Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

রূপালী ব্যাংকে : শীর্ষ খেলাপিদের ঋণ আদায়ের ব্যর্থতায় অসন্তোষ

ঢাকা, ০৯ জানুয়ারি : রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন রূপালী ব্যাংক তাদের শীর্ষ ২০ জন ঋণখেলাপির কাছ থেকে নয় মাসে আদায় করেছে মাত্র ৩০ লাখ টাকা। যদিও আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৩৫ কোটি টাকা।
অর্থাত, নয় মাসের আদায় লক্ষ্যমাত্রার মাত্র দশমিক ৮৫ শতাংশ। এই পরিস্থিতিতে অসন্তোষ প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। শুধু শীর্ষ ২০ জন খেলাপি নয়, ব্যাংকটির সামগ্রিক ঋণ পরিস্থিতি নিয়েই অসন্তুষ্ট কেন্দ্রীয় ব্যাংক।
আবার ব্যাংকটির শাখা পর্যায়ে এখনো আগের মতোই অভ্যন্তরীণ স্বীকৃত বিল কেনা হচ্ছে। হল-মার্ক কেলেঙ্কারির পর এ নিয়ে নীতিমালা করেনি ব্যাংক। অথচ নিয়ম অনুসারে শাখা পর্যায় থেকে বিভিন্ন পর্যায়ে স্বীকৃত বিল কেনার ক্ষেত্রে সীমা আরোপ করার কথা।
বাংলাদেশ ব্যাংকের সঙ্গে সমঝোতা স্মারকের অগ্রগতি নিয়ে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে মঙ্গলবার এসব আলোচনা হয়।
রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন সোনালী, জনতা, অগ্রণী ও রূপালী ব্যাংকের পরিচালন ব্যয়, মূলধনের পর্যাপ্ততা, খেলাপি ঋণ আদায়, ঝুঁকি ব্যবস্থ্থাপনা, লোকসানি শাখা কমানোসহ সার্বিক উন্নয়নে বাংলাদেশ ব্যাংকের সঙ্গে প্রতিবছর সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) সই হয়। প্রতি তিন মাসে এর অগ্রগতি পর্যালোচনাও করে বাংলাদেশ ব্যাংক।
এই ধারাবাহিকতায় গতকাল রূপালী ব্যাংকের সঙ্গে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে ৩ জানুয়ারি সোনালী, গত রোববার জনতা ব্যাংক এবং গত সোমবার অগ্রণী ব্যাংকের সঙ্গে বৈঠক হয়েছে।
সূত্র জানায়, ২০১১ সাল শেষে রূপালী ব্যাংকের মোট খেলাপি ঋণ ছিল ৪৫৪ কোটি ৬৬ লাখ টাকা। আর বিদায়ী ২০১২ সালের সেপ্টেম্বর শেষে তা এক লাফে হয়েছে ৭৫৪ কোটি ৬০ লাখ টাকা। ব্যাংকটির মূলধন ঘাটতি দাঁড়িয়েছে ৭৩ কোটি ৭৪ লাখ টাকা।
তবে, সংবাদপত্রে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে রূপালী ব্যাংক কর্তৃপক্ষ জানিয়ছে, তাদের সঙ্গে আলোচনায় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর আতিউর রহমান স্বস্তি প্রকাশ করেছেন। গভর্নরকে উদ্ধৃত করে রূপালী ব্যাংক বিজ্ঞপ্তিতে বলেছে, বৈঠকে গভর্নর ‘গত তিন দিনের মধ্যে আজ আমি অনেকটা স্বস্তি বোধ করছি’ বলে মন্তব্য করেন।