Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

স্কুলছাত্রী ধর্ষণের প্রতিবাদে আয়োজিত মানববন্ধন পন্ড করলো রাবি ছাত্রলীগ!

টাঙ্গাইলের মধুপুরে নবম শ্রেনীর ছাত্রীর উপর পাশবিক নির্যাতন ও ধর্ষণের প্রতিবাদে আয়োজিত মানববন্ধন পন্ড করে দিয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ।

 

সোমবার টাঙ্গাইল জেলার শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ব্যানারে এই মানববন্ধন কর্মসূচীর আয়োজন করা হয়। ওই মানববন্ধনটি বিএনপি-জামায়াতের মানববন্ধন এমনটা আখ্যা দিয়ে তা পন্ড করে  মানববন্ধনের ব্যানার ছিনিয়ে নেয় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জহিরুল হক জাকির। পরে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন না করেই ঘটনা স্থল ত্যাগ করে।

এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

 

সংশশ্লষ্ঠ সূত্রে জানা যায়, টাঙ্গাইল মধুপুর উপজেলার নবম শ্রেনীর এক ছাত্রী উপর পাশবিক নির্যাতন ও ধর্ষনের প্রতিবাদে এবং ধর্ষণকারীদের শাসিত্মর দাবিতে টাঙ্গাইল জেলা সমিতির উদ্যোগে টাঙ্গাইল জেলার শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ব্যানারে একটি মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় সিনেট ভবনের সামনে ওই জেলার শিক্ষক-শিক্ষার্থী একত্রিত হয়ে মানববন্ধনের প্রস্ত্ততি নিতে থাকে।

 

এ সময় বিশ্ববিদ্যালয় ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের শিক্ষক প্রফেসর ড. ফজলুল হক, গণিত বিভাগের প্রফেসর ড. হারুন আর রশিদ এবং প্রফেসর ড. জি. এম শফিউর রহমানসহ প্রায় শতাধিক শিক্ষক-শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন। এমন সময় বিশ্ববিদ্যালয় মাকেটিং বিভাগের ৪র্থ বর্ষের শিক্ষার্থী এবং বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জহিরুল হক জাকিরের নেতৃত্বে কয়েকজন ছাত্রলীগকর্মী ওই মানববন্ধন স্থলে উপস্থিত হয়। মানববন্ধনে বিএনপি-জামায়াতের নেতাকর্মী আছে এমন অজুহাতে মানববন্ধনের ব্যানার ছিনিয়ে নেয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এসময় তারা মানববন্ধন না করারও হুমকি দেয় তারা। পরে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন না করেই ঘটনা স্থল ত্যাগ করে।

 

নাম প্রকাশে অনিছুক ওই জেলার কয়েকজন শিক্ষার্থী জানান, দেশের বিভিন্ন স্থানে ধর্ষণের প্রতিবাদ করা আমাদের ন্যায্য দাবি। সেখানে বিশ্ববিদ্যালয ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের বাধায় আমরা হতভম্ব হয়েছি। আমরা টাঙ্গাইলের ওই ধর্ষণ কারীদের শাসিত্মর পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের এই ন্যক্কার জনক ঘটনারও তীব্র প্রতিবাদ জানাই।

 

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে ছাত্রলীগ নেতা জাকির বলেন, এই মানববন্ধন ছিল মূলত বিএনপি-জামায়াতের মানববন্ধন। এখানে টাঙ্গাইলের সকল শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি নেই। সে জন্য আমি মানববন্ধন করতে দেয়নি। আমার বাড়িও টাঙ্গাইলে। এই মানববন্ধই আগামীকাল (মঙ্গলবার) সকালে হবে বলে জানান তিনি।

 

উলল্লখ্য, গত ৬ ডিসেম্বর টাঙ্গাইল সদর উপজেলায় পাহাড়ী এলাকার একটি বাড়িতে নিয়ে ৩/৪ জন ছেলে ওই মেয়ে ৩ দিন ধরে ধর্ষণ করে। পরে ১০ ডিসেম্বর তাকে একটি রেললাইনের উপর ফেলে রেখে যায়। অজ্ঞান অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে এবং পরে ঢাকা মেডিকেল হাসপালে ভর্তি করা হয়।

 

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট