাফিক ও সার্জেন্ট সার্বক্ষনিক নিয়োজিত রয়েছে।

রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী : আখেরী মোনাজাতে অংশ নিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য বেছে নেয়া হয়েছে টঙ্গীর বাটা সু-কোম্পানী ভবনের ছাদ। আর সেখানে তার জন্য আখেরী মোনাজাতে বিশেষ মঞ্চ তৈরী করা হয়েছে। এদিকে ইজতেমা মাঠের ভেতরে মূল মঞ্চের পাশে বসে আখেরী মোনাজাতে অংশ নেয়ার কথা রয়েছে রাষ্ট্রপতি মো: জিল্লুর রহমানের । বর্তমানে তিনি অসুস্থ আছেন  তারপরও বিশেষ মঞ্চের ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে নিউজমিডিয়াবিডি.কমকে জানিয়েছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য মো: জাহিদ আহসান রাসেল (এমপি)। তিনি নিউজমিডিয়াবিডি.কম এর এই প্রতিবেদককে আরো জানান, রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর জন্য বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহন করেছি । কারা এ বছর মাঠে এসে আখেরী মোনাজাতে অংশ গ্রহন করবেন সেটা এখনো দলীয়ভাবে নিশ্চত করা হয়নি । এছাড়া মন্ত্রী পরিষদের সদস্য, বিরোধী দলীয় কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ, সামরিক বেসামরিক উধর্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ ও মুসলিম দেশের কূটনৈতিকগণরা ও আখেরী মোনাজাতে শরীক হবেন।

বিরোধী দলীয় নেত্রী : বিএনপি’র জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সাবেক এমপি আলহাজ হাসান উদ্দিন সরকার নিউজমিডিয়াবিডি.কমকে জানান, বিরোধী দলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া টঙ্গীর এটলাস হোন্ডা ফ্যাক্টরি ভবনের ছাদে বিশেষ মঞ্চে বসে আখেরী মোনাজাতে শরীক হবেন। এই জন্য আমরা সকল ধরনের ব্যবস্থা গ্রহন করেছি। এছাড়া মোনাজাতে অংশ নিতে পারেন বিএনপি কেন্দ্রীয় নেতা ও সাবেক মন্ত্রী মির্জা আব্বাস, আমান উল্যাহ আমান, অধ্যাপক এম, এ মান্নান, ব্রিগেডিয়ার হান্নান শাহ (অব:), ফজলুল হক মিলন, সেলিমা রহমান, শিরিন আক্তার, গাজীপুর ও টঙ্গী সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহানশাহ আলমসহ দলীয় কেন্দ্রীয় ও মহানগর কমিটির নেতৃবৃন্দ।

শনিবার বয়ান করেন যারা : বিশ্ব ইজতেমা মাঠে শনিবার সমবেত মুসল্লিদের উদ্দেশে দেশী বিদেশী ইজতেমার শীর্ষ মুরুব্বিরা বয়ান করেছেন । শুক্রবার বাদ আছর বয়ান করেন দিল্লির মাওলানা যোবায়ের হাসান, বাদ মাগরিব দিল্লির মাওলানা সা’দ । আর শনিবার ভোরে বয়ান করেন দিল্লির মাওলানা শওকত এবং বাদ আছর বয়ান করবেন দিল্লির মাওলানা যোবায়ের হাসান। শুক্রবার রাত ১০টা পর্যন্ত একটানা বয়ান চলে। এরপর এশার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়।

১০৫ পকেটমার ও ছিনতাইকারী গ্রেফতার : টঙ্গী বিশ্ব ইজতেমা মাঠ থেকে পুলিশ শনিবার বিকাল ৩টা পর্যন্ত ১০৫ জন পকেটমার, মোবাইল চোর, হকার ও ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতদেরকে পুলিশ গাজীপুর আদালতে পাঠিয়েছে । টঙ্গী-উওরা-তুরাগ থানা পুলিশ, র‌্যাব, ডিবি ও গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা এসব অপরাধীদেরকে গ্রেফতার করে।

টঙ্গীতে অজ্ঞান পার্টির কবলে ৬ মুসল্লি : টঙ্গীর বিশ্ব ইজতেমায় এসে অজ্ঞান পার্টির সদস্যদের কবলে পড়ে সর্বশান্ত হয়েছেন ৬ মুসল্লী। অজ্ঞান পাটির সদস্যরা এদেরকে নেশা জাতীয় দ্রব্য খাইয়ে ও পান করিয়ে  নগদ টাকা ও মোবাইলসহ অন্যান্য মালামাল লুটে নিয়ে গেছে। পথচারীরা এদেরকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে টঙ্গী সরকারী হাসপাতাল ও উত্তরার বিভিন্ন হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করেন।

টঙ্গী হাসপাতালে ২৯ ভর্তি, সাড়ে ৩ হাজার জনকে চিকিতসা প্রদান : টঙ্গীর বিশ্ব ইজতেমায় এসে শনিবার দুপুর পর্যন্ত ডায়রিয়া, আমাশয়, হাঁপানী, শাসকষ্ট,  সর্দিসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে টঙ্গী সরকারী হাসপাতালে ২৯ জন মুসল্লি ভর্তি রয়েছেন। এছাড়াও হাসপাতালে প্রায় সাড়ে ৩ হাজার মুসল্লিকে প্রাথমিক চিকিতসা দেয়া হয়েছে । এছাড়া উন্নত চিকিতসার জন্য ঢামেক হাসপাতালসহ ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে ১২ জন মুসল্লিকে স্থানান্তর করা হয়।  টঙ্গী সরকারী হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যালি অফিসার ( আরএমও) ইসমাইল হোসেন সিরাজী নিউজমিডিয়াবিডি.কমকে জানান, ইজতেমা উপলক্ষে এ পর্যন্ত ৮৩জন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। শনিবার  নতুন করে আরো ১২জন রোগী ভর্তি হয়। তিনি আরো জানান, শনিবার পর্যন্ত ৩ হাজার ৫শ ৮৫জন রোগীকে চিকিতসা দেয়া হয়েছে।

ইজতেমায় মোবাইল কোর্ট ও জরিমানা : এবারের ইজতেমায় ৩০ মোবাইল কোর্ট (ভ্রাম্যমান আদালত) টঙ্গী এলাকায় অভিযান চালাচ্ছেন। এই ভেজাল বিরোধী অভিযানে ৬ জন ম্যাজিষ্ট্রেট অংশ নিয়েছেন। অভিযান চলাকালে তারা শনিবার পর্যন্ত প্রায় লক্ষাধিক টাকা জরিমানা আদায় করেছেন বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও দোকানপাট থেকে।

আরো ১ মুসল্লির মৃতু: শুক্রবার রাতে টঙ্গী ইজতেমা মাঠে আরো এক মুসল্লি মারা গেছেন। নিহত মুসল্লির নাম সামছুল হক(৬০)। শুক্রবার রাত ৯টার দিকে সামছুল হক হঠাত করে ঠান্ডায় মাঠে অসুস্থ হয়ে পড়লে তার সহকর্মীরা তাকে টঙ্গী সরকারী হাসপাতালে চিকিতসার জন্য নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিতসক তাকে মৃত  ঘোষনা করেন। তার পিতার নাম মমতাজ উদ্দিন। নরসিংদী জেলার রায়পুর থানায় তার বাড়ি। টঙ্গী সরকারী হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যালি অফিসার ( আরএমও) ইসমাইল হোসেন সিরাজী নিউজমিডিয়াবিডি.কমকে একথাটি নিশ্চিত করেছেন।

মুসল্লিদের শীতের কম্বলের দাম চড়া : এবারের বিশ্বইতেজমা মাঠে সবচেয়ে বেশি বেচাকেনা হয়েছে শীতের শেষ সম্বল মানে গরম কম্বল। এ বছর শীত আর ঘন কুয়াশা বেশি থাকায় কম্বল বেচাকেনা বেশ ভাল হয়েছে। তবে অন্যান্য বছরের চেয়ে কয়েক গুণ দাম বেশি। মুসল্লিরা জানান, যে কম্বল গত বছর দাম ছিল ১৮ শ থেকে ২ হাজার টাকা সেটি এ বছর ২৮শ থেকে ৩ হাজার টাকা দিয়ে কিনতে হয়েছে। সে কারণে কম্বল ব্যবসায়ীদের পোয়াবারো।