Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

নিউইয়র্কের আদালতে নিজেকে নির্দোষ দাবী করলেন নাফিস


১০ জানুয়ারী : এফবিআইএর সাজানো ঘটনায় ফাঁসিয়ে সন্ত্রাসের অভিযোগে আটক বাংলাদেশী ছাত্র কাজী রেজওয়ানুল আহসান নাফিস নিজেকে নির্দোষ দাবি করেছেন। তার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলার শুনানি গতকাল ৯ জানুয়ারী বুধবার নিউইয়র্কের ব্রুকলীনে এক আদালতে অনুষ্ঠিত হয়। নাফিসের উপস্থিতিতে তার পক্ষে সরকার নিযুক্ত আইনজীবী বিচারকের সামনে নাফিসকে নির্দোষ দাবী করেন। বাদী ও আসামি পক্ষ আলাপ আলোচনার পর শুনানীর পরবর্তী তারিখ আগামী ২০ ফেব্রুয়ারী নির্ধারণ করা হয়। এ ব্যাপারে নাফিসের আইনজীবী হেইডি সিজার মন্তব্য করেননি।
গতকালের শুনানি ছিল অত্যন্ত সংক্ষিপ্ত। মাত্র ১৫ মিনিট স্থায়ী ছিল শুনানি। মামলার বিচার প্রক্রিয়া নিয়ে মূলত: শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। আগামী ৩ এপ্রিল থেকে নাফিসের বিরুদ্ধে মামলার পূর্ণাঙ্গ শুনানি আরম্ভ হবে বলে আদালত সূত্রে জানা গেছে।
নিউইয়র্ক সময় সকাল সাড়ে ৯টায় নাফিসকে আদালতে হাজির করা হলে ফেডারেল কোর্টের প্রধান বিচারক ক্যারল অ্যামনের কোর্টে নাফিসের মামলার শুনানি হয়।  নাফিসের আইনজীবী তাকে নির্দোষ দাবী করে জামিনের আবেদন করলে সরকারী আইনজীবী জামিনের বিরোধিতা করেন তাকে আটক রাখার যৌক্তিকতা তুলে ধরেন। শুনানি শেষে বিচারক পরবর্তী শুনানির দিন ২০ ফেব্রুয়ারী ধার্য করেন।
নাফিসকে আদালতে আনা হয় হালকা ছাই রং এর পোষাকে। তার আইনজীবী হেইডি সিজার তার পাশেই উপবিষ্ট ছিলেন। শুধু বক্তব্য দেয়ার সময় উঠে দাঁড়ান ও নাফিসের জামিনের জন্য প্রার্থনা করেন । নাফিস আদালতে অবস্থান করার বেশির ভাগ সময়ে  নির্লিপ্ত ছিলেন। শুনানি প্রত্যক্ষ করার জন্য আদালতে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে বাংলাদেশ দূতাবাসের শামসুল হক, নিউইয়র্ক কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেল মো: মনিরুল ইসলাম ও দূতাবাস কর্মকর্তা শাহানারা মনিকা। শুনানি শেষে নাফিসের সাথে কথা বলেন দূতাবাস কর্মকর্তারা। নাফিস তাদেরকে জানিয়েছেন যে তিনি হাজত থেকে টেলিফোনে বাবা মা ও পরিবারের অন্যান্যের সাথে কথা বলতে পারেন।
শুনানি শেষে নাফিসকে আবার জেল হাজতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।
উল্লেখ্য, নিউইয়র্কের ফেডারেল রিজার্ভ ভবন উড়িয়ে দেয়ার অভিযোগে এফবিআই গত ১৭ অক্টোবর নাফিসকে গ্রেফতার করে। গত বছরের প্রথমার্ধে ষ্টুডেন্ট ভিসায় তিনি যুক্তরাষ্ট্রে আসেন।